০৭:০১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪

‘কাপ্তানবাজারের আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে হানিফ ফ্লাইওভার’

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৯:১৪:৫৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মার্চ ২০২৩
  • / ৫৪ বার পড়া হয়েছে

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক (অপারেশন ও মেইনটেন্যান্স) লে. কর্নেল মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন, রাজধানীর কাপ্তানবাজারে লাগা আগুনে হানিফ ফ্লাইওভারের কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে পরীক্ষা করে দেখার পর জানা যাবে কতটা ক্ষতি হয়েছে।

সোমবার (২৭ মার্চ) ভোরে ঘটনাস্থলে এক ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, হানিফ ফ্লাইওভারের নিচের অংশে দুটি শেডে সুইপারদের ৪২টি ঘর ছিল। এর মধ্যে ২০টি ঘর আগুনে পুড়ে গেছে। বর্তমানে যারা এখানে বসবাস করছেন তাদের সরিয়ে নেওয়া হবে। তা না হলে ভবিষ্যতেও এমন আগুন লাগতে পারে।

তিনি বলেন, প্রথমে টিনশেড মার্কেটে আগুন লাগে। সেখানে অনেক পুরনো দাহ্য পদার্থ ছিল। এ ছাড়া সেখানে গ্যাস সিলিন্ডার দিয়ে রান্না করা হত। আমরা প্রথমেই চেষ্টা করেছি আগুন যেন ছড়িয়ে না পড়ে। এখনও আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে ধারণা করছি, কলোনির কোনো রান্না ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

আমরা এখন পর্যন্ত ঘটনার সূত্রপাত ও হতাহতের খবর পাইনি। এ ছাড়া ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও জানতে পারিনি। এর আগে, রাত ৩টার পরে কাপ্তানবাজারে জয়কালী মন্দিরের কাছে টিনশেড ঘরে আগুন লাগে। পরে ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিটের মিলিত চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

‘কাপ্তানবাজারের আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে হানিফ ফ্লাইওভার’

আপডেট সময় ০৯:১৪:৫৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মার্চ ২০২৩

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক (অপারেশন ও মেইনটেন্যান্স) লে. কর্নেল মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন, রাজধানীর কাপ্তানবাজারে লাগা আগুনে হানিফ ফ্লাইওভারের কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে পরীক্ষা করে দেখার পর জানা যাবে কতটা ক্ষতি হয়েছে।

সোমবার (২৭ মার্চ) ভোরে ঘটনাস্থলে এক ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, হানিফ ফ্লাইওভারের নিচের অংশে দুটি শেডে সুইপারদের ৪২টি ঘর ছিল। এর মধ্যে ২০টি ঘর আগুনে পুড়ে গেছে। বর্তমানে যারা এখানে বসবাস করছেন তাদের সরিয়ে নেওয়া হবে। তা না হলে ভবিষ্যতেও এমন আগুন লাগতে পারে।

তিনি বলেন, প্রথমে টিনশেড মার্কেটে আগুন লাগে। সেখানে অনেক পুরনো দাহ্য পদার্থ ছিল। এ ছাড়া সেখানে গ্যাস সিলিন্ডার দিয়ে রান্না করা হত। আমরা প্রথমেই চেষ্টা করেছি আগুন যেন ছড়িয়ে না পড়ে। এখনও আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে ধারণা করছি, কলোনির কোনো রান্না ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

আমরা এখন পর্যন্ত ঘটনার সূত্রপাত ও হতাহতের খবর পাইনি। এ ছাড়া ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও জানতে পারিনি। এর আগে, রাত ৩টার পরে কাপ্তানবাজারে জয়কালী মন্দিরের কাছে টিনশেড ঘরে আগুন লাগে। পরে ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিটের মিলিত চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।