০৪:২০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

কমলাপুরে বাড়ছে যাত্রীর চাপ, চলছে কড়া চেকিং

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ১০:১৫:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৪২ বার পড়া হয়েছে

প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে রাজধানী ছাড়তে শুরু করেছে মানুষ। বাস ও লঞ্চের পাশাপাশি কমলাপুর রেলস্টেশনেও যাত্রীদের চাপ বেড়েছে। একই সঙ্গে স্টেশনে চলছে টিকিটবিহীন যাত্রী ঠেকাতে কড়া চেকিং।

বুধবার (১৯ এপ্রিল) সকালে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, ভোর থেকেই স্টেশনে যাত্রীদের চাপ বাড়তে থাকে। যানজট ও ট্রেন ধরতে না পারার আশঙ্কায় অনেকেই সাহরি খেয়ে স্টেশনের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন। কিশোরগঞ্জগামী যাত্রী আলম জানান, যানজটের কারণে ট্রেন যেন মিস না হয়, তাই সাহরি খেয়েই ছেলে-মেয়ে নিয়ে স্টেশনে চলে এসেছি। ট্রেন ছাড়তে এখনও ঘণ্টাখানেক সময় লাগবে।

রাজশাহীর যাত্রী মজিদ বলছেন, ছুটি শুরু হওয়ায় আজকে মানুষের ভিড় বেশি। তারমধ্যে ট্রেনে কোনো সিট নেই। ফলে দীর্ঘ পথ ট্রেনে দাঁড়িয়ে যেতে হবে। তবে সব কষ্ট সার্থক হবে যদি ঠিকমতো বাড়ি পৌঁছাতে পারি। এদিকে টিকিট ছাড়া কোনো যাত্রীকে স্টেশনের ভেতরে প্রবেশ করতে দিচ্ছেন না নিরাপত্তাপ্রহরীরা। যাদের টিকিট আছে তারাই স্টেশনে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন।  মূলত, গত ৭ এপ্রিল থেকে ‘টিকিট যার, ভ্রমণ তার’ এই কার্যক্রম শুরু করে বাংলাদেশ রেলওয়ে। ফলে যাত্রীকে নিজের এনআইডির মাধ্যমে টিকিট কিনতে হচ্ছে। তাই, টিকিটের সঙ্গে এনআইডি মিলিয়ে তারপরেই স্টেশনে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে যাত্রীদের।

নোমান গাজী নামে এক যাত্রী বলছেন, এবার স্টেশন এলাকায় শৃঙ্খলা রয়েছে। যাত্রী ছাড়া কেউ স্টেশনে প্রবেশ করতে পারছেন না। আবার ট্রেনও যথা সময়ে ছেড়ে যাচ্ছে। কমলাপুর রেলস্টেশনের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন ম্যানেজার মো. আমিনুল হক বলেন, গত কয়েক দিনের তুলনায় আজকে যাত্রীর চাপ বেড়েছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীর চাপ আরও বাড়বে। সকাল থেকে সবগুলো ট্রেন সময় মতো ছেড়ে গেছে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

কমলাপুরে বাড়ছে যাত্রীর চাপ, চলছে কড়া চেকিং

আপডেট সময় ১০:১৫:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৩

প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে রাজধানী ছাড়তে শুরু করেছে মানুষ। বাস ও লঞ্চের পাশাপাশি কমলাপুর রেলস্টেশনেও যাত্রীদের চাপ বেড়েছে। একই সঙ্গে স্টেশনে চলছে টিকিটবিহীন যাত্রী ঠেকাতে কড়া চেকিং।

বুধবার (১৯ এপ্রিল) সকালে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, ভোর থেকেই স্টেশনে যাত্রীদের চাপ বাড়তে থাকে। যানজট ও ট্রেন ধরতে না পারার আশঙ্কায় অনেকেই সাহরি খেয়ে স্টেশনের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন। কিশোরগঞ্জগামী যাত্রী আলম জানান, যানজটের কারণে ট্রেন যেন মিস না হয়, তাই সাহরি খেয়েই ছেলে-মেয়ে নিয়ে স্টেশনে চলে এসেছি। ট্রেন ছাড়তে এখনও ঘণ্টাখানেক সময় লাগবে।

রাজশাহীর যাত্রী মজিদ বলছেন, ছুটি শুরু হওয়ায় আজকে মানুষের ভিড় বেশি। তারমধ্যে ট্রেনে কোনো সিট নেই। ফলে দীর্ঘ পথ ট্রেনে দাঁড়িয়ে যেতে হবে। তবে সব কষ্ট সার্থক হবে যদি ঠিকমতো বাড়ি পৌঁছাতে পারি। এদিকে টিকিট ছাড়া কোনো যাত্রীকে স্টেশনের ভেতরে প্রবেশ করতে দিচ্ছেন না নিরাপত্তাপ্রহরীরা। যাদের টিকিট আছে তারাই স্টেশনে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন।  মূলত, গত ৭ এপ্রিল থেকে ‘টিকিট যার, ভ্রমণ তার’ এই কার্যক্রম শুরু করে বাংলাদেশ রেলওয়ে। ফলে যাত্রীকে নিজের এনআইডির মাধ্যমে টিকিট কিনতে হচ্ছে। তাই, টিকিটের সঙ্গে এনআইডি মিলিয়ে তারপরেই স্টেশনে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে যাত্রীদের।

নোমান গাজী নামে এক যাত্রী বলছেন, এবার স্টেশন এলাকায় শৃঙ্খলা রয়েছে। যাত্রী ছাড়া কেউ স্টেশনে প্রবেশ করতে পারছেন না। আবার ট্রেনও যথা সময়ে ছেড়ে যাচ্ছে। কমলাপুর রেলস্টেশনের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন ম্যানেজার মো. আমিনুল হক বলেন, গত কয়েক দিনের তুলনায় আজকে যাত্রীর চাপ বেড়েছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীর চাপ আরও বাড়বে। সকাল থেকে সবগুলো ট্রেন সময় মতো ছেড়ে গেছে।