০৬:১৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের টাকা ছিনতাই পরিকল্পিত : ডিবি

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৯:৪৫:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ ২০২৩
  • / ৭২ বার পড়া হয়েছে

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেছেন, ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের সোয়া ১১ কোটি টাকা ছিনতাই একটি পরিকল্পিত ঘটনা। বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরার হোটেল লা মেরিডিয়ানের সামনে তাৎক্ষণিক এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত মানি প্ল্যান লিংক সিকিউরিটিজ কোম্পানি লিমিটেডের দুইজন পরিচালসহ সাতজনকে আটক করা হয়েছে। তারা অনেক আগে থেকে টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল। তিনি বলেন, সকালে গাড়িটি মিরপুর-১২ নম্বর থেকে রওনা দেয়। উত্তরায় যাওয়ার পথে ছিনতাইকারীরা গাড়িটি থামায়। টাকা নিয়ে যাওয়ার জন্য ওই গাড়িতে নিয়োজিত ছিল ছয়জন।

ছিনতাইকারীরা তাদের মারধর করে গাড়ি ও টাকার চারটি বক্স নিয়ে পালিয়ে যায়। চারটি বক্সে মোট ১১ কোটি ২০ লাখ টাকা ছিল। ডিবি প্রধান বলেন, খবর পেয়ে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের টিম দ্রুত রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় টহল বসায়। বিভিন্ন থানা পুলিশের সহযোগিতায় ডিবির সদস্যরা উত্তরা থেকে পালানোর সময় তিনটি বক্সসহ ছিনতাইকারী সাতজনকে আটক করে। এর আগে, সকালে উত্তরার ১৬ নম্বর সেক্টরের ১১ নম্বর সেতু এলাকায় টাকা পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত গাড়িটি ছিনতাই হয়।

গাড়িতে এটিএম বুথে ভরার জন্য ১১ কোটি ২০ লাখ টাকা ছিল বলে ডাচ বাংলা ব্যাংকের তরফ থেকে পুলিশকে জানানো হয়েছে। গোয়েন্দা পুলিশের একটি সূত্র জানায়, ছিনতাইকারীরা চারটি বক্স নিয়ে পালিয়েছিল। পরে গোয়েন্দা পুলিশ অভিযানে নামে। সাড়ে আট ঘণ্টা অভিযানের পর গাড়িচালককে আটক করে। আটক গাড়িচালকের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে টাকা ভর্তি তিনটি বক্স উদ্ধার করা হয়েছে।
ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের টাকা ছিনতাই পরিকল্পিত : ডিবি

আপডেট সময় ০৯:৪৫:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ ২০২৩

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেছেন, ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের সোয়া ১১ কোটি টাকা ছিনতাই একটি পরিকল্পিত ঘটনা। বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরার হোটেল লা মেরিডিয়ানের সামনে তাৎক্ষণিক এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত মানি প্ল্যান লিংক সিকিউরিটিজ কোম্পানি লিমিটেডের দুইজন পরিচালসহ সাতজনকে আটক করা হয়েছে। তারা অনেক আগে থেকে টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল। তিনি বলেন, সকালে গাড়িটি মিরপুর-১২ নম্বর থেকে রওনা দেয়। উত্তরায় যাওয়ার পথে ছিনতাইকারীরা গাড়িটি থামায়। টাকা নিয়ে যাওয়ার জন্য ওই গাড়িতে নিয়োজিত ছিল ছয়জন।

ছিনতাইকারীরা তাদের মারধর করে গাড়ি ও টাকার চারটি বক্স নিয়ে পালিয়ে যায়। চারটি বক্সে মোট ১১ কোটি ২০ লাখ টাকা ছিল। ডিবি প্রধান বলেন, খবর পেয়ে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের টিম দ্রুত রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় টহল বসায়। বিভিন্ন থানা পুলিশের সহযোগিতায় ডিবির সদস্যরা উত্তরা থেকে পালানোর সময় তিনটি বক্সসহ ছিনতাইকারী সাতজনকে আটক করে। এর আগে, সকালে উত্তরার ১৬ নম্বর সেক্টরের ১১ নম্বর সেতু এলাকায় টাকা পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত গাড়িটি ছিনতাই হয়।

গাড়িতে এটিএম বুথে ভরার জন্য ১১ কোটি ২০ লাখ টাকা ছিল বলে ডাচ বাংলা ব্যাংকের তরফ থেকে পুলিশকে জানানো হয়েছে। গোয়েন্দা পুলিশের একটি সূত্র জানায়, ছিনতাইকারীরা চারটি বক্স নিয়ে পালিয়েছিল। পরে গোয়েন্দা পুলিশ অভিযানে নামে। সাড়ে আট ঘণ্টা অভিযানের পর গাড়িচালককে আটক করে। আটক গাড়িচালকের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে টাকা ভর্তি তিনটি বক্স উদ্ধার করা হয়েছে।