০২:১৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

আইসিসি থেকে সুখবর পেলেন শান্ত-লিটন-মোস্তাফিজ

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ১০:৩২:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মার্চ ২০২৩
  • / ৮১ বার পড়া হয়েছে

ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি সিরিজে ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করেছে টাইগাররা। আর ইংলিশদের এই ধবলধোলাইয়ে সবচেয়ে বেশি অবদান টপ-অর্ডার ব্যাটার নাজমুল হোসেন শান্তর। সিরিজের তিন ম্যাচেই চল্লিশোর্ধ ইনিংস খেলেছেন শান্ত। পুরো সিরিজজুড়ে ব্যাটিং আধিপত্য বজায় রাখায় সিরিজসেরার খেতাব তার ঝুলিতেই।

এবার দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পুরস্কার পেলেন বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্তা সংস্থা আইসিসি থেকেও। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত এই সংস্করণের ব্যাটারদের র‍্যাঙ্কিংয়ে বড় লাফ দিয়েছেন শান্ত। তবে শুধু শান্তই না, টাইগারদের অধিনায়ক লিটন কুমার দাসও র‍্যাঙ্কিংয়ে এগিয়েছেন। বুধবার (১৫ মার্চ) আইসিসি প্রকাশিত পুরুষদের সাপ্তাহিক হালনাগাদ র‍্যাঙ্কিংয়ে ক্যারিয়ার সেরা অবস্থানে উঠে এসেছেন এই দুই টপ-অর্ডার ব্যাটার।

র‍্যাঙ্কিংয়ে ২২ ধাপ এগিয়ে ১৬-তে উঠে এসেছেন শান্ত। আর টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশি ব্যাটারদের মধ্যে এটাই বর্তমানে সেরা অবস্থান। এ ছাড়া ৯ ধাপ এগিয়েছে লিটনও, ২২-এ উঠে এসেছেন টাইগারদের এই ওপেনার। সিরিজসেরা নির্বাচিত হওয়া নাজমুল হোসেন শান্ত তিন ম্যাচেই ব্যাট হাতে ধারাবাহিক রান পেয়েছেন। বিশ্বকাপের পর বিপিএলেও আলো ছড়ানো এই ব্যাটার সিরিজে সর্বোচ্চ ১৪৪ রান করেন।

সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৫১ রানের অনবদ্য এক ইনিংস খেলেন শান্ত। আর তার এই ইনিংসের মধ্য দিয়েই মূলত সিরিজ জয়ের স্বপ্ন বুনেছিল টাইগাররা। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও ধারাবাহিকতা বজায় রাখেন শান্ত। এই ম্যাচে শান্তর ৪৬ রানে ভর করে ইংলিশদের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো কোনো সংস্করণে জয়ের স্বপ্ন সত্যি করে সাকিব বাহিনী। আর তৃতীয় ম্যাচে শান্তর ৪৭ রানে চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ পেয়েছিল বাংলাদেশ শিবির।

তবে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে অনেকটা প্রভাশূন্য ছিলেন ওপেনার লিটন কুমার দাস। দুই ম্যাচে করেন মাত্র ১৯ রান, প্রথম ম্যাচে ১২ আর দ্বিতীয়টিতে মাত্র ৯ রান। এজন্য নেটিজেনদের দুয়োধ্বনিও শুনেছেন লিটন। আর টাইগারদের ইংলিশ ধবলধোলাই মিশনের সেই দুয়োধ্বনি যথার্থ জবাব দেন টাইগারদের সেরা এই ওপেনার। লিটনের ৭৩ রানের বিধ্বংসী ইনিংসে ইংলিশদের ধবলধোলাইয়ের প্রত্যাশা জিইয়ে তুলেন তিনি।

