০৯:৪৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

জামিন পেলেন ইমরান খান

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ১০:২৭:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মে ২০২৩
  • / ৫২ বার পড়া হয়েছে

আল-কাদির ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দুই সপ্তাহের জামিন পেয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। শুক্রবার (১২ মে) পাকিস্তান সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি মিয়াগুল হাসান আওরঙ্গজেব এবং বিচারপতি সামান রাফাত ইমতিয়িাজের একটি বেঞ্চ এই জামিন মঞ্জুর করেন।

এর আগে, দুপুর ১টার কিছু আগে শুনানি শুরু হয়। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই জুমার নামাজের বিরতি শুরু হয়। বিরতি শেষে এজলাস বসে দুপুর আড়াইটার পর। এ সময় ইমরান খান তার আইনজীবী টিমের সঙ্গে বসে থাকেন। শুনানি শুরুর পর ইসলামাবাদ হাইকোর্টে ইমরানের প্রধান আইনজীবী খাজা হারিস আলোচিত আল-কাদির দুর্নীতি মামলায় ইমরানের জামিনের আর্জি জানান। তিনি বলেন, ন্যাবের যে পরোয়ানার ভিত্তিতে ইমরানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তা অবৈধ।

কারণ, আইন অনুযায়ী- কারও বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ থাকলে ন্যাব প্রথমে তা অনুসন্ধান করে এবং অনুসন্ধানে অভিযোগের পক্ষে সাক্ষ্যপ্রমাণ পাওয়া গেলে অভিযুক্তের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করতে পরে। আল-কাদির ট্রাস্ট মামলায় ন্যাব এখনও অনুসন্ধান পর্যায়ে আছে। হারিসের যুক্তি খণ্ডন করতে ন্যাবের আইনজীবী পাল্টা যুক্তি দিয়েছেন কি না—জানা যায়নি। তবে, হারিসের আর্জি ও যুক্তিকে আমলে নিয়েই উচ্চ আদালত ইমরান খানের জামিন মঞ্জুর করেন।

এর আগে, গত মঙ্গলবার (৯ মে) ইসলামাবাদ হাইকোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে ইমরান খানকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর পাকিস্তানের বিভিন্ন শহরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে তার দলের সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত ৮ জন নিহত এবং ২৯০ জন আহত হয়েছেন।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

জামিন পেলেন ইমরান খান

আপডেট সময় ১০:২৭:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মে ২০২৩

আল-কাদির ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দুই সপ্তাহের জামিন পেয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। শুক্রবার (১২ মে) পাকিস্তান সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি মিয়াগুল হাসান আওরঙ্গজেব এবং বিচারপতি সামান রাফাত ইমতিয়িাজের একটি বেঞ্চ এই জামিন মঞ্জুর করেন।

এর আগে, দুপুর ১টার কিছু আগে শুনানি শুরু হয়। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই জুমার নামাজের বিরতি শুরু হয়। বিরতি শেষে এজলাস বসে দুপুর আড়াইটার পর। এ সময় ইমরান খান তার আইনজীবী টিমের সঙ্গে বসে থাকেন। শুনানি শুরুর পর ইসলামাবাদ হাইকোর্টে ইমরানের প্রধান আইনজীবী খাজা হারিস আলোচিত আল-কাদির দুর্নীতি মামলায় ইমরানের জামিনের আর্জি জানান। তিনি বলেন, ন্যাবের যে পরোয়ানার ভিত্তিতে ইমরানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তা অবৈধ।

কারণ, আইন অনুযায়ী- কারও বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ থাকলে ন্যাব প্রথমে তা অনুসন্ধান করে এবং অনুসন্ধানে অভিযোগের পক্ষে সাক্ষ্যপ্রমাণ পাওয়া গেলে অভিযুক্তের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করতে পরে। আল-কাদির ট্রাস্ট মামলায় ন্যাব এখনও অনুসন্ধান পর্যায়ে আছে। হারিসের যুক্তি খণ্ডন করতে ন্যাবের আইনজীবী পাল্টা যুক্তি দিয়েছেন কি না—জানা যায়নি। তবে, হারিসের আর্জি ও যুক্তিকে আমলে নিয়েই উচ্চ আদালত ইমরান খানের জামিন মঞ্জুর করেন।

এর আগে, গত মঙ্গলবার (৯ মে) ইসলামাবাদ হাইকোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে ইমরান খানকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর পাকিস্তানের বিভিন্ন শহরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে তার দলের সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত ৮ জন নিহত এবং ২৯০ জন আহত হয়েছেন।