০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪

আওয়ামী লীগ কাওয়ার্ড সরকার : ফখরুল

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ১০:৩৭:৪৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৬৪ বার পড়া হয়েছে

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়, তারা কাওয়ার্ড (কাপুরুষ) সরকার, এ জন্যই তারা জনগণকে ভয় পায়। শনিবার (৮ এপ্রিল) রাজধানীর লেডিস ক্লাবে অনুষ্ঠিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের (এ্যাব) উদ্যোগে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। মির্জা ফখরুল বলেন, এ সরকার জনগণকে রাস্তায় দাঁড়াতে দেয় না, কথা বলতে দেয় না। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি ও সরকারের পদত্যাগসহ ১০ দফা দাবিতে সারাদেশে আমাদের অবস্থান কর্মসূচি ছিল। কিন্তু অধিকাংশ জায়গায় সরকার কর্মসূচি করতে দেয়নি। ইতোমধ্যেই ঢাকায় ৫০ জনের বেশি নেতাকর্মী গ্রেপ্তার হয়েছে।

যশোরের শার্শায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর অতর্কিত হাতুড়ি দিয়ে হামলা চালিয়েছে। নেত্রকোনায় হামলা করেছে। আমাদের ১৭ জনকে তারা খুন করেছে। হাজার হাজার লোককে তারা গ্রেপ্তার করেছে। কেউ ভালো নেই। সুতরাং আর বসে থাকার সুযোগ নেই। সবাইকে জেগে উঠতে হবে। তিনি বলেন, বিদায়ী রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ তার ভাষণে বলেছেন গণতন্ত্রহীন উন্নয়ন কখনো সার্বজনীন হতে পারে না। অথচ এ কথা আমরা অনেক দিন ধরে বলে আসছি। আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র ধ্বংস করে দেশটাকে ফোকলা করে দিয়েছে।

এ্যাবের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার রিয়াজুল ইসলাম রিজুর সভাপতিত্বে ও সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ কে এম আসাদুজ্জামান চুন্নুর সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন, ড. আবদুল মঈন খান, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, এ্যাবের মহাসচিব আলমগীর হাছিন আহমেদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রকৌশলী আশরাফ উদ্দিন বকুল, সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মো. মোস্তাফা-ই-জামান সেলিম প্রমুখ।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

আওয়ামী লীগ কাওয়ার্ড সরকার : ফখরুল

আপডেট সময় ১০:৩৭:৪৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ এপ্রিল ২০২৩

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়, তারা কাওয়ার্ড (কাপুরুষ) সরকার, এ জন্যই তারা জনগণকে ভয় পায়। শনিবার (৮ এপ্রিল) রাজধানীর লেডিস ক্লাবে অনুষ্ঠিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের (এ্যাব) উদ্যোগে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। মির্জা ফখরুল বলেন, এ সরকার জনগণকে রাস্তায় দাঁড়াতে দেয় না, কথা বলতে দেয় না। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি ও সরকারের পদত্যাগসহ ১০ দফা দাবিতে সারাদেশে আমাদের অবস্থান কর্মসূচি ছিল। কিন্তু অধিকাংশ জায়গায় সরকার কর্মসূচি করতে দেয়নি। ইতোমধ্যেই ঢাকায় ৫০ জনের বেশি নেতাকর্মী গ্রেপ্তার হয়েছে।

যশোরের শার্শায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর অতর্কিত হাতুড়ি দিয়ে হামলা চালিয়েছে। নেত্রকোনায় হামলা করেছে। আমাদের ১৭ জনকে তারা খুন করেছে। হাজার হাজার লোককে তারা গ্রেপ্তার করেছে। কেউ ভালো নেই। সুতরাং আর বসে থাকার সুযোগ নেই। সবাইকে জেগে উঠতে হবে। তিনি বলেন, বিদায়ী রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ তার ভাষণে বলেছেন গণতন্ত্রহীন উন্নয়ন কখনো সার্বজনীন হতে পারে না। অথচ এ কথা আমরা অনেক দিন ধরে বলে আসছি। আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র ধ্বংস করে দেশটাকে ফোকলা করে দিয়েছে।

এ্যাবের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার রিয়াজুল ইসলাম রিজুর সভাপতিত্বে ও সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ কে এম আসাদুজ্জামান চুন্নুর সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন, ড. আবদুল মঈন খান, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, এ্যাবের মহাসচিব আলমগীর হাছিন আহমেদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রকৌশলী আশরাফ উদ্দিন বকুল, সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মো. মোস্তাফা-ই-জামান সেলিম প্রমুখ।