০৬:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

‘ঘূর্ণিঝড়ে লাখো মানুষ মারা গেলেও খালেদা জিয়া ঘুমিয়ে ছিলেন’

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৯:০৮:০৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মার্চ ২০২৩
  • / ৫৫ বার পড়া হয়েছে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ১৯৯১ সালের ঘূর্ণিঝড়ে দেশে লাখ লাখ মানুষ মারা গিয়েছিল। কিন্তু তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে কিছুই জানতেন না। তিনি তখন ঘুমিয়ে ছিলেন।

বুধবার (২২ মার্চ) সকালে দেশের বিভিন্ন উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে ঘর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯১ সালে ঘূর্ণিঝড় আসার সময় বিএনপি সরকার কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এর ফলে ঘূর্ণিঝড়ে চট্টগ্রাম বিশেষ করে দক্ষিণের উপকূলীয় অঞ্চল পুরোপুরি তছনছ হয়ে যায়।

তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে লাখ লাখ মানুষ মারা গিয়েছিল, আমরা নিজ চোখে দেখেছি। আমরা ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে দেখি মানুষ এবং পশু-পাখির লাশ একসঙ্গে ভাসছে। আমরা সেখানে বিভিন্ন অঞ্চলে ঘুরে ঘুরে মানুষের পাশে দাঁড়াই, তাদের সাহায্য করি। তখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন খালেদা জিয়া। আমরা যখন সংসদে বিষয়টা তুললাম, তখন তিনি কিছুই জানেন না, তিনি ঘুমিয়ে ছিলেন। আর আমাদের তিন বাহিনীর প্রধান গলফ খেলছিলেন। ঘূর্ণিঝড়ে যে এতো বড় ক্ষতি হয়ে গেছে সেটি তারাও জানতেন না।

শেখ হাসিনা বলেন, চট্টগ্রামে বিমান ও নৌবাহিনীর সবকিছু ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। রাস্তা-ঘাট বন্ধ ছিল, তারপরও আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াতে ছুটে গিয়েছিলাম। সে সময় অনেক মানুষ উদ্বাস্তু হয়ে কক্সবাজারে বস্তিতে থাকতো। আমরা তাদের পুনর্বাসন করেছি। এদিন মাদারীপুর, গাজীপুর, নরসিংদী, রাজশাহী, জয়পুরহাট, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও চুয়াডাঙ্গা জেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি ১৫৯টি উপজেলাকেও ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করেন তিনি।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

‘ঘূর্ণিঝড়ে লাখো মানুষ মারা গেলেও খালেদা জিয়া ঘুমিয়ে ছিলেন’

আপডেট সময় ০৯:০৮:০৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মার্চ ২০২৩

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ১৯৯১ সালের ঘূর্ণিঝড়ে দেশে লাখ লাখ মানুষ মারা গিয়েছিল। কিন্তু তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে কিছুই জানতেন না। তিনি তখন ঘুমিয়ে ছিলেন।

বুধবার (২২ মার্চ) সকালে দেশের বিভিন্ন উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে ঘর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯১ সালে ঘূর্ণিঝড় আসার সময় বিএনপি সরকার কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এর ফলে ঘূর্ণিঝড়ে চট্টগ্রাম বিশেষ করে দক্ষিণের উপকূলীয় অঞ্চল পুরোপুরি তছনছ হয়ে যায়।

তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে লাখ লাখ মানুষ মারা গিয়েছিল, আমরা নিজ চোখে দেখেছি। আমরা ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে দেখি মানুষ এবং পশু-পাখির লাশ একসঙ্গে ভাসছে। আমরা সেখানে বিভিন্ন অঞ্চলে ঘুরে ঘুরে মানুষের পাশে দাঁড়াই, তাদের সাহায্য করি। তখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন খালেদা জিয়া। আমরা যখন সংসদে বিষয়টা তুললাম, তখন তিনি কিছুই জানেন না, তিনি ঘুমিয়ে ছিলেন। আর আমাদের তিন বাহিনীর প্রধান গলফ খেলছিলেন। ঘূর্ণিঝড়ে যে এতো বড় ক্ষতি হয়ে গেছে সেটি তারাও জানতেন না।

শেখ হাসিনা বলেন, চট্টগ্রামে বিমান ও নৌবাহিনীর সবকিছু ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। রাস্তা-ঘাট বন্ধ ছিল, তারপরও আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াতে ছুটে গিয়েছিলাম। সে সময় অনেক মানুষ উদ্বাস্তু হয়ে কক্সবাজারে বস্তিতে থাকতো। আমরা তাদের পুনর্বাসন করেছি। এদিন মাদারীপুর, গাজীপুর, নরসিংদী, রাজশাহী, জয়পুরহাট, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও চুয়াডাঙ্গা জেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি ১৫৯টি উপজেলাকেও ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করেন তিনি।