০৯:০২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

বঙ্গবাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় যা বললেন আইজিপি

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৫:৫২:৫৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৫৪ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর বঙ্গবাজারে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে ফায়ার সার্ভিসের ৫০টি ইউনিট। ভয়াবহ এ আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসকে সহযোগিতায় সকাল থেকেই কাজ করেন সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর সদস্যরা। পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত রয়েছেন পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার সদস্যরা।

এ বিষয়ে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে রাজারবাগ থেকে ৫টা ওয়াটার ক্যানন এনে ফায়ার সার্ভিসের সঙ্গে কাজ শুরু করি। আমাদের ওয়াটার রিজার্ভার থেকে প্রায় ২ লাখ লিটার পানি সাপ্লাই দিয়েছি। আমাদের ২ হাজার ফোর্স এই এলাকায় দায়িত্ব পালন করেছে।

মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর বিকেল সোয়া ৩টার দিকে সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন আইজিপি। এ সময় তিনি এ তথ্য জানান। চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, আমরা ভোরবেলা আগুনের খবর পেয়েই সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে ছুটে এসেছি। পৌনে ৭টার মধ্যে সব সিনিয়র অফিসার ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে যোগ দেন। আমরা এসে মারাত্মক আগুন দেখি, ফায়ার সার্ভিস চারদিক থেকে কাজ করছিল।

ফয়ার সার্ভিসের কর্মীরা অত্যন্ত পরিশ্রম করেছেন জানিয়ে আইজিপি বলেন, র‌্যাব, বিজিবিসহ তিন বাহিনীর সদস্যরা একযোগে দায়িত্ব পালন করেছেন। সবকিছু মিলিয়ে আমরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার খবর পেয়েছি। পুলিশ সদরদপ্তরে আগুনের বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের একটি ব্যারাকে আগুন লেগেছে। সেখানে থাকা আমাদের সব সদস্য নিরাপদে বের হতে পেরেছেন। তবে মালামাল বের করতে পারিনি।

এখন ডকুমেন্টস ও মালামাল কী কী ক্ষতি হয়েছে তা খতিয়ে দেখতে হবে। চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন আরও বলেন, এরই মধ্যে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। নাশকতার কোনো ঘটনা থাকলে কমিটির তদন্তে বের হয়ে আসবে। আমরা সেই রিপোর্টের অপেক্ষায় থাকব। সে অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা অবশ্যই নেব।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

বঙ্গবাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় যা বললেন আইজিপি

আপডেট সময় ০৫:৫২:৫৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল ২০২৩

রাজধানীর বঙ্গবাজারে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে ফায়ার সার্ভিসের ৫০টি ইউনিট। ভয়াবহ এ আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসকে সহযোগিতায় সকাল থেকেই কাজ করেন সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর সদস্যরা। পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত রয়েছেন পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার সদস্যরা।

এ বিষয়ে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে রাজারবাগ থেকে ৫টা ওয়াটার ক্যানন এনে ফায়ার সার্ভিসের সঙ্গে কাজ শুরু করি। আমাদের ওয়াটার রিজার্ভার থেকে প্রায় ২ লাখ লিটার পানি সাপ্লাই দিয়েছি। আমাদের ২ হাজার ফোর্স এই এলাকায় দায়িত্ব পালন করেছে।

মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর বিকেল সোয়া ৩টার দিকে সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন আইজিপি। এ সময় তিনি এ তথ্য জানান। চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, আমরা ভোরবেলা আগুনের খবর পেয়েই সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে ছুটে এসেছি। পৌনে ৭টার মধ্যে সব সিনিয়র অফিসার ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে যোগ দেন। আমরা এসে মারাত্মক আগুন দেখি, ফায়ার সার্ভিস চারদিক থেকে কাজ করছিল।

ফয়ার সার্ভিসের কর্মীরা অত্যন্ত পরিশ্রম করেছেন জানিয়ে আইজিপি বলেন, র‌্যাব, বিজিবিসহ তিন বাহিনীর সদস্যরা একযোগে দায়িত্ব পালন করেছেন। সবকিছু মিলিয়ে আমরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার খবর পেয়েছি। পুলিশ সদরদপ্তরে আগুনের বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের একটি ব্যারাকে আগুন লেগেছে। সেখানে থাকা আমাদের সব সদস্য নিরাপদে বের হতে পেরেছেন। তবে মালামাল বের করতে পারিনি।

এখন ডকুমেন্টস ও মালামাল কী কী ক্ষতি হয়েছে তা খতিয়ে দেখতে হবে। চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন আরও বলেন, এরই মধ্যে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। নাশকতার কোনো ঘটনা থাকলে কমিটির তদন্তে বের হয়ে আসবে। আমরা সেই রিপোর্টের অপেক্ষায় থাকব। সে অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা অবশ্যই নেব।