০৫:১২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

ঈদে পদ্মা সেতুতে ৭৭ হাজার মোটরসাইকেল পারাপার

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ১১:৩৩:৫৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৫১ বার পড়া হয়েছে

ঈদুল ফিতরে পদ্মা সেতুতে ৭৭ হাজার মোটরসাইকেল পারাপার হয়েছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বুধবার (২৬ এপ্রিল) রাজধানীর সেতু ভবনে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ তথ্য জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, গত ২০ এপ্রিল পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ৭৭ হাজার মোটরসাইকেল পারাপার হয়েছে। এতে টোল আদায় হয়েছে ৭৭ লাখ টাকা। এ ছাড়া পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত টোল আদায় হয়েছে ৬৬০ কোটি টাকা। এরই মধ্যে প্রথম কিস্তির ৩১৬ কোটি টাকা সরকারের কাছে ফেরত দেওয়া হয়েছে এবং আগামী জুন মাসে দ্বিতীয় কিস্তির সমপরিমাণ অর্থ জমা দেওয়া হবে। তিনি বলেন, এবারের ঈদযাত্রা স্বস্তিদায়ক হয়েছে। কর্মস্থলে ফেরার যাত্রাও এখন পর্যন্ত স্বস্তিদায়ক। যানজটের দুর্ভাবনা অতীতে যেটা ছিল এ পর্যন্ত সেটি হয়নি।

বিশেষ করে বিআরটি প্রকল্প এলাকায় যানজটের যে আশঙ্কা করা হয়েছিল সেটা হয়নি। অনেকটা যানজটমুক্ত ঈদ উদযাপন করতে পেরেছি। সামনের দিনে এ ধারাকে আরও ইতিবাচক করতে হবে। ভুলত্রুটি থেকে শিক্ষা নিতে হবে।এর আগে, গত বছরের ২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পরদিন সেতুতে যান চলাচল শুরু হয়। ওই দিন রাতে সেতুতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুই তরুণ নিহত হন। এরপর সরকারের উচ্চপর্যায়ের সিদ্ধান্তে মোটরসাইকেল চলাচল বন্ধ করে দেয় সেতু কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফেরি ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এর ফলে বিপাকে পড়েন মোটরসাইকেলে ঢাকায় যাতায়াত করা দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ। বেশ কয়েকদিন ধরেই তারা পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলতে দেওয়ার দাবি জানিয়ে আসছেন। এ নিয়ে রাজধানীর একাধিক স্থানে মানববন্ধনসহ উচ্চ আদালতে রিটও দায়ের করা হয়েছিল। অবশেষে ঈদুল ফিতরের আগে গত ২০ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

ঈদে পদ্মা সেতুতে ৭৭ হাজার মোটরসাইকেল পারাপার

আপডেট সময় ১১:৩৩:৫৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৩

ঈদুল ফিতরে পদ্মা সেতুতে ৭৭ হাজার মোটরসাইকেল পারাপার হয়েছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বুধবার (২৬ এপ্রিল) রাজধানীর সেতু ভবনে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ তথ্য জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, গত ২০ এপ্রিল পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ৭৭ হাজার মোটরসাইকেল পারাপার হয়েছে। এতে টোল আদায় হয়েছে ৭৭ লাখ টাকা। এ ছাড়া পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত টোল আদায় হয়েছে ৬৬০ কোটি টাকা। এরই মধ্যে প্রথম কিস্তির ৩১৬ কোটি টাকা সরকারের কাছে ফেরত দেওয়া হয়েছে এবং আগামী জুন মাসে দ্বিতীয় কিস্তির সমপরিমাণ অর্থ জমা দেওয়া হবে। তিনি বলেন, এবারের ঈদযাত্রা স্বস্তিদায়ক হয়েছে। কর্মস্থলে ফেরার যাত্রাও এখন পর্যন্ত স্বস্তিদায়ক। যানজটের দুর্ভাবনা অতীতে যেটা ছিল এ পর্যন্ত সেটি হয়নি।

বিশেষ করে বিআরটি প্রকল্প এলাকায় যানজটের যে আশঙ্কা করা হয়েছিল সেটা হয়নি। অনেকটা যানজটমুক্ত ঈদ উদযাপন করতে পেরেছি। সামনের দিনে এ ধারাকে আরও ইতিবাচক করতে হবে। ভুলত্রুটি থেকে শিক্ষা নিতে হবে।এর আগে, গত বছরের ২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পরদিন সেতুতে যান চলাচল শুরু হয়। ওই দিন রাতে সেতুতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুই তরুণ নিহত হন। এরপর সরকারের উচ্চপর্যায়ের সিদ্ধান্তে মোটরসাইকেল চলাচল বন্ধ করে দেয় সেতু কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফেরি ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এর ফলে বিপাকে পড়েন মোটরসাইকেলে ঢাকায় যাতায়াত করা দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ। বেশ কয়েকদিন ধরেই তারা পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলতে দেওয়ার দাবি জানিয়ে আসছেন। এ নিয়ে রাজধানীর একাধিক স্থানে মানববন্ধনসহ উচ্চ আদালতে রিটও দায়ের করা হয়েছিল। অবশেষে ঈদুল ফিতরের আগে গত ২০ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়।