১২:৩৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

আমরা অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন চাই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৮:১০:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৪৫ বার পড়া হয়েছে

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, আমরা অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন করতে চাই। এ জন্য যে ধরনের ইনস্টিটিউশন করা দরকার সরকার সেগুলো প্রতিষ্ঠিত করেছে। সোমবার (২৪ এপ্রিল) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তিন দেশ সফর নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, শুধু সরকার ও নির্বাচন কমিশন চাইলেই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে না। সব দল যদি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের কমিটমেন্ট দেয় তবেই সুন্দর ও স্বচ্ছ নির্বাচন হবে। নির্বাচন কমিশন স্বচ্ছ নির্বাচন দিতে প্রস্তুত আছে। তিনি বলেন, নির্বাচনে বিরোধীসহ সব দলের আন্তরিকতা ও ঐকান্তিকতা থাকতে হবে। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন করার জন্য সব দলকে আসতে হবে।

নির্বাচন কমিশন স্বাধীন এবং নির্বাচনের সময় কমিশনের হাতে সব ক্ষমতা ন্যস্ত। নির্বাচনের সময় সব দায়দায়িত্ব কমিশনের। নির্বাচন কমিশন চাইলে যে কোনো অফিসারকে সাসপেন্ড করতে পারে, টারমিনেট করতে পারে, ট্রান্সফারও করতে পারে। এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, নির্বাচন আরও আট মাস পরে অনুষ্ঠিত হবে, অথচ এগুলো নিয়েই হইচই।

দেশে আর কোনো কাজ নাই? দেশে জলবায়ু, এমপ্লয়মেন্টসহ আরও অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে। আপনারা এগুলো না বলে শুধু নির্বাচন নিয়ে বকবক করেন। এটা খুবই দুঃখজনক। আপনারা (সাংবাদিক) নিজেরা বকবক করেন, বিদেশিদের দিয়েও বকবক করান। এ সময় তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন যে, দেশের মানুষ বর্তমান সরকারকে আবারও ভোট দেবে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

আমরা অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন চাই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৮:১০:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৩

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, আমরা অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন করতে চাই। এ জন্য যে ধরনের ইনস্টিটিউশন করা দরকার সরকার সেগুলো প্রতিষ্ঠিত করেছে। সোমবার (২৪ এপ্রিল) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তিন দেশ সফর নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, শুধু সরকার ও নির্বাচন কমিশন চাইলেই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে না। সব দল যদি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের কমিটমেন্ট দেয় তবেই সুন্দর ও স্বচ্ছ নির্বাচন হবে। নির্বাচন কমিশন স্বচ্ছ নির্বাচন দিতে প্রস্তুত আছে। তিনি বলেন, নির্বাচনে বিরোধীসহ সব দলের আন্তরিকতা ও ঐকান্তিকতা থাকতে হবে। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন করার জন্য সব দলকে আসতে হবে।

নির্বাচন কমিশন স্বাধীন এবং নির্বাচনের সময় কমিশনের হাতে সব ক্ষমতা ন্যস্ত। নির্বাচনের সময় সব দায়দায়িত্ব কমিশনের। নির্বাচন কমিশন চাইলে যে কোনো অফিসারকে সাসপেন্ড করতে পারে, টারমিনেট করতে পারে, ট্রান্সফারও করতে পারে। এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, নির্বাচন আরও আট মাস পরে অনুষ্ঠিত হবে, অথচ এগুলো নিয়েই হইচই।

দেশে আর কোনো কাজ নাই? দেশে জলবায়ু, এমপ্লয়মেন্টসহ আরও অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে। আপনারা এগুলো না বলে শুধু নির্বাচন নিয়ে বকবক করেন। এটা খুবই দুঃখজনক। আপনারা (সাংবাদিক) নিজেরা বকবক করেন, বিদেশিদের দিয়েও বকবক করান। এ সময় তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন যে, দেশের মানুষ বর্তমান সরকারকে আবারও ভোট দেবে।