০৮:০৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪

নোবেলজয়ীর জন্য নাম খয়রাত করে বিজ্ঞাপন কেন, প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ১০:০১:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩
  • / ৬৯ বার পড়া হয়েছে

নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসকে নিয়ে ওয়াশিংটন পোস্টে ‘৪০ বিশ্বনেতার বিবৃতি’ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‌‘যিনি এত নামীদামি নোবেল বিজয়ী, তার জন্য ৪০ জনের নাম খয়রাত করে এনে বিজ্ঞাপন দিতে হবে কেন?’

সোমবার (১৩ মার্চ) বিকেলে গণভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর সদ্য সমাপ্ত কাতার সফর নিয়ে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা বিবৃতি না। এটা একটা বিজ্ঞাপন। ৪০ জনের নাম ব্যবহার করা হয়েছে।

সেটা আমাদের বিশেষ একজন ব্যক্তির পক্ষে। এর উত্তর কী দেব জানি না। আমরা একটা প্রশ্ন আছে, যিনি এত নামীদামি নোবেল প্রাইজ প্রাপ্ত, তার জন্য এই ৪০ জনের নাম খয়রাত করে এনে বিজ্ঞাপন দিতে হবে কেন? প্রজ্ঞাপন কেন দিতে হলো? যে যাই হোক। আমার দেশে কতগুলো আইন আছে। সে আইন অনুযায়ী সব চলবে। বিচার বিভাগ স্বাধীন। শ্রমিকদের অধিকার আছে, ট্যাক্স বিভাগ আছে। কেউ যদি আইন ভঙ্গ করে শ্রমিক আদালত আছে। এই ক্ষেত্রে আমার তো কিছু করার নেই সরকারপ্রধান হিসেবে।

আমাকে কেন দিলো বুঝতে পারলাম না। পদ্মা সেতু কিন্তু করে ফেলেছি। এইটুকুই বললাম।’উল্লেখ্য, সম্প্রতি ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে একটি খোলা চিঠি দিয়ে ‘গভীর উদ্বেগ’ প্রকাশ করেন ৪০ জন বিশ্বনেতা। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন, দেশটির সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট আল গোর, জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব বান কি মুন, আয়ারল্যান্ডের সাবেক প্রেসিডেন্ট মেরি রবিনসন রয়েছেন।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

নোবেলজয়ীর জন্য নাম খয়রাত করে বিজ্ঞাপন কেন, প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

আপডেট সময় ১০:০১:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩

নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসকে নিয়ে ওয়াশিংটন পোস্টে ‘৪০ বিশ্বনেতার বিবৃতি’ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‌‘যিনি এত নামীদামি নোবেল বিজয়ী, তার জন্য ৪০ জনের নাম খয়রাত করে এনে বিজ্ঞাপন দিতে হবে কেন?’

সোমবার (১৩ মার্চ) বিকেলে গণভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর সদ্য সমাপ্ত কাতার সফর নিয়ে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা বিবৃতি না। এটা একটা বিজ্ঞাপন। ৪০ জনের নাম ব্যবহার করা হয়েছে।

সেটা আমাদের বিশেষ একজন ব্যক্তির পক্ষে। এর উত্তর কী দেব জানি না। আমরা একটা প্রশ্ন আছে, যিনি এত নামীদামি নোবেল প্রাইজ প্রাপ্ত, তার জন্য এই ৪০ জনের নাম খয়রাত করে এনে বিজ্ঞাপন দিতে হবে কেন? প্রজ্ঞাপন কেন দিতে হলো? যে যাই হোক। আমার দেশে কতগুলো আইন আছে। সে আইন অনুযায়ী সব চলবে। বিচার বিভাগ স্বাধীন। শ্রমিকদের অধিকার আছে, ট্যাক্স বিভাগ আছে। কেউ যদি আইন ভঙ্গ করে শ্রমিক আদালত আছে। এই ক্ষেত্রে আমার তো কিছু করার নেই সরকারপ্রধান হিসেবে।

আমাকে কেন দিলো বুঝতে পারলাম না। পদ্মা সেতু কিন্তু করে ফেলেছি। এইটুকুই বললাম।’উল্লেখ্য, সম্প্রতি ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে একটি খোলা চিঠি দিয়ে ‘গভীর উদ্বেগ’ প্রকাশ করেন ৪০ জন বিশ্বনেতা। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন, দেশটির সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট আল গোর, জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব বান কি মুন, আয়ারল্যান্ডের সাবেক প্রেসিডেন্ট মেরি রবিনসন রয়েছেন।