০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪

জঙ্গি মায়মুনের বাসায় যাতায়াত ছিল মেজর জিয়ার

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৮:৫১:০৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ মে ২০২৩
  • / ৬১ বার পড়া হয়েছে

র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেছেন, সিলেট থেকে গ্রেপ্তার হওয়া নতুন জঙ্গি সংগঠন জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারকিয়ার দাওয়াতি শাখার প্রধান আবদুল্লাহ মায়মুনের বাসায় যাতায়াত ছিল চাকরিচ্যুত মেজর জিয়ার।

বৃহস্পতিবার (১১ মে) দুপুরে কারওয়ান বাজারে র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। খন্দকার আল মঈন বলেন, গ্রেপ্তার আবদুল্লাহ মায়মুন ২০১৩ সালে স্থানীয় এক ব্যক্তির মাধ্যমে আনসার আল ইসলাম জঙ্গি সংগঠনে যোগ দেন। তিনি সংগঠনের সিলেট বিভাগীয় প্রধান ছিলেন।

চাকরিচ্যুত মেজর জিয়ার সঙ্গে তার নিয়মিত যোগাযোগ ছিল। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে আব্দুল্লাহ মায়মুন নতুন জঙ্গি সংগঠনকে ১৫ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন। তিনি বলেন, পূর্ববর্তী জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছিল তারা। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধারাবাহিক অভিযানের ফলে বর্তমানে ছন্নছাড়া অবস্থায় রয়েছে। এখন তাদের কোনো ধরনের নাশকতার পরিকল্পনা নেই।

খন্দকার আল মঈন আরও বলেন, আব্দুল্লাহ মায়মুনের বাড়ি সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলায়। জঙ্গি মায়মুন আনসার আল ইসলামের সঙ্গে জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বীয়ার সেতুবন্ধনে কাজ করছিলেন। তিনি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে অভিনব কৌশলে অর্থ ও অস্ত্রের যোগান দিতেন।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

জঙ্গি মায়মুনের বাসায় যাতায়াত ছিল মেজর জিয়ার

আপডেট সময় ০৮:৫১:০৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ মে ২০২৩

র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেছেন, সিলেট থেকে গ্রেপ্তার হওয়া নতুন জঙ্গি সংগঠন জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারকিয়ার দাওয়াতি শাখার প্রধান আবদুল্লাহ মায়মুনের বাসায় যাতায়াত ছিল চাকরিচ্যুত মেজর জিয়ার।

বৃহস্পতিবার (১১ মে) দুপুরে কারওয়ান বাজারে র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। খন্দকার আল মঈন বলেন, গ্রেপ্তার আবদুল্লাহ মায়মুন ২০১৩ সালে স্থানীয় এক ব্যক্তির মাধ্যমে আনসার আল ইসলাম জঙ্গি সংগঠনে যোগ দেন। তিনি সংগঠনের সিলেট বিভাগীয় প্রধান ছিলেন।

চাকরিচ্যুত মেজর জিয়ার সঙ্গে তার নিয়মিত যোগাযোগ ছিল। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে আব্দুল্লাহ মায়মুন নতুন জঙ্গি সংগঠনকে ১৫ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন। তিনি বলেন, পূর্ববর্তী জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছিল তারা। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধারাবাহিক অভিযানের ফলে বর্তমানে ছন্নছাড়া অবস্থায় রয়েছে। এখন তাদের কোনো ধরনের নাশকতার পরিকল্পনা নেই।

খন্দকার আল মঈন আরও বলেন, আব্দুল্লাহ মায়মুনের বাড়ি সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলায়। জঙ্গি মায়মুন আনসার আল ইসলামের সঙ্গে জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বীয়ার সেতুবন্ধনে কাজ করছিলেন। তিনি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে অভিনব কৌশলে অর্থ ও অস্ত্রের যোগান দিতেন।