০১:২১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

দুই বান্ধবীর প্রেমে সাড়া দিয়ে বাড়িতে গেলেই লুট হতো সব

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৬:০৩:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৫৪ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর মিরপুরে প্রতারণার অভিযোগে এক তরুণীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তারা ভুয়া আইডি খুলে বিভিন্ন মানুষকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বাড়িতে ডেকে নিতো। এরপর আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইল করে টাকা আদায় করত।

সোমবার (১০ এপ্রিল) দুপুরে মিরপুর মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মহসীন এসব তথ্য জানান। এর আগে রোববার তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তাররা হলেন হলেন সুমাইয়া আক্তার খুশি ওরফে মারিয়া ইসলাম (১৯), মো. মুসলিশ উদ্দিন মুন (২২) ও খন্দকার শাওন (২৮)। এ ঘটনায় মোছা. তন্নী আক্তার (২০) নামে আরেকজন পলাতক।

ওসি মো. মহসীন জানান, গ্রেপ্তার মারিয়া রূপনগর সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। ক্রটির মূল মারিয়া এবং তার বান্ধবী তন্নী। তারা বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুয়া আইডি খুলে ছেলেদের সঙ্গে প্রেমের অভিনয় করে। এরপর বাসায় ডেকে নিয়ে মারধর করে নগ্ন ভিডিও ধারণ করে টাকায় আদায় করতো। এই কাজে দুই বান্ধবীকে সহায়তা করত তাদের বন্ধু শাওন ও মুন।

তিনি আরও বলেন, আগে একই পদ্ধতিতে হানিফ নামের একজনকে জিম্মি করে ৮৫ হাজার টাকা আদায় করে তারা। পরে পুলিশে অভিযোগ করলে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। উদ্ধার করা হয় ৫৪ হাজার টাকা।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

দুই বান্ধবীর প্রেমে সাড়া দিয়ে বাড়িতে গেলেই লুট হতো সব

আপডেট সময় ০৬:০৩:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ এপ্রিল ২০২৩

রাজধানীর মিরপুরে প্রতারণার অভিযোগে এক তরুণীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তারা ভুয়া আইডি খুলে বিভিন্ন মানুষকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বাড়িতে ডেকে নিতো। এরপর আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইল করে টাকা আদায় করত।

সোমবার (১০ এপ্রিল) দুপুরে মিরপুর মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মহসীন এসব তথ্য জানান। এর আগে রোববার তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তাররা হলেন হলেন সুমাইয়া আক্তার খুশি ওরফে মারিয়া ইসলাম (১৯), মো. মুসলিশ উদ্দিন মুন (২২) ও খন্দকার শাওন (২৮)। এ ঘটনায় মোছা. তন্নী আক্তার (২০) নামে আরেকজন পলাতক।

ওসি মো. মহসীন জানান, গ্রেপ্তার মারিয়া রূপনগর সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। ক্রটির মূল মারিয়া এবং তার বান্ধবী তন্নী। তারা বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুয়া আইডি খুলে ছেলেদের সঙ্গে প্রেমের অভিনয় করে। এরপর বাসায় ডেকে নিয়ে মারধর করে নগ্ন ভিডিও ধারণ করে টাকায় আদায় করতো। এই কাজে দুই বান্ধবীকে সহায়তা করত তাদের বন্ধু শাওন ও মুন।

তিনি আরও বলেন, আগে একই পদ্ধতিতে হানিফ নামের একজনকে জিম্মি করে ৮৫ হাজার টাকা আদায় করে তারা। পরে পুলিশে অভিযোগ করলে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। উদ্ধার করা হয় ৫৪ হাজার টাকা।