০১:০৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

দক্ষিণ আফ্রিকায় ১৯ বাংলাদেশি উদ্ধার, গ্রেপ্তার ১

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০২:৫৬:০১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • / ৯০ বার পড়া হয়েছে

দক্ষিণ আফ্রিকার এমপুমালাঙ্গা প্রদেশের এমবোম্বেলা শহরের উপকণ্ঠে কামাগুতে একটি বাড়িতে বন্দি অবস্থায় থাকা ১৯ বাংলাদেশি নাগরিককে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম এসএবিসি নিউজ। সংবাদমাধ্যমটি জানায়, ওই বাড়িতে নিজেদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে এসব বাংলাদেশিকে আটকে রাখা হয়েছিল। তাদেরকে দেশটিতে পাচার করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। প্রাদেশিক পুলিশের মুখপাত্র সেলভি মোহলালা বলেন, ৫৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে মানবপাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে মানবপাচারের মামলা হবে।

এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা এক বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করেছি এবং তার বিরুদ্ধে মানবপাচারের অভিযোগ আনা হচ্ছে। উদ্ধারকৃত বাংলাদেশিরা জানান, তাদের কয়েকজনকে মিডেলবার্গ এবং বাকিদের জোহানেসবার্গে পাঠানোর কথা বলা হয়েছিল। আমাদের তদন্ত এখানেই শেষ নয়, আমরা স্বরাষ্ট্র দপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে কাজ চালিয়ে যাব। আশা করি—এই চক্রের হোতাদের আমরা খুঁজে বের করতে পারব।’

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

দক্ষিণ আফ্রিকায় ১৯ বাংলাদেশি উদ্ধার, গ্রেপ্তার ১

আপডেট সময় ০২:৫৬:০১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

দক্ষিণ আফ্রিকার এমপুমালাঙ্গা প্রদেশের এমবোম্বেলা শহরের উপকণ্ঠে কামাগুতে একটি বাড়িতে বন্দি অবস্থায় থাকা ১৯ বাংলাদেশি নাগরিককে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম এসএবিসি নিউজ। সংবাদমাধ্যমটি জানায়, ওই বাড়িতে নিজেদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে এসব বাংলাদেশিকে আটকে রাখা হয়েছিল। তাদেরকে দেশটিতে পাচার করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। প্রাদেশিক পুলিশের মুখপাত্র সেলভি মোহলালা বলেন, ৫৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে মানবপাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে মানবপাচারের মামলা হবে।

এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা এক বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করেছি এবং তার বিরুদ্ধে মানবপাচারের অভিযোগ আনা হচ্ছে। উদ্ধারকৃত বাংলাদেশিরা জানান, তাদের কয়েকজনকে মিডেলবার্গ এবং বাকিদের জোহানেসবার্গে পাঠানোর কথা বলা হয়েছিল। আমাদের তদন্ত এখানেই শেষ নয়, আমরা স্বরাষ্ট্র দপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে কাজ চালিয়ে যাব। আশা করি—এই চক্রের হোতাদের আমরা খুঁজে বের করতে পারব।’