১০:৫৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪

‘সব কালো আইন বাতিল করা হবে’ খন্দকার মোশাররফ

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৬:৫২:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৫১ বার পড়া হয়েছে

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে এ সরকারকে বিদায় করে সব কালো আইন বাতিল করা হবে।রোববার (২ এপ্রিল) দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

নওগাঁয় সুলতানা জেসমিনকে হত্যা ও সাংবাদিক শামসুজ্জামানকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে এ সভার আয়োজন করে নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম। খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন অনতিবিলম্বে বাতিল করতে হবে। এই স্বৈরশাসককে বিদায় করার জন্য জনগণ জেগে উঠেছে। যার যার অবস্থান থেকে প্রস্তুতি নিন। মনে রাখবেন কোনো স্বৈরশাসক নিজের ইচ্ছায় ক্ষমতা ছাড়ে না।

পাকিস্তান আমলে আইয়ুব খানকে দেশের মানুষ গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে বিদায় করেছে। স্বৈরশাসক এরশাদকে গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে বিদায় করা হয়েছে। এ সরকারকেও বিদায় করা হবে। তিনি বলেন, এখন সরকারের অধীনস্থ কর্মকর্তারাও হতাশ ও দিশেহারা। স্বৈরাচারী সরকারের হুকুমে তারা যে অন্যায়গুলো করেছে ভবিষ্যতে তাদের জবাবদিহি করতে হবে। এ জন্য তারা নার্ভাস ফিল করছে। সরকারের নির্দেশে র‍্যাব ছয় শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মীকে গুম করেছে। হাজারেরও বেশি নেতাকর্মীকে হত্যা করা হয়েছে।

মিথ্যা ও বানোয়াট মামলার তো অভাব নেই। সংগঠনের আহ্বায়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম রহমানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব নিপুণ রায় চৌধুরীর সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ প্রমুখ।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

‘সব কালো আইন বাতিল করা হবে’ খন্দকার মোশাররফ

আপডেট সময় ০৬:৫২:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ এপ্রিল ২০২৩

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে এ সরকারকে বিদায় করে সব কালো আইন বাতিল করা হবে।রোববার (২ এপ্রিল) দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

নওগাঁয় সুলতানা জেসমিনকে হত্যা ও সাংবাদিক শামসুজ্জামানকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে এ সভার আয়োজন করে নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম। খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন অনতিবিলম্বে বাতিল করতে হবে। এই স্বৈরশাসককে বিদায় করার জন্য জনগণ জেগে উঠেছে। যার যার অবস্থান থেকে প্রস্তুতি নিন। মনে রাখবেন কোনো স্বৈরশাসক নিজের ইচ্ছায় ক্ষমতা ছাড়ে না।

পাকিস্তান আমলে আইয়ুব খানকে দেশের মানুষ গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে বিদায় করেছে। স্বৈরশাসক এরশাদকে গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে বিদায় করা হয়েছে। এ সরকারকেও বিদায় করা হবে। তিনি বলেন, এখন সরকারের অধীনস্থ কর্মকর্তারাও হতাশ ও দিশেহারা। স্বৈরাচারী সরকারের হুকুমে তারা যে অন্যায়গুলো করেছে ভবিষ্যতে তাদের জবাবদিহি করতে হবে। এ জন্য তারা নার্ভাস ফিল করছে। সরকারের নির্দেশে র‍্যাব ছয় শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মীকে গুম করেছে। হাজারেরও বেশি নেতাকর্মীকে হত্যা করা হয়েছে।

মিথ্যা ও বানোয়াট মামলার তো অভাব নেই। সংগঠনের আহ্বায়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম রহমানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব নিপুণ রায় চৌধুরীর সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ প্রমুখ।