০৫:৫৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

‘বিএনপির দাবির বিষয়ে বিদেশি বন্ধুরা কিছুই বলেনি’

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ১১:২২:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ মে ২০২৩
  • / ৫২ বার পড়া হয়েছে

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি যে তিনটি দাবি নিয়ে মাঠে নেমেছে। তার ব্যাপারে বিদেশি বন্ধুরা সরকারের কাছে কোনো প্রস্তাবও করেনি, কোনো চাপও সৃষ্টি করেনি।

বুধবার (১০ মে) দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে ‘সাব-রেজিওনাল মিটিং অ্যান্ড ক্যাপাসিটি বিল্ডিং ওয়ার্কশপ অন এক্সিলারেটিং দ্য ট্রানজিশন টু ইলেকট্রিক মোবিলিটি ইন এশিয়া অ্যান্ড দ্য প্যাসিফিক’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকারের পদত্যাগ, পার্লামেন্টের বিরতি ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি নিয়ে বিএনপি মাঠে নেমেছে।

কিন্তু এই তিনটির কোনটির ব্যাপারে বিদেশি বন্ধুরা একটি শব্দও উচ্চারণ করেনি। এমনকি তারা আমাদের কোনো চাপও সৃষ্টি করেনি। তবে হ্যাঁ, বাংলাদেশে তারা ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার ইলেকশন চায়। সেতুমন্ত্রী বলেন, নির্বাচনে অংশগ্রহণ বিএনপির অধিকার। এখানে সরকার তাদের আমন্ত্রণ করে ডেকে আনবে না। এটা তাদের অধিকার, এটা তাদের জন্য একটা সুযোগ না। গণতান্ত্রিক অধিকারের প্রয়োগ রাজনৈতিক দল হিসেবে নেওয়া প্রয়োজন। আমরা তাদের কোনো ফাঁদে ফেলছি না। আমরা তাদের কোনো প্রলোভন দেখাচ্ছি না।

সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশের সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেভাবে নির্বাচন হয় বাংলাদেশেও সেভাবে নির্বাচন হবে। গণতান্ত্রিক অধিকার তাদের (বিএনপি) নিজেদের প্রয়োগ করা উচিত, ইলেকশনে আসাটা তাদের নিজেদের বিষয়। বিএনপি কেন আওয়ামী লীগকে বিশ্বাস করছে না? আওয়ামী লীগ কী তাদের কোনো প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল?

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

‘বিএনপির দাবির বিষয়ে বিদেশি বন্ধুরা কিছুই বলেনি’

আপডেট সময় ১১:২২:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ মে ২০২৩

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি যে তিনটি দাবি নিয়ে মাঠে নেমেছে। তার ব্যাপারে বিদেশি বন্ধুরা সরকারের কাছে কোনো প্রস্তাবও করেনি, কোনো চাপও সৃষ্টি করেনি।

বুধবার (১০ মে) দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে ‘সাব-রেজিওনাল মিটিং অ্যান্ড ক্যাপাসিটি বিল্ডিং ওয়ার্কশপ অন এক্সিলারেটিং দ্য ট্রানজিশন টু ইলেকট্রিক মোবিলিটি ইন এশিয়া অ্যান্ড দ্য প্যাসিফিক’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকারের পদত্যাগ, পার্লামেন্টের বিরতি ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি নিয়ে বিএনপি মাঠে নেমেছে।

কিন্তু এই তিনটির কোনটির ব্যাপারে বিদেশি বন্ধুরা একটি শব্দও উচ্চারণ করেনি। এমনকি তারা আমাদের কোনো চাপও সৃষ্টি করেনি। তবে হ্যাঁ, বাংলাদেশে তারা ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার ইলেকশন চায়। সেতুমন্ত্রী বলেন, নির্বাচনে অংশগ্রহণ বিএনপির অধিকার। এখানে সরকার তাদের আমন্ত্রণ করে ডেকে আনবে না। এটা তাদের অধিকার, এটা তাদের জন্য একটা সুযোগ না। গণতান্ত্রিক অধিকারের প্রয়োগ রাজনৈতিক দল হিসেবে নেওয়া প্রয়োজন। আমরা তাদের কোনো ফাঁদে ফেলছি না। আমরা তাদের কোনো প্রলোভন দেখাচ্ছি না।

সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশের সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেভাবে নির্বাচন হয় বাংলাদেশেও সেভাবে নির্বাচন হবে। গণতান্ত্রিক অধিকার তাদের (বিএনপি) নিজেদের প্রয়োগ করা উচিত, ইলেকশনে আসাটা তাদের নিজেদের বিষয়। বিএনপি কেন আওয়ামী লীগকে বিশ্বাস করছে না? আওয়ামী লীগ কী তাদের কোনো প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল?