১২:৪১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

ফায়ার ফাইটাররা জীবন দিচ্ছে, তারপরও কেন আক্রমণ : ডিজি

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৫:৪৯:৪০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৪৫ বার পড়া হয়েছে

বঙ্গবাজারের অগ্নিকাণ্ডকে কেন্দ্র করে ফায়ার সার্ভিসের দপ্তরে হামলার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বাহিনীটির মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইন উদ্দিন। তিনি বলেছেন, ফায়ার ফাইটাররা আপনাদের জন্যই জীবন দিচ্ছে, তারপরও কেন আমাদের ওপরেই আক্রমণ করা হলো।

মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর ঘটনাস্থলে ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। ফায়ার সার্ভিসের ডিজি বলেন, ভোর ৬টা ১০ মিনিটে আগুন লাগে। দুপুর ১২টা ৩৬ মিনিটে আমরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনি। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৪৮টি ইউনিট কাজ করেছে। এ ছাড়াও সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশ, ওয়াসাসহ অনেক সংস্থা আমাদের সঙ্গে কাজ করেছে। আগুন সম্পূর্ণ নির্বাপণ করতে আরেকটু সময় লাগবে। কারণ আমাদের প্রতি তলায় প্রতিটি ঘরে-ঘরে গিয়ে আগুন নির্বাপণ করতে হবে।

তিনি বলেন, অনাকাঙ্ক্ষিত এই অগ্নিদুর্ঘটনার জন্য আমরা অত্যন্ত দুঃখিত এবং মর্মাহত। কীভাবে আগুন লেগেছে সেটি খতিয়ে দেখতে আমরা আমরা পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করব। অগ্নিকাণ্ডে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্তের পরে বলতে পারব। এ সময় ফায়ার সার্ভিসের সদর দপ্তরে হামলার বিষয়ে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইন উদ্দিন বলেন, ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মানুষের জন্য জীবন দেয়। গত এক বছরে ১৩ জন ফায়ার ফাইটার শহীদ হয়েছেন, ২৯ জন আহত হয়েছেন এবং আজ আট জন আহত হয়েছেন।

আমরা তো আপনাদের জন্যই জীবন দিচ্ছি। তারপরও কেন বা কারা ফায়ার সার্ভিসের ওপর আক্রমণ করলো আমার বোধগম্য নয়। এর আগে, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বঙ্গবাজারে যখন আগুন জ্বলছিল, তখন উত্তেজিত জনতা পার্শ্ববর্তী ফায়ার সার্ভিসের সদর দপ্তরে হামলা ও গাড়ি ভাঙচুর করে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

ফায়ার ফাইটাররা জীবন দিচ্ছে, তারপরও কেন আক্রমণ : ডিজি

আপডেট সময় ০৫:৪৯:৪০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল ২০২৩

বঙ্গবাজারের অগ্নিকাণ্ডকে কেন্দ্র করে ফায়ার সার্ভিসের দপ্তরে হামলার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বাহিনীটির মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইন উদ্দিন। তিনি বলেছেন, ফায়ার ফাইটাররা আপনাদের জন্যই জীবন দিচ্ছে, তারপরও কেন আমাদের ওপরেই আক্রমণ করা হলো।

মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর ঘটনাস্থলে ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। ফায়ার সার্ভিসের ডিজি বলেন, ভোর ৬টা ১০ মিনিটে আগুন লাগে। দুপুর ১২টা ৩৬ মিনিটে আমরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনি। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৪৮টি ইউনিট কাজ করেছে। এ ছাড়াও সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশ, ওয়াসাসহ অনেক সংস্থা আমাদের সঙ্গে কাজ করেছে। আগুন সম্পূর্ণ নির্বাপণ করতে আরেকটু সময় লাগবে। কারণ আমাদের প্রতি তলায় প্রতিটি ঘরে-ঘরে গিয়ে আগুন নির্বাপণ করতে হবে।

তিনি বলেন, অনাকাঙ্ক্ষিত এই অগ্নিদুর্ঘটনার জন্য আমরা অত্যন্ত দুঃখিত এবং মর্মাহত। কীভাবে আগুন লেগেছে সেটি খতিয়ে দেখতে আমরা আমরা পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করব। অগ্নিকাণ্ডে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্তের পরে বলতে পারব। এ সময় ফায়ার সার্ভিসের সদর দপ্তরে হামলার বিষয়ে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইন উদ্দিন বলেন, ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মানুষের জন্য জীবন দেয়। গত এক বছরে ১৩ জন ফায়ার ফাইটার শহীদ হয়েছেন, ২৯ জন আহত হয়েছেন এবং আজ আট জন আহত হয়েছেন।

আমরা তো আপনাদের জন্যই জীবন দিচ্ছি। তারপরও কেন বা কারা ফায়ার সার্ভিসের ওপর আক্রমণ করলো আমার বোধগম্য নয়। এর আগে, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বঙ্গবাজারে যখন আগুন জ্বলছিল, তখন উত্তেজিত জনতা পার্শ্ববর্তী ফায়ার সার্ভিসের সদর দপ্তরে হামলা ও গাড়ি ভাঙচুর করে।