১২:৪৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

আইন মেনে ভবন করলে এত ক্ষতি হতো না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৬:০৭:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ মার্চ ২০২৩
  • / ৬৯ বার পড়া হয়েছে

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, রাজধানীর গুলিস্তানের পাশে সিদ্দিকবাজারে যে ভবনে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে সেটি ইমারত আইন মেনে নির্মাণ করলে এতটা ক্ষতি হতো না।

বুধবার (৮ মার্চ) ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, বেজমেন্ট ও নিচতলায় যথেষ্ট পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে। ভবনটি এখন ঝুঁকিপূর্ণ ইমারতে পরিণত হয়েছে। ভবনের ওপর চাপ পড়লে সেটি ধসে পড়ার শঙ্কা রয়েছে।

‌এ জন্য স্টেবল অবস্থা তৈরি করে অভিযান শুরু করা হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কী কারণে বিস্ফোরণ ঘটেছে তা তদন্তের পর জানা যাবে। কেউ যেন ইমারতের অনুমোদন না নিয়ে ভবন নির্মাণ না করে। যারা অনুমতি না নিয়ে ভবন নির্মাণ করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ‌‌‌‌‌

মঙ্গলবার বিকেলে গুলিস্তানে বিআরটিসির বাস কাউন্টারের কাছে সিদ্দিকবাজারের সাততলা একটি ভবনে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে পাশের আরেকটি পাঁচতলা ভবনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরমধ্যে সাততলা ভবনের বেজমেন্ট, প্রথম ও দোতলা বিধ্বস্ত হয়। আর পাঁচতলা ভবনের নিচতলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

আইন মেনে ভবন করলে এত ক্ষতি হতো না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৬:০৭:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ মার্চ ২০২৩

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, রাজধানীর গুলিস্তানের পাশে সিদ্দিকবাজারে যে ভবনে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে সেটি ইমারত আইন মেনে নির্মাণ করলে এতটা ক্ষতি হতো না।

বুধবার (৮ মার্চ) ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, বেজমেন্ট ও নিচতলায় যথেষ্ট পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে। ভবনটি এখন ঝুঁকিপূর্ণ ইমারতে পরিণত হয়েছে। ভবনের ওপর চাপ পড়লে সেটি ধসে পড়ার শঙ্কা রয়েছে।

‌এ জন্য স্টেবল অবস্থা তৈরি করে অভিযান শুরু করা হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কী কারণে বিস্ফোরণ ঘটেছে তা তদন্তের পর জানা যাবে। কেউ যেন ইমারতের অনুমোদন না নিয়ে ভবন নির্মাণ না করে। যারা অনুমতি না নিয়ে ভবন নির্মাণ করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ‌‌‌‌‌

মঙ্গলবার বিকেলে গুলিস্তানে বিআরটিসির বাস কাউন্টারের কাছে সিদ্দিকবাজারের সাততলা একটি ভবনে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে পাশের আরেকটি পাঁচতলা ভবনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরমধ্যে সাততলা ভবনের বেজমেন্ট, প্রথম ও দোতলা বিধ্বস্ত হয়। আর পাঁচতলা ভবনের নিচতলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।