০৯:৩৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

বর্তমান সরকারের আমলে কারও নিরাপত্তা নেই : খন্দকার মোশাররফ

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৫:২৯:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৪৮ বার পড়া হয়েছে

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, বর্তমান সরকারের আমলে কারও নিরাপত্তা নেই। তারা ৭২ থেকে ৭৫ সালে রক্ষীবাহিনী করে হাজার হাজার তরুণ ও মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যা করেছিল।

ঠিক একইভাবে আজ র‍্যাব বাংলাদেশের মানুষের ওপর কী রকম নির্যাতন নিপীড়ন চালাচ্ছে তা দেশবাসী সবাই জানে। শনিবার (১৫ এপ্রিল) জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।খন্দকার মোশাররফ বলেন, আজ যেভাবে বেঁচে আছি, সেটাকে বেঁচে থাকা বলে না। কেউ কথা বলতে পারে না। ফেসবুকে কমেন্ট করতে পারে না। সাংবাদিকদের নির্যাতন করা হচ্ছে।

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি তার বড় প্রমাণ। এই মামলার শুনানি আজকে ১০০ বার সময় পিছিয়েছে। সাংবাদিকদের কোনো স্বাধীনতা নেই। তিনি বলেন, এই সরকারের আমলে আমাদের ৬ শতাধিক নেতাকর্মীকে গুম করেছে, এখন হাজারের বেশি বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে। বিএনপির ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ১ লাখের ওপর মিথ্যা মামলা দিয়েছে।

অতএব ক্ষমতাসীন সরকার যদি সোজা পথে না আসে তাহলে অতীতে যেভাবে গণঅভ্যুত্থান ঘটিয়ে স্বৈরাচার হটিয়েছিল তেমনই ঘটবে। অতীতে স্বৈরাচার আইয়ুব টিকতে পারেনি। স্বৈরাচার এরশাদ টিকতে পারেনি। এই আওয়ামী লীগও পারবে না। আমি মনে করি সময় বেশি নেই এ দেশের মানুষ ঘুরে দাঁড়াবে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

বর্তমান সরকারের আমলে কারও নিরাপত্তা নেই : খন্দকার মোশাররফ

আপডেট সময় ০৫:২৯:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৩

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, বর্তমান সরকারের আমলে কারও নিরাপত্তা নেই। তারা ৭২ থেকে ৭৫ সালে রক্ষীবাহিনী করে হাজার হাজার তরুণ ও মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যা করেছিল।

ঠিক একইভাবে আজ র‍্যাব বাংলাদেশের মানুষের ওপর কী রকম নির্যাতন নিপীড়ন চালাচ্ছে তা দেশবাসী সবাই জানে। শনিবার (১৫ এপ্রিল) জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।খন্দকার মোশাররফ বলেন, আজ যেভাবে বেঁচে আছি, সেটাকে বেঁচে থাকা বলে না। কেউ কথা বলতে পারে না। ফেসবুকে কমেন্ট করতে পারে না। সাংবাদিকদের নির্যাতন করা হচ্ছে।

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি তার বড় প্রমাণ। এই মামলার শুনানি আজকে ১০০ বার সময় পিছিয়েছে। সাংবাদিকদের কোনো স্বাধীনতা নেই। তিনি বলেন, এই সরকারের আমলে আমাদের ৬ শতাধিক নেতাকর্মীকে গুম করেছে, এখন হাজারের বেশি বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে। বিএনপির ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ১ লাখের ওপর মিথ্যা মামলা দিয়েছে।

অতএব ক্ষমতাসীন সরকার যদি সোজা পথে না আসে তাহলে অতীতে যেভাবে গণঅভ্যুত্থান ঘটিয়ে স্বৈরাচার হটিয়েছিল তেমনই ঘটবে। অতীতে স্বৈরাচার আইয়ুব টিকতে পারেনি। স্বৈরাচার এরশাদ টিকতে পারেনি। এই আওয়ামী লীগও পারবে না। আমি মনে করি সময় বেশি নেই এ দেশের মানুষ ঘুরে দাঁড়াবে।