০৯:১১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

বৃষ্টিতে ভেস্তে গেল টাইগারদের প্রথম ওয়ানডে

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৯:৫২:৪৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ মে ২০২৩
  • / ৬০ বার পড়া হয়েছে

চেমসফোর্ডে বৃষ্টির আভাস আগেই দিয়েছিল আবহাওয়া অফিস। তবে বাংলাদেশ পুরো ইনিংস ব্যাটিং করায় ম্যাচ নিয়ে আশায় ছিল সকলে। কিন্তু আইরিশরা রান তাড়ায় মাত্র ১৬ ওভার ৩ বল ব্যাটিং করতেই বেরসিক বৃষ্টি নামে। এরপর আর বল মাঠে না গড়ানোয় ম্যাচটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

আইসিসির নিয়ম বলে, কোনো ওয়ানডে ম্যাচের ফল নির্ধারণের জন্য দ্বিতীয় ইনিংসে অন্তত ২০ ওভারের খেলা মাঠে গড়াতে হয়। তবে আয়ারল্যান্ডের ইনিংসে ২১ বল আগেই অর্থাৎ ১৬ ওভার ৩ বলে মাঠে গড়ানোয়, ম্যাচ বৃষ্টি আইন কার্যকর করেননি ম্যাচ রেফারি। মঙ্গলবার (৯ মে) চেমসফোর্ডের কাউন্ট্রি গ্রাউন্ডে বাংলাদেশের দেওয়া ২৪৭ রান তাড়া করতে নেমে ধীরগতির শুরু করেন দুই আইরিশ ওপেনার পল স্টার্লিং ও স্টিফেন ডোহেনি। তবে আইরিশদের ওপেনিং জুটি ভাঙতে খুব বেশি সময় লাগেনি বাংলাদেশি বোলারদের।

চতুর্থ ওভারের তৃতীয় বলে অফ স্টাম্পের বাইরে শরিফুলের লেন্থ ডেলিভারিতে কাট করতে গিয়ে ব্যাকওয়াড পয়েন্টে মেহেদি হাসান মিরাজের হাতে ধরা পড়েন স্টার্লিং। বিদায়ের আগে এই ওপেনারের ব্যাট থেকে এসেছে ১৫ রান। শরীফুলের দেখাদেখি উইকেট তুলে নেন আরেক পেসার হাসান মাহমুদও। নিজের তৃতীয় ও ইনিংসের পঞ্চম ওভারে হাসানের ফুল লেন্থে করা শেষ বলে ব্যাট চালিয়ে বোকা বনে যান অ্যান্ড্রু বার্লর্বিনি। তার ইনসুইং বোলিংয়ে পরাস্ত হয়ে বোল্ড হয়েছেন ৫ রান করা আইরিশ অধিনায়ক। এরপর তৃতীয় উইকেট জুটিতে ডোহেনি ও হ্যারি টেক্টর জুটি গড়ে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন।

তবে দলীয় ৬৩ রানের মাথায় তাইজুল ইসলামের বলে তারই হাতে ক্যাচ দিয়ে বসেন ডোহেনি। ফলে টেক্টরের সঙ্গে ৩৬ রানের জুটি ভেঙে যায়। বিদায়ের আগে ৩৯ বলে ১৭ রান করেন আইরিশ এই ওপেনার। এরপর উইকেট লোরকার টাকার ক্রিজে আসেন। পরের ওভারে এবাদত হোসেনের বলে টেক্টরের ব্যাটে না লাগলেও রিভিউ নিয়ে হতাশ হন টাইগাররা। এ রিভিউয়ের পরপরই আকাশে কালো মেঘের সাথে বৃষ্টি নামে। এরপর ম্যাচ অফিসিয়ালরা ম্যাচ মাঠে গড়ানোর জন্য অপেক্ষা করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর ম্যাচে বল মাঠে না গড়ানোয় শেষ পর্যন্ত খেলা পরিত্যক্ত ঘোষণা করে দিয়েছেন।

