১২:৫৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

মাইলফলক ছোঁয়ার রাতে রোনালদোকেও ছাড়িয়েছেন মেসি

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০১:০৮:২৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৭২ বার পড়া হয়েছে

প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) আর কতদিন আর্জেন্টাইন মহাতারকা লিওনেল মেসি খেলছেন, তা এখনও নিশ্চিত না। কিন্তু ক্লাব সমর্থকদের দুয়োধ্বনি আর মেসির প্রতি ক্লাবটির সাম্প্রতিক দৃষ্টিভঙ্গি বলেই দিচ্ছে তিক্ত অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে সময় পার করছেন সাতবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী এই ফুটবলার।

তবে সব কিছু ছাপিয়েই নিজেকে মেলে ধরছেন বিশ্বকাপজয়ী এই মহাতারকা। টানা দুই ম্যাচে হারের পর মেসির গোলে স্বস্তির হাসি ফরাসি ক্লাবটির শিবিরে। এর সঙ্গে রেকর্ডবইয়েও নাম লিখিয়েছেন মেসি। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকেও ছাড়িয়ে গেছেন পিএসজির এই ফরোয়ার্ড। বর্তমানে ইউরোপীয় ক্লাবে নেই পর্তুগিজ সুপারস্টার রোনালদো, তবে রয়ে গেছে তার গড়া রেকর্ড।

এতদিন ৭০১তম গোল নিয়ে ইউরোপের শীর্ষ লিগে সমান গোলের মালিক ছিলেন এই দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। এবার সিআর সেভেনকে ছাড়িয়ে গেছেন মেসি। শনিবার (৮ এপ্রিল) রাতে ফরাসি লিগ ওয়ানের ৩০ রাউন্ডের ম্যাচে নিসের বিপক্ষে ২-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে পিএসজি। এদিন দারুণ এক গোলে পিএসজিকে লিড এনে দেন মেসি। এর মধ্য দিয়েই ইউরোপের ক্লাব ফুটবলে মেসির গোলসংখ্যা ৭০২-এ দাঁড়িয়েছে।

ইউরোপীয় ক্লাবের হয়ে ৭০১ গোল করতে ৯৪৯ ম্যাচ খেলেছেন আল-নাসরের স্ট্রাইকার রোনালদো। অন্যদিকে ৮৪১ ম্যাচেই ৭০২ গোল করে রোনালদোকে ছাড়িয়ে গেলেন পিএসজির এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। ২০০৫ সালে অভিষেকের পর বার্সার হয়ে ৬৭২টি গোল করেছেন মেসি। আর পিএসজির জার্সিতে করেছেন আরও ৩০ গোল। ১৮ বছরের ক্যারিয়ারে মেসি এখন ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগের ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলের মালিক।

একই রাতে আরও এক মাইলফলকে নাম লিখিয়েছেন মেসি। নিসের বিপক্ষে নামার আগে ৯৯৮ গোলে অবদান ছিল বিশ্বকাপজয়ী এই অধিনায়কের। এদিন প্রথমে নিজের গোল করে ৯৯৯ নিয়ে যান। এরপর রামোসকে দিয়ে গোল করিয়ে এক হাজার গোলে অবদান রাখেন মেসি। ১০০০ গোলের মধ্যে মেসি নিজে করেছেন ৭০২টি আর অ্যাসিস্ট ২৯৮টি।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

মাইলফলক ছোঁয়ার রাতে রোনালদোকেও ছাড়িয়েছেন মেসি

আপডেট সময় ০১:০৮:২৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ এপ্রিল ২০২৩

প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) আর কতদিন আর্জেন্টাইন মহাতারকা লিওনেল মেসি খেলছেন, তা এখনও নিশ্চিত না। কিন্তু ক্লাব সমর্থকদের দুয়োধ্বনি আর মেসির প্রতি ক্লাবটির সাম্প্রতিক দৃষ্টিভঙ্গি বলেই দিচ্ছে তিক্ত অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে সময় পার করছেন সাতবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী এই ফুটবলার।

তবে সব কিছু ছাপিয়েই নিজেকে মেলে ধরছেন বিশ্বকাপজয়ী এই মহাতারকা। টানা দুই ম্যাচে হারের পর মেসির গোলে স্বস্তির হাসি ফরাসি ক্লাবটির শিবিরে। এর সঙ্গে রেকর্ডবইয়েও নাম লিখিয়েছেন মেসি। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকেও ছাড়িয়ে গেছেন পিএসজির এই ফরোয়ার্ড। বর্তমানে ইউরোপীয় ক্লাবে নেই পর্তুগিজ সুপারস্টার রোনালদো, তবে রয়ে গেছে তার গড়া রেকর্ড।

এতদিন ৭০১তম গোল নিয়ে ইউরোপের শীর্ষ লিগে সমান গোলের মালিক ছিলেন এই দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। এবার সিআর সেভেনকে ছাড়িয়ে গেছেন মেসি। শনিবার (৮ এপ্রিল) রাতে ফরাসি লিগ ওয়ানের ৩০ রাউন্ডের ম্যাচে নিসের বিপক্ষে ২-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে পিএসজি। এদিন দারুণ এক গোলে পিএসজিকে লিড এনে দেন মেসি। এর মধ্য দিয়েই ইউরোপের ক্লাব ফুটবলে মেসির গোলসংখ্যা ৭০২-এ দাঁড়িয়েছে।

ইউরোপীয় ক্লাবের হয়ে ৭০১ গোল করতে ৯৪৯ ম্যাচ খেলেছেন আল-নাসরের স্ট্রাইকার রোনালদো। অন্যদিকে ৮৪১ ম্যাচেই ৭০২ গোল করে রোনালদোকে ছাড়িয়ে গেলেন পিএসজির এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। ২০০৫ সালে অভিষেকের পর বার্সার হয়ে ৬৭২টি গোল করেছেন মেসি। আর পিএসজির জার্সিতে করেছেন আরও ৩০ গোল। ১৮ বছরের ক্যারিয়ারে মেসি এখন ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগের ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলের মালিক।

একই রাতে আরও এক মাইলফলকে নাম লিখিয়েছেন মেসি। নিসের বিপক্ষে নামার আগে ৯৯৮ গোলে অবদান ছিল বিশ্বকাপজয়ী এই অধিনায়কের। এদিন প্রথমে নিজের গোল করে ৯৯৯ নিয়ে যান। এরপর রামোসকে দিয়ে গোল করিয়ে এক হাজার গোলে অবদান রাখেন মেসি। ১০০০ গোলের মধ্যে মেসি নিজে করেছেন ৭০২টি আর অ্যাসিস্ট ২৯৮টি।