০১:১৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

নজরুল-রবীন্দ্রনাথের জন্মবার্ষিকী উদযাপনে বরাদ্দ সাড়ে ২৭ লাখ টাকা

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৭:৪৯:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৪৫ বার পড়া হয়েছে

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকী উদযাপনে ব্যয় নির্বাহের জন্য ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ দিয়েছে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের চিফ অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফিন্যান্স অফিসারকে সম্প্রতি এ-সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়, আগামী ৮ মে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬২তম জন্মবার্ষিকী এবং ২৫ মে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৪তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনের ব্যয় নির্বাহের জন্য ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা নির্দেশক্রমে বরাদ্দ দেওয়া হলো। দেশের ৫৫ জেলার অনুকূলে ২০২২-২৩ অর্থবছরে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কোড নং-১৩৪১১১১৯১৩৪-৩৮২১১১৫-এর সাংস্কৃতিক মঞ্জুরি (নজরুল-রবীন্দ্র জয়ন্তী) খাতের বরাদ্দ থেকে এ বরাদ্দ দেওয়া হলো।

চিঠিতে আরও বলা হয়, বরাদ্দ করা অর্থ ব্যয়ের ক্ষেত্রে যাবতীয় আর্থিক বিধিবিধান যথাযথভাবে পালন করতে হবে। এ অর্থ ব্যয়ে কোনো অনিয়ম দেখা দিলে বিল পরিশোধকারী কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে। অব্যয়িত অর্থ ৩০ জুনের মধ্যে ফেরত দিতে হবে। ব্যয় বিবরণীসহ অনুষ্ঠান সম্পাদনের প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করতে হবে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

নজরুল-রবীন্দ্রনাথের জন্মবার্ষিকী উদযাপনে বরাদ্দ সাড়ে ২৭ লাখ টাকা

আপডেট সময় ০৭:৪৯:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৩

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকী উদযাপনে ব্যয় নির্বাহের জন্য ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ দিয়েছে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের চিফ অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফিন্যান্স অফিসারকে সম্প্রতি এ-সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়, আগামী ৮ মে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬২তম জন্মবার্ষিকী এবং ২৫ মে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৪তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনের ব্যয় নির্বাহের জন্য ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা নির্দেশক্রমে বরাদ্দ দেওয়া হলো। দেশের ৫৫ জেলার অনুকূলে ২০২২-২৩ অর্থবছরে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কোড নং-১৩৪১১১১৯১৩৪-৩৮২১১১৫-এর সাংস্কৃতিক মঞ্জুরি (নজরুল-রবীন্দ্র জয়ন্তী) খাতের বরাদ্দ থেকে এ বরাদ্দ দেওয়া হলো।

চিঠিতে আরও বলা হয়, বরাদ্দ করা অর্থ ব্যয়ের ক্ষেত্রে যাবতীয় আর্থিক বিধিবিধান যথাযথভাবে পালন করতে হবে। এ অর্থ ব্যয়ে কোনো অনিয়ম দেখা দিলে বিল পরিশোধকারী কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে। অব্যয়িত অর্থ ৩০ জুনের মধ্যে ফেরত দিতে হবে। ব্যয় বিবরণীসহ অনুষ্ঠান সম্পাদনের প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করতে হবে।