০৮:৫০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

ইয়েমেনে অপহৃত জাতিসংঘ কর্মকর্তা সুফিউল আনাম উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় ০২:০৩:১৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৯ অগাস্ট ২০২৩
  • / ১৯৭ বার পড়া হয়েছে

ইয়েমেনে অপহরণের শিকার জাতিসংঘের কর্মকর্তা লে. কর্নেল (অব.) সুফিউল আনামকে উদ্ধার করা হয়েছে

সেখানে আল কায়েদার হাতে অপহৃত জাতিসংঘের এই কর্মকর্তাকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রত্যক্ষ নির্দেশনায় উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে এ তথ্য গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

গত বছরের ফেব্রুয়ারি ইয়েমেনের দক্ষিণাঞ্চল থেকে অপহরণের শিকার হন বাংলাদেশের সাবেক সেনা কর্মকর্তা একেএম সুফিউল আনাম। এরপর থেকে কোনো খোঁজ মিলছিল না জাতিসংঘে কর্মরত এই কর্মকর্তার। ধারণা করা হয় অপহরণের পর তাকে হত্যা করে জঙ্গি গোষ্ঠী। প্রায় সাত মাস পর গত ৭ সেপ্টেম্বর ওই কর্মকর্তার একটি ভিডিও প্রকাশ করে জঙ্গি গোষ্ঠীদের অনলাইন তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ।

জানা যায়, আল কায়েদার ইয়েমেন শাখা অপহরণ করে অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট কর্নেল সুফিউলকে। আল কায়েদার দাবি দাওয়া মেনে নিজেকে মুক্ত করতে সুফিউল আকুতি জানান জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক মহলকে। উল্লেখ করেন নিজের দুর্দশা ও শারীরিক দুরবস্থার কথা।

সুফিউল আনামকে মুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রী ও জাতিসংঘের মহাসচিব বরাবর চিঠিও পাঠায় তার পরিবার।

এ বিষয়ে তখন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন জানান, শুরু থেকেই ঘটনাটি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এ বিষয়ে জাতিসংঘের মহাসচিবের সঙ্গে কথাও হয়েছে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর। তবে মুক্তিপণ দিয়ে কোনো কর্মকর্তাকে ছাড়িয়ে আনার বিষয়ে নীতিগত বাধা আছে জাতিসংঘের। তাকে উদ্ধারে ঢাকায় নিযুক্ত ইয়েমেনসহ পাশের দেশের রাষ্ট্রদূতদের নিয়মিত চাপ দিয়ে আসছিল বাংলাদেশ। ১৯৭৭ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত ছিলেন একেএম সুফিউল আনাম। অবসরের পর ইয়েমেনে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

ইয়েমেনে অপহৃত জাতিসংঘ কর্মকর্তা সুফিউল আনাম উদ্ধার

আপডেট সময় ০২:০৩:১৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৯ অগাস্ট ২০২৩

ইয়েমেনে অপহরণের শিকার জাতিসংঘের কর্মকর্তা লে. কর্নেল (অব.) সুফিউল আনামকে উদ্ধার করা হয়েছে

সেখানে আল কায়েদার হাতে অপহৃত জাতিসংঘের এই কর্মকর্তাকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রত্যক্ষ নির্দেশনায় উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে এ তথ্য গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

গত বছরের ফেব্রুয়ারি ইয়েমেনের দক্ষিণাঞ্চল থেকে অপহরণের শিকার হন বাংলাদেশের সাবেক সেনা কর্মকর্তা একেএম সুফিউল আনাম। এরপর থেকে কোনো খোঁজ মিলছিল না জাতিসংঘে কর্মরত এই কর্মকর্তার। ধারণা করা হয় অপহরণের পর তাকে হত্যা করে জঙ্গি গোষ্ঠী। প্রায় সাত মাস পর গত ৭ সেপ্টেম্বর ওই কর্মকর্তার একটি ভিডিও প্রকাশ করে জঙ্গি গোষ্ঠীদের অনলাইন তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ।

জানা যায়, আল কায়েদার ইয়েমেন শাখা অপহরণ করে অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট কর্নেল সুফিউলকে। আল কায়েদার দাবি দাওয়া মেনে নিজেকে মুক্ত করতে সুফিউল আকুতি জানান জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক মহলকে। উল্লেখ করেন নিজের দুর্দশা ও শারীরিক দুরবস্থার কথা।

সুফিউল আনামকে মুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রী ও জাতিসংঘের মহাসচিব বরাবর চিঠিও পাঠায় তার পরিবার।

এ বিষয়ে তখন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন জানান, শুরু থেকেই ঘটনাটি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এ বিষয়ে জাতিসংঘের মহাসচিবের সঙ্গে কথাও হয়েছে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর। তবে মুক্তিপণ দিয়ে কোনো কর্মকর্তাকে ছাড়িয়ে আনার বিষয়ে নীতিগত বাধা আছে জাতিসংঘের। তাকে উদ্ধারে ঢাকায় নিযুক্ত ইয়েমেনসহ পাশের দেশের রাষ্ট্রদূতদের নিয়মিত চাপ দিয়ে আসছিল বাংলাদেশ। ১৯৭৭ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত ছিলেন একেএম সুফিউল আনাম। অবসরের পর ইয়েমেনে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।