এদিকে টাইগারদের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে হাফ-সেঞ্চুরির পুরস্কারও পেয়েছেন ইংলিশদের টপ-অর্ডার ব্যাটার দাভিদ মালান। র‍্যাঙ্কিংয়ে এক ধাপ এগিয়ে ৭-এ উঠে এসেছেন এই ইংলিশ ব্যাটসম্যান। তবে বাকি ইংলিশ ব্যাটারদের র‍্যাঙ্কিং তালিকায় অবনতি হয়েছে। টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে ব্যাটারদের তালিকায় শীর্ষেই আছেন ভারতের সূর্যকুমার যাদব, দুইয়ে পাকিস্তানের মোহাম্মদ রিজওয়ান। আর তৃতীয় স্থানের দখলে দ্য গ্রিন ম্যানদের কাপ্তান বাবর আজম।

অন্যদিকে শুধু ব্যাটারদের তালিকাতেই না। বোলারদের তালিকায়ও সুসংবাদ পেয়েছেন টাইগার বোলাররা। কোচ হাথুরুসিংহের শিষ্যদের মধ্যে সবার ওপরে উঠে এসেছেন মোস্তাফিজুর রহমান। পুরো সিরিজে মাত্র এক উইকেট নেওয়া এই ফাস্ট বোলার আট ধাপ এগিয়ে তালিকার ২০-এ উঠেছেন। আর ৯ ধাপ এগিয়ে টাইগার কাপ্তানের অবস্থান ২৪-এ। সিরিজের তিন ম্যাচে ৪ উইকেট নেওয়া তাসকিন ৪১তম আর ৪৭তম স্থানে আছেন টাইগারদের তরুণ গতিতারকা হাসান মাহমুদ।

তবে বোলারদের তালিকার শীর্ষ তিনে কোনো পরিবর্তন হয়নি। যথারীতি শীর্ষে আছেন শ্রীলঙ্কার ভানিন্দু হাসারাঙ্গা, দুইয়ে আফগানিস্তানের রশিদ খান আর শীর্ষ তিনে অস্ট্রেলিয়ার জশ হেইজেলউড। অন্যদিকে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে অলরাউন্ডারদের তালিকায় শীর্ষস্থান সাকিব আল হাসানেরই।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

আইসিসি থেকে সুখবর পেলেন শান্ত-লিটন-মোস্তাফিজ

আপডেট সময় ১০:৩২:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মার্চ ২০২৩

ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি সিরিজে ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করেছে টাইগাররা। আর ইংলিশদের এই ধবলধোলাইয়ে সবচেয়ে বেশি অবদান টপ-অর্ডার ব্যাটার নাজমুল হোসেন শান্তর। সিরিজের তিন ম্যাচেই চল্লিশোর্ধ ইনিংস খেলেছেন শান্ত। পুরো সিরিজজুড়ে ব্যাটিং আধিপত্য বজায় রাখায় সিরিজসেরার খেতাব তার ঝুলিতেই।

এবার দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পুরস্কার পেলেন বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্তা সংস্থা আইসিসি থেকেও। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত এই সংস্করণের ব্যাটারদের র‍্যাঙ্কিংয়ে বড় লাফ দিয়েছেন শান্ত। তবে শুধু শান্তই না, টাইগারদের অধিনায়ক লিটন কুমার দাসও র‍্যাঙ্কিংয়ে এগিয়েছেন। বুধবার (১৫ মার্চ) আইসিসি প্রকাশিত পুরুষদের সাপ্তাহিক হালনাগাদ র‍্যাঙ্কিংয়ে ক্যারিয়ার সেরা অবস্থানে উঠে এসেছেন এই দুই টপ-অর্ডার ব্যাটার।

র‍্যাঙ্কিংয়ে ২২ ধাপ এগিয়ে ১৬-তে উঠে এসেছেন শান্ত। আর টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশি ব্যাটারদের মধ্যে এটাই বর্তমানে সেরা অবস্থান। এ ছাড়া ৯ ধাপ এগিয়েছে লিটনও, ২২-এ উঠে এসেছেন টাইগারদের এই ওপেনার। সিরিজসেরা নির্বাচিত হওয়া নাজমুল হোসেন শান্ত তিন ম্যাচেই ব্যাট হাতে ধারাবাহিক রান পেয়েছেন। বিশ্বকাপের পর বিপিএলেও আলো ছড়ানো এই ব্যাটার সিরিজে সর্বোচ্চ ১৪৪ রান করেন।

সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৫১ রানের অনবদ্য এক ইনিংস খেলেন শান্ত। আর তার এই ইনিংসের মধ্য দিয়েই মূলত সিরিজ জয়ের স্বপ্ন বুনেছিল টাইগাররা। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও ধারাবাহিকতা বজায় রাখেন শান্ত। এই ম্যাচে শান্তর ৪৬ রানে ভর করে ইংলিশদের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো কোনো সংস্করণে জয়ের স্বপ্ন সত্যি করে সাকিব বাহিনী। আর তৃতীয় ম্যাচে শান্তর ৪৭ রানে চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ পেয়েছিল বাংলাদেশ শিবির।

তবে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে অনেকটা প্রভাশূন্য ছিলেন ওপেনার লিটন কুমার দাস। দুই ম্যাচে করেন মাত্র ১৯ রান, প্রথম ম্যাচে ১২ আর দ্বিতীয়টিতে মাত্র ৯ রান। এজন্য নেটিজেনদের দুয়োধ্বনিও শুনেছেন লিটন। আর টাইগারদের ইংলিশ ধবলধোলাই মিশনের সেই দুয়োধ্বনি যথার্থ জবাব দেন টাইগারদের সেরা এই ওপেনার। লিটনের ৭৩ রানের বিধ্বংসী ইনিংসে ইংলিশদের ধবলধোলাইয়ের প্রত্যাশা জিইয়ে তুলেন তিনি।

এদিকে টাইগারদের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে হাফ-সেঞ্চুরির পুরস্কারও পেয়েছেন ইংলিশদের টপ-অর্ডার ব্যাটার দাভিদ মালান। র‍্যাঙ্কিংয়ে এক ধাপ এগিয়ে ৭-এ উঠে এসেছেন এই ইংলিশ ব্যাটসম্যান। তবে বাকি ইংলিশ ব্যাটারদের র‍্যাঙ্কিং তালিকায় অবনতি হয়েছে। টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে ব্যাটারদের তালিকায় শীর্ষেই আছেন ভারতের সূর্যকুমার যাদব, দুইয়ে পাকিস্তানের মোহাম্মদ রিজওয়ান। আর তৃতীয় স্থানের দখলে দ্য গ্রিন ম্যানদের কাপ্তান বাবর আজম।

অন্যদিকে শুধু ব্যাটারদের তালিকাতেই না। বোলারদের তালিকায়ও সুসংবাদ পেয়েছেন টাইগার বোলাররা। কোচ হাথুরুসিংহের শিষ্যদের মধ্যে সবার ওপরে উঠে এসেছেন মোস্তাফিজুর রহমান। পুরো সিরিজে মাত্র এক উইকেট নেওয়া এই ফাস্ট বোলার আট ধাপ এগিয়ে তালিকার ২০-এ উঠেছেন। আর ৯ ধাপ এগিয়ে টাইগার কাপ্তানের অবস্থান ২৪-এ। সিরিজের তিন ম্যাচে ৪ উইকেট নেওয়া তাসকিন ৪১তম আর ৪৭তম স্থানে আছেন টাইগারদের তরুণ গতিতারকা হাসান মাহমুদ।

তবে বোলারদের তালিকার শীর্ষ তিনে কোনো পরিবর্তন হয়নি। যথারীতি শীর্ষে আছেন শ্রীলঙ্কার ভানিন্দু হাসারাঙ্গা, দুইয়ে আফগানিস্তানের রশিদ খান আর শীর্ষ তিনে অস্ট্রেলিয়ার জশ হেইজেলউড। অন্যদিকে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে অলরাউন্ডারদের তালিকায় শীর্ষস্থান সাকিব আল হাসানেরই।