০৯:১০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

‘আরাভের ব্যবসার সঙ্গে সাকিব জড়িত কি না খতিয়ে দেখছে গোয়েন্দারা’

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৯:৩৮:১০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মার্চ ২০২৩
  • / ৫৫ বার পড়া হয়েছে

পুলিশ হত্যা মামলার আসামি দুবাইয়ের স্বর্ণ ব্যবসায়ী আরাভ খানের ব্যবসার সঙ্গে ক্রিকেট তারকা সাকিব আল হাসান জড়িত কি না খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ গোয়েন্দা বিভাগের অতিরিক্ত কমিশনার হারুন অর রশিদ।

শুক্রবার (১৭ মার্চ) গণমাধ্যমকে তিনি এসব কথা জানান। হারুন বলেন, ‘আরাভ খানের স্বর্ণ ব্যবসার সঙ্গে সাকিব আল হাসান জড়িত কি না এসব বিষয়ে তথ্য নেওয়া হচ্ছে। তদন্তের প্রয়োজনে সাকিব আল হাসানকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ছাড়া বাংলাদেশ থেকে আরও যারা দুবাইয়ে আরাভ খানের স্বর্ণের দোকান উদ্বোধনের সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন তাদের বিষয়েও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’ তিনি আরও বলেন, দুবাইয়ের স্বর্ণ ব্যবসায়ী আরাভ খানের পেছনে বাংলাদেশের কেউ জড়িত কি না তাও খতিয়ে দেখছে গোয়েন্দা।

এরই মধ্যে পুলিশ পরিদর্শক মামুন ইমরান খান হত্যা মামলার চার্জশিট দেওয়া হয়েছে। তারপরও তদন্ত কর্মকর্তারা আসামি কোথায় রয়েছে সেসব বিষয়ে খোঁজখবর রাখেন। তদন্তে এবং খোঁজখবর রাখার ধারাবাহিকতায় আমরা নিশ্চিত হই, সে দুবাই অবস্থান করছে। গোয়েন্দা পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যম পর্যালোচনা করে আমরা জানতে পারি, এই আরাভ খান হচ্ছে রবিউল ইসলাম। এছাড়া বিভিন্ন সময় বিভিন্ন নাম ধারণ করেছে সে।

আরাভ খানই মূলত ঢাকার স্পেশাল ব্রাঞ্চের (এসবি) পুলিশ ইন্সপেক্টর মামুন ইমরান খান হত্যা মামলার পলাতক আসামি। উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৮ জুলাই রাজধানীর বনানীর একটি বাসায় গিয়ে খুন হন বিশেষ শাখার পুলিশ পরিদর্শক মামুন ইমরান খান। পরদিন তার মৃতদেহ বস্তায় ভরে গাজীপুরের উলুখোলার একটি জঙ্গলে নিয়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয়।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

‘আরাভের ব্যবসার সঙ্গে সাকিব জড়িত কি না খতিয়ে দেখছে গোয়েন্দারা’

আপডেট সময় ০৯:৩৮:১০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মার্চ ২০২৩

পুলিশ হত্যা মামলার আসামি দুবাইয়ের স্বর্ণ ব্যবসায়ী আরাভ খানের ব্যবসার সঙ্গে ক্রিকেট তারকা সাকিব আল হাসান জড়িত কি না খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ গোয়েন্দা বিভাগের অতিরিক্ত কমিশনার হারুন অর রশিদ।

শুক্রবার (১৭ মার্চ) গণমাধ্যমকে তিনি এসব কথা জানান। হারুন বলেন, ‘আরাভ খানের স্বর্ণ ব্যবসার সঙ্গে সাকিব আল হাসান জড়িত কি না এসব বিষয়ে তথ্য নেওয়া হচ্ছে। তদন্তের প্রয়োজনে সাকিব আল হাসানকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ছাড়া বাংলাদেশ থেকে আরও যারা দুবাইয়ে আরাভ খানের স্বর্ণের দোকান উদ্বোধনের সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন তাদের বিষয়েও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’ তিনি আরও বলেন, দুবাইয়ের স্বর্ণ ব্যবসায়ী আরাভ খানের পেছনে বাংলাদেশের কেউ জড়িত কি না তাও খতিয়ে দেখছে গোয়েন্দা।

এরই মধ্যে পুলিশ পরিদর্শক মামুন ইমরান খান হত্যা মামলার চার্জশিট দেওয়া হয়েছে। তারপরও তদন্ত কর্মকর্তারা আসামি কোথায় রয়েছে সেসব বিষয়ে খোঁজখবর রাখেন। তদন্তে এবং খোঁজখবর রাখার ধারাবাহিকতায় আমরা নিশ্চিত হই, সে দুবাই অবস্থান করছে। গোয়েন্দা পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যম পর্যালোচনা করে আমরা জানতে পারি, এই আরাভ খান হচ্ছে রবিউল ইসলাম। এছাড়া বিভিন্ন সময় বিভিন্ন নাম ধারণ করেছে সে।

আরাভ খানই মূলত ঢাকার স্পেশাল ব্রাঞ্চের (এসবি) পুলিশ ইন্সপেক্টর মামুন ইমরান খান হত্যা মামলার পলাতক আসামি। উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৮ জুলাই রাজধানীর বনানীর একটি বাসায় গিয়ে খুন হন বিশেষ শাখার পুলিশ পরিদর্শক মামুন ইমরান খান। পরদিন তার মৃতদেহ বস্তায় ভরে গাজীপুরের উলুখোলার একটি জঙ্গলে নিয়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয়।