এর আগে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ দল। তবে ইনিংসের প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে রানের খাতা না খুলেই গোল্ডেন ডাক মারেন লিটন দাস। তিনে নেমে নাজমুল শান্ত অধিনায়ক তামিমকে ভালোই সঙ্গ দিচ্ছিলেন। তবে চতুর্থ ওভারে মার্ক এডেয়ারের বলে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে ১৪ রানে ব্যাট করা তামিম আউট হয়ে যান। দুই ওপেনার বিদায় নিলেও শান্ত-সাকিবের ব্যাটে ভালোই এগোচ্ছিল টাইগাররা। এর মধ্যে প্রথম পাওয়ার প্লেতে দলের রান পঞ্চাশও ছাড়িয়ে গেছিল সফরকারীরা। কিন্তু বেশিক্ষণ থিতু হতে পারেননি সাকিব। ২১ বলে ২০ রান করা বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার গ্রাহাম হিউমের বল উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্লিন বোল্ড হয়ে যান।

পরে আশা বাঁচিয়ে রেখে দলকে একা হাতে টেনে নিয়ে যাচ্ছিলেন শান্ত। দলীয় ১০২ রানের মাথায় ফিফটির কাছাকাছি গিয়ে কার্টিশ ক্যাম্ফারের বলে এডেয়ারের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন তিনি। এরপর তাওহিদ হৃদয় ও অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে রানের আশায় ছিল টাইগাররা। জন্মদিনে মুশফিকুর রহিম ৬১ আর হৃদয়-মিরাজের জোড়া ২৭ রানের ইনিংসে ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৪৬ রান সংগ্রহ করেছিল বাংলাদেশ। বোলিংয়ে ৬১ রানে ৩ উইকেট শিকার করে ইনিংসের সেরা বোলার লিটল। দুটি করে উইকেট পান মার্ক এডেয়ার ও গ্রাহাম হিউম। এ ছাড়া একটি করে উইকেট পান কার্টিশ ক্যাম্ফার ও জর্জ ডকরেল।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

বৃষ্টিতে ভেস্তে গেল টাইগারদের প্রথম ওয়ানডে

আপডেট সময় ০৯:৫২:৪৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ মে ২০২৩

চেমসফোর্ডে বৃষ্টির আভাস আগেই দিয়েছিল আবহাওয়া অফিস। তবে বাংলাদেশ পুরো ইনিংস ব্যাটিং করায় ম্যাচ নিয়ে আশায় ছিল সকলে। কিন্তু আইরিশরা রান তাড়ায় মাত্র ১৬ ওভার ৩ বল ব্যাটিং করতেই বেরসিক বৃষ্টি নামে। এরপর আর বল মাঠে না গড়ানোয় ম্যাচটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

আইসিসির নিয়ম বলে, কোনো ওয়ানডে ম্যাচের ফল নির্ধারণের জন্য দ্বিতীয় ইনিংসে অন্তত ২০ ওভারের খেলা মাঠে গড়াতে হয়। তবে আয়ারল্যান্ডের ইনিংসে ২১ বল আগেই অর্থাৎ ১৬ ওভার ৩ বলে মাঠে গড়ানোয়, ম্যাচ বৃষ্টি আইন কার্যকর করেননি ম্যাচ রেফারি। মঙ্গলবার (৯ মে) চেমসফোর্ডের কাউন্ট্রি গ্রাউন্ডে বাংলাদেশের দেওয়া ২৪৭ রান তাড়া করতে নেমে ধীরগতির শুরু করেন দুই আইরিশ ওপেনার পল স্টার্লিং ও স্টিফেন ডোহেনি। তবে আইরিশদের ওপেনিং জুটি ভাঙতে খুব বেশি সময় লাগেনি বাংলাদেশি বোলারদের।

