০৫:৩৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

বিক্ষোভে রণক্ষেত্র পাকিস্তান, নিহত বেড়ে ৮

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৯:২১:৫৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ মে ২০২৩
  • / ৪৮ বার পড়া হয়েছে

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে দেশটিতে বিক্ষোভ ও সহিংসতা ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। এতে এখন পর্যন্ত আটজন নিহত হয়েছেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে গণগ্রেপ্তার শুরু করেছে পুলিশ। এখন পর্যন্ত প্রায় এক হাজার মানুষকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ মে) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ৯ মে ইসলামাবাদ হাইকোর্টের বাইরে থেকে ইমরান খান গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকেই পাকিস্তানজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পাকিস্তানের অনেক এলাকায় সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হচ্ছে। বিক্ষুব্ধ জনতা সামরিক সম্পত্তিতে হামলার পর কঠোর সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

এক বিক্ষোভকারী বিবিসিকে বলেন, মৃত্যুর আগ পর্যন্ত আমরা প্রতিবাদ চালিয়ে যাব বা যতক্ষণ না তারা ইমরান খানকে মুক্ত করে। অন্যথায় আমরা সারাদেশ অচল করে দেব। পিটিআই চেয়ারম্যানের সমর্থকরা রাওয়ালপিন্ডিতে পাকিস্তানের সেনা সদর দপ্তর এবং লাহোরে সেনাবাহিনীর কর্পস কমান্ডারের বাসভবনে হামলা চালিয়েছে। রাষ্ট্রের সম্পত্তিতে ফের হামলা হলে চরম জবাব দেওয়া হবে বলে সতর্ক করেছে সেনাবাহিনী।এদিকে জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে তিনি বলেন, সহিংস বিক্ষোভ সহ্য করা হবে না। যারা আইন নিজের হাতে তুলে নেয়, তাদের কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে।

এদিকে দুর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) চেয়ারম্যান ইমরান খান। তবে আদালতে দোষী সাব্যস্ত হলে আজীবনের জন্য প্রধানমন্ত্রী পদে নির্বাচনে দাঁড়াতে অযোগ্য হতে পারেন তিনি। চলতি বছরের শেষের দিকে পাকিস্তানে জাতীয় নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

বিক্ষোভে রণক্ষেত্র পাকিস্তান, নিহত বেড়ে ৮

আপডেট সময় ০৯:২১:৫৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ মে ২০২৩

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে দেশটিতে বিক্ষোভ ও সহিংসতা ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। এতে এখন পর্যন্ত আটজন নিহত হয়েছেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে গণগ্রেপ্তার শুরু করেছে পুলিশ। এখন পর্যন্ত প্রায় এক হাজার মানুষকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ মে) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ৯ মে ইসলামাবাদ হাইকোর্টের বাইরে থেকে ইমরান খান গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকেই পাকিস্তানজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পাকিস্তানের অনেক এলাকায় সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হচ্ছে। বিক্ষুব্ধ জনতা সামরিক সম্পত্তিতে হামলার পর কঠোর সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

এক বিক্ষোভকারী বিবিসিকে বলেন, মৃত্যুর আগ পর্যন্ত আমরা প্রতিবাদ চালিয়ে যাব বা যতক্ষণ না তারা ইমরান খানকে মুক্ত করে। অন্যথায় আমরা সারাদেশ অচল করে দেব। পিটিআই চেয়ারম্যানের সমর্থকরা রাওয়ালপিন্ডিতে পাকিস্তানের সেনা সদর দপ্তর এবং লাহোরে সেনাবাহিনীর কর্পস কমান্ডারের বাসভবনে হামলা চালিয়েছে। রাষ্ট্রের সম্পত্তিতে ফের হামলা হলে চরম জবাব দেওয়া হবে বলে সতর্ক করেছে সেনাবাহিনী।এদিকে জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে তিনি বলেন, সহিংস বিক্ষোভ সহ্য করা হবে না। যারা আইন নিজের হাতে তুলে নেয়, তাদের কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে।

এদিকে দুর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) চেয়ারম্যান ইমরান খান। তবে আদালতে দোষী সাব্যস্ত হলে আজীবনের জন্য প্রধানমন্ত্রী পদে নির্বাচনে দাঁড়াতে অযোগ্য হতে পারেন তিনি। চলতি বছরের শেষের দিকে পাকিস্তানে জাতীয় নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে।