১০:১৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে হামলা, নেতৃত্বে এলজিআরডিমন্ত্রীর শ্যালক!

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় ০১:৪৫:৪১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ অক্টোবর ২০২৩
  • / ২০৭ বার পড়া হয়েছে

কুমিল্লার লাকসামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী আব্দুল মান্নানের বাড়িতে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী (এলজিআরডিমন্ত্রী) তাজুল ইসলামের শ্যালক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাব্বত আলীর নেতৃত্বে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জেলার লাকসাম পৌরসভার আব্দুল মান্নানের বাড়ির পাশে গাজীমুড়া কামিল মাদ্রসার মাঠে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আব্দুল মান্নানের সমর্থিত আওয়ামী লীগের কর্মী ফারুক, রাশেদ, শাহজান, মনিরসহ সাতজন গুরুতর আহত হয়ে জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত সহকারীর ওপর হামলার বিষয়টি জানতে চাইলে লাকসাম থানার ওসি মাহফুজ আহমেদ বলেন, কে বলছে হতাহতের ঘটনা ঘটছে। এখানে তো কোনো ঘটনাই ঘটেনি। লাকসামে কোনো মারামারির ঘটনা পাওয়া যায়নি। সবাই শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করছে। যারা বলে এমন ঘটনা ঘটেছে তাদের নাম দিন।

প্রধানমন্ত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী আব্দুল মান্নান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে আমার বাড়ির পাশে মাদ্রাসার মাঠে একটি আলোচনা সভা করেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। সেখানে আমি উপস্থিত হলে অতর্কিতভাবে আমাদের ওপর এলজিআরডিমন্ত্রী তাজুল ইসলামের শ্যালক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাব্বত আলীর নেতৃত্বে হামলা চালানো হয়। সন্ত্রাসীরা আমাদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে আমাদের মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে যায়। মন্ত্রীর সন্ত্রাসী শ্যালক মোহব্বত আলীর নেতৃত্বে হামলায় সাতজন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী গুরুতর আহত হয়। আহতরা কুমিল্লা মেডিকেল কলেজসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে।

প্রধানমন্ত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী আব্দুল মান্নান কালবেলাকে আরও বলেন, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী তাজুল ইসলামের শ্যালক মহব্বতের নেতৃত্বে হামলায় অংশ নেয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী জাহাঙ্গীর, সিহাব, শামীম, স্বাধীন, মনির, রুবেল, ফরিদ, তুষার, কাউসার, খুনি রাসেল সাইফুল ইসলাম, রাজু ফারুকসহ আরও অনেকে।

এ বিষয় জানতে লাকসাম উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মোহাব্বত আলীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

কুমিল্লা পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান বলেন, বিষয়টি জেনে বিস্তারিত জানাতে পারব।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে হামলা, নেতৃত্বে এলজিআরডিমন্ত্রীর শ্যালক!

আপডেট সময় ০১:৪৫:৪১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ অক্টোবর ২০২৩

কুমিল্লার লাকসামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী আব্দুল মান্নানের বাড়িতে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী (এলজিআরডিমন্ত্রী) তাজুল ইসলামের শ্যালক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাব্বত আলীর নেতৃত্বে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জেলার লাকসাম পৌরসভার আব্দুল মান্নানের বাড়ির পাশে গাজীমুড়া কামিল মাদ্রসার মাঠে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আব্দুল মান্নানের সমর্থিত আওয়ামী লীগের কর্মী ফারুক, রাশেদ, শাহজান, মনিরসহ সাতজন গুরুতর আহত হয়ে জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত সহকারীর ওপর হামলার বিষয়টি জানতে চাইলে লাকসাম থানার ওসি মাহফুজ আহমেদ বলেন, কে বলছে হতাহতের ঘটনা ঘটছে। এখানে তো কোনো ঘটনাই ঘটেনি। লাকসামে কোনো মারামারির ঘটনা পাওয়া যায়নি। সবাই শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করছে। যারা বলে এমন ঘটনা ঘটেছে তাদের নাম দিন।

প্রধানমন্ত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী আব্দুল মান্নান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে আমার বাড়ির পাশে মাদ্রাসার মাঠে একটি আলোচনা সভা করেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। সেখানে আমি উপস্থিত হলে অতর্কিতভাবে আমাদের ওপর এলজিআরডিমন্ত্রী তাজুল ইসলামের শ্যালক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাব্বত আলীর নেতৃত্বে হামলা চালানো হয়। সন্ত্রাসীরা আমাদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে আমাদের মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে যায়। মন্ত্রীর সন্ত্রাসী শ্যালক মোহব্বত আলীর নেতৃত্বে হামলায় সাতজন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী গুরুতর আহত হয়। আহতরা কুমিল্লা মেডিকেল কলেজসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে।

প্রধানমন্ত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী আব্দুল মান্নান কালবেলাকে আরও বলেন, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী তাজুল ইসলামের শ্যালক মহব্বতের নেতৃত্বে হামলায় অংশ নেয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী জাহাঙ্গীর, সিহাব, শামীম, স্বাধীন, মনির, রুবেল, ফরিদ, তুষার, কাউসার, খুনি রাসেল সাইফুল ইসলাম, রাজু ফারুকসহ আরও অনেকে।

এ বিষয় জানতে লাকসাম উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মোহাব্বত আলীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

কুমিল্লা পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান বলেন, বিষয়টি জেনে বিস্তারিত জানাতে পারব।