চতুর্থ ওভারের তৃতীয় বলে অফ স্টাম্পের বাইরে শরিফুলের লেন্থ ডেলিভারিতে কাট করতে গিয়ে ব্যাকওয়াড পয়েন্টে মেহেদি হাসান মিরাজের হাতে ধরা পড়েন স্টার্লিং। বিদায়ের আগে এই ওপেনারের ব্যাট থেকে এসেছে ১৫ রান। শরীফুলের দেখাদেখি উইকেট তুলে নেন আরেক পেসার হাসান মাহমুদও। নিজের তৃতীয় ও ইনিংসের পঞ্চম ওভারে হাসানের ফুল লেন্থে করা শেষ বলে ব্যাট চালিয়ে বোকা বনে যান অ্যান্ড্রু বার্লর্বিনি। তার ইনসুইং বোলিংয়ে পরাস্ত হয়ে বোল্ড হয়েছেন ৫ রান করা আইরিশ অধিনায়ক। এরপর তৃতীয় উইকেট জুটিতে ডোহেনি ও হ্যারি টেক্টর জুটি গড়ে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন।

তবে দলীয় ৬৩ রানের মাথায় তাইজুল ইসলামের বলে তারই হাতে ক্যাচ দিয়ে বসেন ডোহেনি। ফলে টেক্টরের সঙ্গে ৩৬ রানের জুটি ভেঙে যায়। বিদায়ের আগে ৩৯ বলে ১৭ রান করেন আইরিশ এই ওপেনার। এরপর উইকেট লোরকার টাকার ক্রিজে আসেন। পরের ওভারে এবাদত হোসেনের বলে টেক্টরের ব্যাটে না লাগলেও রিভিউ নিয়ে হতাশ হন টাইগাররা। এ রিভিউয়ের পরপরই আকাশে কালো মেঘের সাথে বৃষ্টি নামে। এরপর ম্যাচ অফিসিয়ালরা ম্যাচ মাঠে গড়ানোর জন্য অপেক্ষা করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর ম্যাচে বল মাঠে না গড়ানোয় শেষ পর্যন্ত খেলা পরিত্যক্ত ঘোষণা করে দিয়েছেন।

এর আগে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ দল। তবে ইনিংসের প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে রানের খাতা না খুলেই গোল্ডেন ডাক মারেন লিটন দাস। তিনে নেমে নাজমুল শান্ত অধিনায়ক তামিমকে ভালোই সঙ্গ দিচ্ছিলেন। তবে চতুর্থ ওভারে মার্ক এডেয়ারের বলে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে ১৪ রানে ব্যাট করা তামিম আউট হয়ে যান। দুই ওপেনার বিদায় নিলেও শান্ত-সাকিবের ব্যাটে ভালোই এগোচ্ছিল টাইগাররা। এর মধ্যে প্রথম পাওয়ার প্লেতে দলের রান পঞ্চাশও ছাড়িয়ে গেছিল সফরকারীরা। কিন্তু বেশিক্ষণ থিতু হতে পারেননি সাকিব। ২১ বলে ২০ রান করা বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার গ্রাহাম হিউমের বল উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্লিন বোল্ড হয়ে যান।

পরে আশা বাঁচিয়ে রেখে দলকে একা হাতে টেনে নিয়ে যাচ্ছিলেন শান্ত। দলীয় ১০২ রানের মাথায় ফিফটির কাছাকাছি গিয়ে কার্টিশ ক্যাম্ফারের বলে এডেয়ারের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন তিনি। এরপর তাওহিদ হৃদয় ও অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে রানের আশায় ছিল টাইগাররা। জন্মদিনে মুশফিকুর রহিম ৬১ আর হৃদয়-মিরাজের জোড়া ২৭ রানের ইনিংসে ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৪৬ রান সংগ্রহ করেছিল বাংলাদেশ। বোলিংয়ে ৬১ রানে ৩ উইকেট শিকার করে ইনিংসের সেরা বোলার লিটল। দুটি করে উইকেট পান মার্ক এডেয়ার ও গ্রাহাম হিউম। এ ছাড়া একটি করে উইকেট পান কার্টিশ ক্যাম্ফার ও জর্জ ডকরেল।