০৯:০৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

ওয়াগনারপ্রধানের দায়িত্ব পাওয়া কে এই আন্দ্রেই ত্রোশেভ?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় ০১:৫০:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ অক্টোবর ২০২৩
  • / ২৩৬ বার পড়া হয়েছে

বিমান দুর্ঘটনায় ইয়েভজেনি প্রিগোজিনের মৃত্যুর পর রাশিয়ার ভাড়াটে সেনা সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ওয়াগনারের প্রধান হিসেবে প্রিগোজিনের ঘনিষ্ঠ সহযোগী আন্দ্রেই ত্রোশেভকে নিযুক্ত করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

শুক্রবার পুতিনকে ওয়াগনার গ্রুপের অন্যতম সিনিয়র সাবেক কমান্ডারের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। সেখানে ইউক্রেন যুদ্ধে ওয়াগনারদের কীভাবে ব্যবহার করা যায় তা নিয়ে উভয়পক্ষ আলোচনা করেন। খবর রয়টার্সের।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়ার হয়ে ইউক্রেনে যুদ্ধ করছিলেন ওয়াগনারের সদস্যরা। তবে রুশ সামরিক নেতৃত্বের প্রতি অসন্তুষ্ট ছিলেন প্রিগোজিন। যার জেরে তিনি গত জুন মাসের শেষ দিকে বিদ্রোহ করেছিলেন। ইউক্রেন সীমান্ত থেকে মস্কো অভিমুখে ওয়াগনার সেনাসহ যাত্রা করেছিলেন প্রিগোজিন। পরে অবশ্য বিদ্রোহ থেকে সরে আসেন প্রিগোজিন। এমনকি প্রিগোজিনসহ ওয়াগনারের বেশ কয়েকজন কমান্ডারের সঙ্গে ক্রেমলিনে বৈঠক করেছিলেন পুতিন। এই বৈঠকে তিনি ওয়াগনারের নতুন প্রধান হিসেবে ত্রোশেভের নাম প্রস্তাব করেছিলেন। তবে এই প্রস্তাবের সঙ্গে একমত ছিলেন না প্রিগোজিন।

ক্রেমলিনের বিবৃতিতে বলা হয়, ত্রোশেভকে উদ্দেশ করে পুতিন বলেছেন, ‘সবশেষ বৈঠকে আমরা আপনাকে (ত্রোশেভ) স্বেচ্ছাসেবক ইউনিটগুলো গঠনের তদারকির বিষয়ে কথা বলেছিলাম, যেগুলো বিশেষ সামরিক অভিযান চলা অঞ্চলে বিভিন্ন কাজ করতে পারে।’

বৈঠকে ইউক্রেনে রুশ স্বেচ্ছাসেবক ইউনিট দেখভালের দায়িত্ব ত্রোশেভকে দেন পুতিন। বৈঠকে রাশিয়ার উপপ্রতিরক্ষামন্ত্রীও উপস্থিত ছিলেন। সিরিয়ায় রাশিয়ার হয়ে যুদ্ধ করা ভাগনারের অন্যতম নেতা ছিলেন ত্রোশেভ। ইউরোপীয় ইউনিয়ন ২০২১ সালের ডিসেম্বরে তার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়।

উল্লেখ্য, ত্রোশেভ রুশ সামরিক বাহিনীর একজন অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল। তিনি সেন্ট পিটার্সবার্গের বাসিন্দা। আফগানিস্তান, চেচনিয়া ও সিরিয়ায় রুশ সামরিক অভিযানে অংশ নিয়েছিলেন তিনি।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

ওয়াগনারপ্রধানের দায়িত্ব পাওয়া কে এই আন্দ্রেই ত্রোশেভ?

আপডেট সময় ০১:৫০:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ অক্টোবর ২০২৩

বিমান দুর্ঘটনায় ইয়েভজেনি প্রিগোজিনের মৃত্যুর পর রাশিয়ার ভাড়াটে সেনা সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ওয়াগনারের প্রধান হিসেবে প্রিগোজিনের ঘনিষ্ঠ সহযোগী আন্দ্রেই ত্রোশেভকে নিযুক্ত করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

শুক্রবার পুতিনকে ওয়াগনার গ্রুপের অন্যতম সিনিয়র সাবেক কমান্ডারের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। সেখানে ইউক্রেন যুদ্ধে ওয়াগনারদের কীভাবে ব্যবহার করা যায় তা নিয়ে উভয়পক্ষ আলোচনা করেন। খবর রয়টার্সের।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়ার হয়ে ইউক্রেনে যুদ্ধ করছিলেন ওয়াগনারের সদস্যরা। তবে রুশ সামরিক নেতৃত্বের প্রতি অসন্তুষ্ট ছিলেন প্রিগোজিন। যার জেরে তিনি গত জুন মাসের শেষ দিকে বিদ্রোহ করেছিলেন। ইউক্রেন সীমান্ত থেকে মস্কো অভিমুখে ওয়াগনার সেনাসহ যাত্রা করেছিলেন প্রিগোজিন। পরে অবশ্য বিদ্রোহ থেকে সরে আসেন প্রিগোজিন। এমনকি প্রিগোজিনসহ ওয়াগনারের বেশ কয়েকজন কমান্ডারের সঙ্গে ক্রেমলিনে বৈঠক করেছিলেন পুতিন। এই বৈঠকে তিনি ওয়াগনারের নতুন প্রধান হিসেবে ত্রোশেভের নাম প্রস্তাব করেছিলেন। তবে এই প্রস্তাবের সঙ্গে একমত ছিলেন না প্রিগোজিন।

ক্রেমলিনের বিবৃতিতে বলা হয়, ত্রোশেভকে উদ্দেশ করে পুতিন বলেছেন, ‘সবশেষ বৈঠকে আমরা আপনাকে (ত্রোশেভ) স্বেচ্ছাসেবক ইউনিটগুলো গঠনের তদারকির বিষয়ে কথা বলেছিলাম, যেগুলো বিশেষ সামরিক অভিযান চলা অঞ্চলে বিভিন্ন কাজ করতে পারে।’

বৈঠকে ইউক্রেনে রুশ স্বেচ্ছাসেবক ইউনিট দেখভালের দায়িত্ব ত্রোশেভকে দেন পুতিন। বৈঠকে রাশিয়ার উপপ্রতিরক্ষামন্ত্রীও উপস্থিত ছিলেন। সিরিয়ায় রাশিয়ার হয়ে যুদ্ধ করা ভাগনারের অন্যতম নেতা ছিলেন ত্রোশেভ। ইউরোপীয় ইউনিয়ন ২০২১ সালের ডিসেম্বরে তার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়।

উল্লেখ্য, ত্রোশেভ রুশ সামরিক বাহিনীর একজন অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল। তিনি সেন্ট পিটার্সবার্গের বাসিন্দা। আফগানিস্তান, চেচনিয়া ও সিরিয়ায় রুশ সামরিক অভিযানে অংশ নিয়েছিলেন তিনি।