০৯:৪৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

মানিকগঞ্জে আকস্মিক ঘূর্ণিঝড়ে তিনগ্রাম বিপর্যস্ত

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় ০৭:১৩:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ অক্টোবর ২০২৩
  • / ১৯৭ বার পড়া হয়েছে

মানিকগঞ্জে আকস্মিক ঘূর্ণিঝড়ে তিনটি গ্রামের বাড়ি-ঘর, শতশত গাছপালা উপড়ে গেছে। এছাড়া ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা।

ঝড়ে বিপর্যস্ত সদর উপজেলার পুটাইল ইউনিয়নের ঘোস্তা, পশ্চিম হাসলী ও চান্দরা গ্রাম শুক্রবার সকালে পরিদর্শন করেছেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জ্যোতিশ্বর পাল এবং স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মহিদুর রহমান মহিদ।

বৃহস্পতিবার বিকালে ঝড়ে ওই তিন গ্রামের অনেকের বাড়িঘর আংশিক এবং কোনোটি পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। অনেকের ঘরের টিনের চালা ঝড়ে উড়ে কোথায় গিয়ে পড়ছে তার কোনো সন্ধান মেলেনি। ঝড়ের তাণ্ডবে ভেঙে গেছে শত শত গাছপালা। ঝড় পরবর্তী বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে এলাকাবাসী।

স্থানীয় বাসিন্দা সাবেক সেনা সদস্য মো. বোরহান আলী জানান, ঘূর্ণিঝড়ের সংবাদ পেয়ে রাতেই ঢাকা থেকে বাড়িতে চলে আসি। এসে দেখি ঘর-দরজা সব উড়িয়ে নিয়ে গেছে। ঘরের চালা এখনো খোঁজে পাইনি। একই গ্রামের ফোরকান আলী মাতাব্বরের ছেলে জলিলের বাড়ির টিনের চালা ঝড়ে কোথায় নিয়ে গেছে এখন সন্ধান মেলেনি বলে জানান তিনি।

এদিকে পুটাইল ইউপি চেয়ারম্যান তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে চাল, ডাল ও আলু বিতরণ করেছেন। উপজেলা কর্মকর্তা ক্ষতিগ্রস্তদের একটি তালিকা করে পাঠানোর জন্য ইউপি চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দিয়েছেন।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

মানিকগঞ্জে আকস্মিক ঘূর্ণিঝড়ে তিনগ্রাম বিপর্যস্ত

আপডেট সময় ০৭:১৩:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ অক্টোবর ২০২৩

মানিকগঞ্জে আকস্মিক ঘূর্ণিঝড়ে তিনটি গ্রামের বাড়ি-ঘর, শতশত গাছপালা উপড়ে গেছে। এছাড়া ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা।

ঝড়ে বিপর্যস্ত সদর উপজেলার পুটাইল ইউনিয়নের ঘোস্তা, পশ্চিম হাসলী ও চান্দরা গ্রাম শুক্রবার সকালে পরিদর্শন করেছেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জ্যোতিশ্বর পাল এবং স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মহিদুর রহমান মহিদ।

বৃহস্পতিবার বিকালে ঝড়ে ওই তিন গ্রামের অনেকের বাড়িঘর আংশিক এবং কোনোটি পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। অনেকের ঘরের টিনের চালা ঝড়ে উড়ে কোথায় গিয়ে পড়ছে তার কোনো সন্ধান মেলেনি। ঝড়ের তাণ্ডবে ভেঙে গেছে শত শত গাছপালা। ঝড় পরবর্তী বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে এলাকাবাসী।

স্থানীয় বাসিন্দা সাবেক সেনা সদস্য মো. বোরহান আলী জানান, ঘূর্ণিঝড়ের সংবাদ পেয়ে রাতেই ঢাকা থেকে বাড়িতে চলে আসি। এসে দেখি ঘর-দরজা সব উড়িয়ে নিয়ে গেছে। ঘরের চালা এখনো খোঁজে পাইনি। একই গ্রামের ফোরকান আলী মাতাব্বরের ছেলে জলিলের বাড়ির টিনের চালা ঝড়ে কোথায় নিয়ে গেছে এখন সন্ধান মেলেনি বলে জানান তিনি।

এদিকে পুটাইল ইউপি চেয়ারম্যান তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে চাল, ডাল ও আলু বিতরণ করেছেন। উপজেলা কর্মকর্তা ক্ষতিগ্রস্তদের একটি তালিকা করে পাঠানোর জন্য ইউপি চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দিয়েছেন।