০৪:৪৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩

দামের আগুনে পুড়ছে নিত্যপণ্যের বাজার

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৫:০৩:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ মার্চ ২০২৩
  • / ৪৩ বার পড়া হয়েছে

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে বাজারে সরবরাহ ঘাটতি না থাকা সত্ত্বেও ব্রয়লার মুরগি ও সবজিসহ প্রায় সবকিছুর দামই ঊর্ধ্বমুখী। শুধু একদিনের ব্যবধানে ব্রয়লার মুরগির দাম কেজিপ্রতি বেড়েছে ২০ টাকা।

শুক্রবার (১০ মার্চ) সকালে রাজধানীর কাওরানবাজারে গিয়ে দেখা যায়, সবচেয়ে বেশি বেড়েছে বয়লার মুরগির দাম। ২৩৫ থেকে ২৪০ টাকা কেজির ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ২৬০ টাকায়। গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ থেকে ৮০০ টাকা আর খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ১১০০ টাকা কেজি।

মুরগি বিক্রেতারা অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার জাতীয় ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরে মুরগির ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠকের পরেই পাইকারি বিক্রেতারা ব্রয়লার মুরগির দাম বাড়িয়েছেন কেজিপ্রতি ২০ টাকা। কাওরানবাজারের এক মুরগি বিক্রেতা বলেন, পাইকাররা বলছেন খামারে আজকে মুরগির দর বেশি। সেজন্য তারা কেজিপ্রতি ২০ টাকা বাড়িয়েছে।

গতকাল মিটিং হয়েছে, অথচ আজকেই তারা ৫ টাকা বা ৭ টাকা নয়, এক লাফে ২০ টাকা দাম বাড়িয়েছে দিয়েছে। আমি একজন খুচরা বিক্রেতা। দাম বেশি চাইতে গেলে ক্রেতাদের সঙ্গে আমাদের হট্টগোল হয়। এদিকে রমজানের আগে চট্টগ্রামে সবজি বাজারে প্রতিটি সবজি বিক্রি হচ্ছে চড়া দামে। ফুলকপি ও বাঁধাকপি ৩০ টাকা, বেগুন ৫০ টাকা, টমেটো ২০-২৫ টাকা, লাউ ও শিম ৪০ এবং কড়লা ১১০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

স্বস্তি মিলছে না মাংসের বাজারে ব্রয়লার মুরগি ২২০ থেকে ২৩০ টাকা। সোনালি মুরগি ৩১০ থেকে ৩২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৮৫০ থেকে ৯০০ টাকা কেজি। দাম বাড়ায় ক্ষোভ জানিয়েছেন ক্রেতারা। সবকিছুর দাম কমানোর দাবি জানিয়েছেন তারা। বাজারে মনিটরিং ব্যবস্থা না থাকায় এমন অবস্থা তৈরি হয়েছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

দামের আগুনে পুড়ছে নিত্যপণ্যের বাজার

আপডেট সময় ০৫:০৩:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ মার্চ ২০২৩

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে বাজারে সরবরাহ ঘাটতি না থাকা সত্ত্বেও ব্রয়লার মুরগি ও সবজিসহ প্রায় সবকিছুর দামই ঊর্ধ্বমুখী। শুধু একদিনের ব্যবধানে ব্রয়লার মুরগির দাম কেজিপ্রতি বেড়েছে ২০ টাকা।

শুক্রবার (১০ মার্চ) সকালে রাজধানীর কাওরানবাজারে গিয়ে দেখা যায়, সবচেয়ে বেশি বেড়েছে বয়লার মুরগির দাম। ২৩৫ থেকে ২৪০ টাকা কেজির ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ২৬০ টাকায়। গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ থেকে ৮০০ টাকা আর খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ১১০০ টাকা কেজি।

মুরগি বিক্রেতারা অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার জাতীয় ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরে মুরগির ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠকের পরেই পাইকারি বিক্রেতারা ব্রয়লার মুরগির দাম বাড়িয়েছেন কেজিপ্রতি ২০ টাকা। কাওরানবাজারের এক মুরগি বিক্রেতা বলেন, পাইকাররা বলছেন খামারে আজকে মুরগির দর বেশি। সেজন্য তারা কেজিপ্রতি ২০ টাকা বাড়িয়েছে।

গতকাল মিটিং হয়েছে, অথচ আজকেই তারা ৫ টাকা বা ৭ টাকা নয়, এক লাফে ২০ টাকা দাম বাড়িয়েছে দিয়েছে। আমি একজন খুচরা বিক্রেতা। দাম বেশি চাইতে গেলে ক্রেতাদের সঙ্গে আমাদের হট্টগোল হয়। এদিকে রমজানের আগে চট্টগ্রামে সবজি বাজারে প্রতিটি সবজি বিক্রি হচ্ছে চড়া দামে। ফুলকপি ও বাঁধাকপি ৩০ টাকা, বেগুন ৫০ টাকা, টমেটো ২০-২৫ টাকা, লাউ ও শিম ৪০ এবং কড়লা ১১০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

স্বস্তি মিলছে না মাংসের বাজারে ব্রয়লার মুরগি ২২০ থেকে ২৩০ টাকা। সোনালি মুরগি ৩১০ থেকে ৩২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৮৫০ থেকে ৯০০ টাকা কেজি। দাম বাড়ায় ক্ষোভ জানিয়েছেন ক্রেতারা। সবকিছুর দাম কমানোর দাবি জানিয়েছেন তারা। বাজারে মনিটরিং ব্যবস্থা না থাকায় এমন অবস্থা তৈরি হয়েছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের।