০৫:১০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

অবিশ্বাস্য রোমাঞ্চে ১ রানের জয় নিউজিল্যান্ডের

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০২:৫১:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • / ৮০ বার পড়া হয়েছে

ইংল্যান্ডের অধিনায়ক বেন স্টোকসকে সঙ্গে নিয়ে জো রুট যেভাবে দাপট দেখিয়ে ব্যাটিং করছিলেন, তাতে বুঝাই যাচ্ছিল শেষ হাসি ইংল্যান্ডই হাসতে যাচ্ছে। কিন্তু সমীকরণের তখনও অনেকটা বাকি। ঝলক দেখালেন নিউজিল্যান্ডের নিল ওয়েগনার। চমক দেখিয়ে তুলে নিলেন ক্রিজে সেট দুই ব্যাটারকে। আর ম্যাচের শেষ দিকে গর্জে ওঠেন জেমস অ্যান্ডারসনও। তাদের অপ্রতিরুদ্ধ বোলিংয়ে ৩০ বছর পর আবারও টেস্টে ১ রানের জয় দেখল ক্রিকেট-বিশ্ব।

মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ওয়েলিংটনের বেসিন রিজার্ভে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে থ্রি-লায়ন্সদের ১ রানে হারিয়েছে কিউইরা। ১৫০ বছরের ক্রিকেটের ইতিহাসে ১ রানে কোনো দল দ্বিতীয়বারের মতো জয় দেখল। এর আগে ১৯৯৩ সালে অ্যাডিলেড টেস্টে অজিদের ১ রানে হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এ জয়ে সিরিজে ১-১ ব্যবধানে সমতায় ফিরলো স্বাগতিকরা। শেষ দিনে ২০৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে ২০৬ রানেই অলআউট ইংলিশরা। ১ রানে জয় পেলেও এ ম্যাচেই ফলোঅনে পড়েছিল কিউইরা। প্রথম ইনিংসে ২০৯ রানে থামলেও দ্বিতীয় ইনিংসে কেন উইলিয়ামসনের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরিতে ৪৮৩ রানের লক্ষ্য দাঁড় করায় নিউজিল্যান্ড। এতেই রোমাঞ্চকর ম্যাচে উদযাপনে মাতে কিউইরা।

শেষ দিনে ১ উইকেটে ৪৮ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামে ইংলিশ শিবির। আর দিনের শুরুর ধাক্কাটা দেন ব্ল্যাক ক্যাপসদের অধিনায়ক টিম সাউদি। ইংলিশদের স্কোরবোর্ডে ৫ রান যোগ হতেই অলি রবিনসনকে ফেরান এই ফাস্ট বোলার। আর ৬ রান যোগ হতেই ফিরে যান আরেক ইংলিশ ব্যাটার বেন ডাকেট। ম্যাট হেনরির বোলে ক্যাচ দিয়ে দলীয় ৫৯ রানে ফিরে যান তিনি।

দলীয় ৮০ রানে পরপর দুই বলে অলি পোপ ও হ্যারি ব্রুককে হারিয়ে জয়ের আশা ক্রমেই ক্ষীণ হয় ইংলিশদের। ওয়েগনারের বলে লাথামের কাছে ক্যাচে দিয়ে পোপ আর রানআউট হয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন হ্যারি ব্রুক। এরপর অধিনায়ক স্টোকসকে নিয়ে ষষ্ঠ উইকেটে ১২১ রানের জুটি গড়ে দলের হাল ধরেন জো রুট। শর্ট বলে পুল করতে গিয়ে স্কয়ার লেগে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। ৬ চারে ৩৩ রানে ফিরে যান এই ব্যাটার। এরপর ওয়েগনারের বলেই রুট আউট হলে জয়ের পথে এগিয়ে যায় কিউইরা।

তবে ইংলিশদের লড়াইয়ে রাখেন বেন ফোকস। তার ৩৬ রানের মহাগুরুত্বপূর্ণ ব্যাটিংয়ে জয়ের স্বপ্ন দেখেছিল ইংলিশরা। কিন্তু জয়ের থেকে মাত্র ৭ রান দূরে থাকতেই ফিরে যান তিনিও। কিউই অধিনায়ক সাউদির বলে টপ-এজ হয়ে ওয়েগনারের কাছে ক্যাচে দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ফোকস। অন্যদিকে শেষ ব্যাটার হিসেবে ব্যাট করতে নেমেই মিডঅন দিয়ে দারুণ একটি বাউন্ডারি মারেন অ্যান্ডারসন। জয়ের জন্য তখন দরকার মাত্র ২ রান। কিন্তু তা প্রতিহত করেন ফর্মে থাকা ওয়েগনার।

ওয়েগনারের দারুণ এক বলে উইকেটের পেছনে ঝাঁপিয়ে ক্যাচ ধরেন উইকেটরক্ষক টম ব্লান্ডেল। এতে ৪ রানে অ্যান্ডারসন আউট হলে ১ রানে জয় পায় নিউজিল্যান্ড। ইংলিশদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৯৫ রান করেন রুট। ৮ চার ও ৩ ছক্কায় ১১৩ বলে এই রান করেন রুট। আর ফোকসের ব্যাটে আসে ৩৫ রান। অন্যদিকে ৬২ রান খরচায় ৪ উইকেট নেন নিউজিল্যান্ডের ওয়েগনার। এ ছাড়া কিউই অধিনায়ক টিম সাউদি ৩ ও হেনরি দুটি উইকেট নিয়েছেন।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

