০৫:৪৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

টিকটক ভিডিওর নামে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করায় দুই গ্রামের সংঘর্ষ, নিহত ১

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৯:৫৮:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ ২০২৩
  • / ১৭২ বার পড়া হয়েছে

সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলায় টিকটক ভিডিও তৈরি করার সময় দুই মেয়েকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদে দুই গ্রামের বাসিন্দাদের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনায় একজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন প্রায় ২৫ জন। এ ঘটনার পর এলাকায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশ অবস্থান করছে।

বৃহস্পতিবার (২ মার্চ) সকালে সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু সাঈদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে বুধবার (১ মার্চ) সন্ধ্যায় উপজেলার সুরমা বাশখলা গ্রাম ও মুক্তিরগাঁও গ্রামের বাসিন্দাদের মাঝে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় আশঙ্কাজনক অবস্থায় গুরুতর আহত তিনজন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

নিহত ব্যক্তি ছাতকের মুক্তিরগাঁও গ্রামের মৃত চমক আলীর ছেলে সাইফুল আলম (৪৫)।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যার দিকে সুরমা সেতুতে দুই মেয়ে বেড়াতে এলে বাশখলা গ্রামের কয়েকজন ছেলে টিকটক ভিডিও তৈরির নামে তাদের উত্ত্যক্ত করতে থাকে। এ সময় মুক্তিরগাঁও গ্রামের মামুনসহ কয়েকজন ছেলে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করলে মামুনকে ছুরিঘাত করে টিকটক ভিডিও ধারণকারী দল।

পরে ছুরিকাহতের খবর মামুনের গ্রামে ছড়িয়ে পড়লে দেশীয় অস্ত্রসহ দুই গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় চারজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের হাসপাতালে নেওয়ার পথে সাইফুল নিহত হন। এদিকে সংবাদ পেয়ে পুলিশ এসে টিয়ারশেল ও ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে বুধবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত প্রায় ৪ ঘণ্টা ধরে দফায় দফায় চলে এ সংঘর্ষ।

পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু সাঈদ জানান, বুধবার সন্ধ্যায় বেড়াতে আসা মেয়েদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করার প্রতিবাদ করায় কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে দেশীয় অস্ত্রসহ দুই গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় একজন নিহত হয়েছেন। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শর্টগান ও টিয়ারশেল ছুড়েছে। ঘটনাস্থলে এখনও পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। তিনি আরও জানান, এ ঘটনার পরপরই বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রায় ২০ জনকে আটক করা হয়েছে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

টিকটক ভিডিওর নামে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করায় দুই গ্রামের সংঘর্ষ, নিহত ১

আপডেট সময় ০৯:৫৮:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ ২০২৩

সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলায় টিকটক ভিডিও তৈরি করার সময় দুই মেয়েকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদে দুই গ্রামের বাসিন্দাদের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনায় একজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন প্রায় ২৫ জন। এ ঘটনার পর এলাকায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশ অবস্থান করছে।

বৃহস্পতিবার (২ মার্চ) সকালে সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু সাঈদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে বুধবার (১ মার্চ) সন্ধ্যায় উপজেলার সুরমা বাশখলা গ্রাম ও মুক্তিরগাঁও গ্রামের বাসিন্দাদের মাঝে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় আশঙ্কাজনক অবস্থায় গুরুতর আহত তিনজন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

নিহত ব্যক্তি ছাতকের মুক্তিরগাঁও গ্রামের মৃত চমক আলীর ছেলে সাইফুল আলম (৪৫)।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যার দিকে সুরমা সেতুতে দুই মেয়ে বেড়াতে এলে বাশখলা গ্রামের কয়েকজন ছেলে টিকটক ভিডিও তৈরির নামে তাদের উত্ত্যক্ত করতে থাকে। এ সময় মুক্তিরগাঁও গ্রামের মামুনসহ কয়েকজন ছেলে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করলে মামুনকে ছুরিঘাত করে টিকটক ভিডিও ধারণকারী দল।

পরে ছুরিকাহতের খবর মামুনের গ্রামে ছড়িয়ে পড়লে দেশীয় অস্ত্রসহ দুই গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় চারজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের হাসপাতালে নেওয়ার পথে সাইফুল নিহত হন। এদিকে সংবাদ পেয়ে পুলিশ এসে টিয়ারশেল ও ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে বুধবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত প্রায় ৪ ঘণ্টা ধরে দফায় দফায় চলে এ সংঘর্ষ।

পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু সাঈদ জানান, বুধবার সন্ধ্যায় বেড়াতে আসা মেয়েদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করার প্রতিবাদ করায় কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে দেশীয় অস্ত্রসহ দুই গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় একজন নিহত হয়েছেন। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শর্টগান ও টিয়ারশেল ছুড়েছে। ঘটনাস্থলে এখনও পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। তিনি আরও জানান, এ ঘটনার পরপরই বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রায় ২০ জনকে আটক করা হয়েছে।