০৩:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪

জাহাঙ্গীরের মাকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ১২:৪৩:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মে ২০২৩
  • / ৫৩ বার পড়া হয়েছে

আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী জায়েদা খাতুনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে। জায়েদা খাতুন এই সিটির সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের মা।

বৃহস্পতিবার (১১ মে) রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. ফরিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, মেয়র পদে স্বতন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে জায়েদা খাতুন টেবিল ঘড়ি প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পর নিজের ছবির সঙ্গে সাবেক মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমের নাম ও ছবি পোস্টার, লিফলেট ও হ্যান্ডবিলে ব্যবহার করছেন, যা সিটি করপোরেশন বিধিমালা লঙ্ঘন।

এ ছাড়া আচরণবিধি লংঘনের দায়ে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে সর্বোচ্চ ৬ মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হওয়ার বিধান রয়েছে। তাই, নির্বাচনী আচরণবিধি লংঘন করায় কেনো তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে না, সে বিষয়ে জানতে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাকে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। এদিকে, গত ৩০ এপ্রিল ঋণখেলাপির কারণে মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম।

এরপর গত ৮ মে প্রার্থিতা বাতিলের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে জাহাঙ্গীর আলমের দায়ের করা রিট খারিজ করে দেন হাইকোর্ট। হাইকোর্ট বলেন, মেয়রপ্রার্থী জাহাঙ্গীর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার দিন ঋণখেলাপি ছিলেন, তাই তার মনোনয়নপত্র বৈধ বলার সুযোগ নেই।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

জাহাঙ্গীরের মাকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ

আপডেট সময় ১২:৪৩:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মে ২০২৩

আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী জায়েদা খাতুনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে। জায়েদা খাতুন এই সিটির সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের মা।

বৃহস্পতিবার (১১ মে) রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. ফরিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, মেয়র পদে স্বতন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে জায়েদা খাতুন টেবিল ঘড়ি প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পর নিজের ছবির সঙ্গে সাবেক মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমের নাম ও ছবি পোস্টার, লিফলেট ও হ্যান্ডবিলে ব্যবহার করছেন, যা সিটি করপোরেশন বিধিমালা লঙ্ঘন।

এ ছাড়া আচরণবিধি লংঘনের দায়ে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে সর্বোচ্চ ৬ মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হওয়ার বিধান রয়েছে। তাই, নির্বাচনী আচরণবিধি লংঘন করায় কেনো তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে না, সে বিষয়ে জানতে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাকে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। এদিকে, গত ৩০ এপ্রিল ঋণখেলাপির কারণে মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম।

এরপর গত ৮ মে প্রার্থিতা বাতিলের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে জাহাঙ্গীর আলমের দায়ের করা রিট খারিজ করে দেন হাইকোর্ট। হাইকোর্ট বলেন, মেয়রপ্রার্থী জাহাঙ্গীর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার দিন ঋণখেলাপি ছিলেন, তাই তার মনোনয়নপত্র বৈধ বলার সুযোগ নেই।