অবিশ্বাস্য রোমাঞ্চে ১ রানের জয় নিউজিল্যান্ডের

আপডেট সময় ০২:৫১:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

ইংল্যান্ডের অধিনায়ক বেন স্টোকসকে সঙ্গে নিয়ে জো রুট যেভাবে দাপট দেখিয়ে ব্যাটিং করছিলেন, তাতে বুঝাই যাচ্ছিল শেষ হাসি ইংল্যান্ডই হাসতে যাচ্ছে। কিন্তু সমীকরণের তখনও অনেকটা বাকি। ঝলক দেখালেন নিউজিল্যান্ডের নিল ওয়েগনার। চমক দেখিয়ে তুলে নিলেন ক্রিজে সেট দুই ব্যাটারকে। আর ম্যাচের শেষ দিকে গর্জে ওঠেন জেমস অ্যান্ডারসনও। তাদের অপ্রতিরুদ্ধ বোলিংয়ে ৩০ বছর পর আবারও টেস্টে ১ রানের জয় দেখল ক্রিকেট-বিশ্ব।

মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ওয়েলিংটনের বেসিন রিজার্ভে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে থ্রি-লায়ন্সদের ১ রানে হারিয়েছে কিউইরা। ১৫০ বছরের ক্রিকেটের ইতিহাসে ১ রানে কোনো দল দ্বিতীয়বারের মতো জয় দেখল। এর আগে ১৯৯৩ সালে অ্যাডিলেড টেস্টে অজিদের ১ রানে হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এ জয়ে সিরিজে ১-১ ব্যবধানে সমতায় ফিরলো স্বাগতিকরা। শেষ দিনে ২০৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে ২০৬ রানেই অলআউট ইংলিশরা। ১ রানে জয় পেলেও এ ম্যাচেই ফলোঅনে পড়েছিল কিউইরা। প্রথম ইনিংসে ২০৯ রানে থামলেও দ্বিতীয় ইনিংসে কেন উইলিয়ামসনের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরিতে ৪৮৩ রানের লক্ষ্য দাঁড় করায় নিউজিল্যান্ড। এতেই রোমাঞ্চকর ম্যাচে উদযাপনে মাতে কিউইরা।

শেষ দিনে ১ উইকেটে ৪৮ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামে ইংলিশ শিবির। আর দিনের শুরুর ধাক্কাটা দেন ব্ল্যাক ক্যাপসদের অধিনায়ক টিম সাউদি। ইংলিশদের স্কোরবোর্ডে ৫ রান যোগ হতেই অলি রবিনসনকে ফেরান এই ফাস্ট বোলার। আর ৬ রান যোগ হতেই ফিরে যান আরেক ইংলিশ ব্যাটার বেন ডাকেট। ম্যাট হেনরির বোলে ক্যাচ দিয়ে দলীয় ৫৯ রানে ফিরে যান তিনি।

দলীয় ৮০ রানে পরপর দুই বলে অলি পোপ ও হ্যারি ব্রুককে হারিয়ে জয়ের আশা ক্রমেই ক্ষীণ হয় ইংলিশদের। ওয়েগনারের বলে লাথামের কাছে ক্যাচে দিয়ে পোপ আর রানআউট হয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন হ্যারি ব্রুক। এরপর অধিনায়ক স্টোকসকে নিয়ে ষষ্ঠ উইকেটে ১২১ রানের জুটি গড়ে দলের হাল ধরেন জো রুট। শর্ট বলে পুল করতে গিয়ে স্কয়ার লেগে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। ৬ চারে ৩৩ রানে ফিরে যান এই ব্যাটার। এরপর ওয়েগনারের বলেই রুট আউট হলে জয়ের পথে এগিয়ে যায় কিউইরা।

তবে ইংলিশদের লড়াইয়ে রাখেন বেন ফোকস। তার ৩৬ রানের মহাগুরুত্বপূর্ণ ব্যাটিংয়ে জয়ের স্বপ্ন দেখেছিল ইংলিশরা। কিন্তু জয়ের থেকে মাত্র ৭ রান দূরে থাকতেই ফিরে যান তিনিও। কিউই অধিনায়ক সাউদির বলে টপ-এজ হয়ে ওয়েগনারের কাছে ক্যাচে দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ফোকস। অন্যদিকে শেষ ব্যাটার হিসেবে ব্যাট করতে নেমেই মিডঅন দিয়ে দারুণ একটি বাউন্ডারি মারেন অ্যান্ডারসন। জয়ের জন্য তখন দরকার মাত্র ২ রান। কিন্তু তা প্রতিহত করেন ফর্মে থাকা ওয়েগনার।

ওয়েগনারের দারুণ এক বলে উইকেটের পেছনে ঝাঁপিয়ে ক্যাচ ধরেন উইকেটরক্ষক টম ব্লান্ডেল। এতে ৪ রানে অ্যান্ডারসন আউট হলে ১ রানে জয় পায় নিউজিল্যান্ড। ইংলিশদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৯৫ রান করেন রুট। ৮ চার ও ৩ ছক্কায় ১১৩ বলে এই রান করেন রুট। আর ফোকসের ব্যাটে আসে ৩৫ রান। অন্যদিকে ৬২ রান খরচায় ৪ উইকেট নেন নিউজিল্যান্ডের ওয়েগনার। এ ছাড়া কিউই অধিনায়ক টিম সাউদি ৩ ও হেনরি দুটি উইকেট নিয়েছেন।