০৫:৪২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

যে কারণে বাহরাইনি দ্বীপ কিনল ইসরাইল

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ১১:২৪:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মার্চ ২০২৩
  • / ৬৮ বার পড়া হয়েছে

US Treasury Secretary Steve Mnuchin (C) attends a signing ceremony between the head of the Israeli delegation, National Security Advisor Meir Ben Shabbat (L) and Bahraini Foreign Minister Abdullatif bin Rashid Al-Zayani, in the Bahraini capital Manama, on October 18, 2020. - Israel and Bahrain formalised in Manama a US-brokered agreement they signed at the White House on September 15, officially establishing diplomatic relations. (Photo by RONEN ZVULUN / POOL / AFP)

২০২০ সালে ইহুদি রাষ্ট্র ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করেছে বাহরাইন। এ নিয়ে দেশটিতে ব্যাপক প্রতিবাদ হয়েছে। সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এর মধ্যেই নতুন খবর বেরিয়েছে যে, ইসরাইল বাহরাইনের কাছ থেকে একটি দ্বীপ কিনে নিয়েছে।

মিডেল ইস্ট মনিটর আল-মায়াদিন টেলিভিশনের বরাত দিয়ে সম্প্রতি এ তথ্য জানিয়েছে। এতে বলা হয়, ইসরাইলের টিভি৭ প্রথম খবরটি প্রচার করলেও পরে তা সরিয়ে নেয়। কিন্তু সরানোর আগেই বেশ কিছু সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী এর স্ক্রিনশট নিতে সক্ষম হন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইসরাইলি ফার্ম হিমনোটা ২১ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে দ্বীপটি কিনেছে। ফার্মটি চালায় ইহুদি জাতীয় তহবিল বা জেএনএফ। কথিত দাতব্য সংস্থাটির কাজ হলো ফিলিস্তিনি ভূমি দখল এবং ইসরাইলের যুদ্ধাপরাধের পক্ষে সাফাই গাওয়া। খবরে বলা হয়েছে, ৯ হাজার ৫৫৪ বর্গ মিটারের দ্বীপটি বিনিয়োগ প্রকল্পের জন্য ব্যবহার করা হবে। পাশাপাশি কোনো কারণে যুদ্ধ শুরু হয়ে গেলে ইসরাইলিদের সেখানে সরিয়ে নেওয়া হবে।

কোম্পানির পরিচালনা পরিষদে থাকা অ্যাভেরি শ্নেয়ার বলেছেন, দ্বীপটির সার্বভৌমত্ব ইসরাইলের কাছে হস্তান্তরের জন্য বন্ধু দেশ বাহরাইন সরকারের সঙ্গে আলোচনা করা হবে। এ খবর সামনে আসার পর বাহরাইন সরকারের বিরুদ্ধে নানা সমালোচনা চলছে। মানবাধিকারকর্মী মরিয়ম আল খাজা দ্বীপ কেনার ঘটনাকে ঔপনিবেশিক শাসনের সম্প্রসারণ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

এ বিষয়ে টুইটারে দেওয়া পোস্টে দেশটির সরকারের কড়া সমালোচনা করেছেন তিনি। বাহরাইনের সাবেক আইনপ্রণেতা এবং সালম ফর ডেমোক্রেসি অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের প্রধান জাওয়াদ ফাইরুজ দ্বীপ বিক্রির ঘটনাকে খুবই বিপজ্জনক এবং উদ্বেগজনক সংকেত হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

যে কারণে বাহরাইনি দ্বীপ কিনল ইসরাইল

আপডেট সময় ১১:২৪:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মার্চ ২০২৩

২০২০ সালে ইহুদি রাষ্ট্র ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করেছে বাহরাইন। এ নিয়ে দেশটিতে ব্যাপক প্রতিবাদ হয়েছে। সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এর মধ্যেই নতুন খবর বেরিয়েছে যে, ইসরাইল বাহরাইনের কাছ থেকে একটি দ্বীপ কিনে নিয়েছে।

মিডেল ইস্ট মনিটর আল-মায়াদিন টেলিভিশনের বরাত দিয়ে সম্প্রতি এ তথ্য জানিয়েছে। এতে বলা হয়, ইসরাইলের টিভি৭ প্রথম খবরটি প্রচার করলেও পরে তা সরিয়ে নেয়। কিন্তু সরানোর আগেই বেশ কিছু সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী এর স্ক্রিনশট নিতে সক্ষম হন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইসরাইলি ফার্ম হিমনোটা ২১ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে দ্বীপটি কিনেছে। ফার্মটি চালায় ইহুদি জাতীয় তহবিল বা জেএনএফ। কথিত দাতব্য সংস্থাটির কাজ হলো ফিলিস্তিনি ভূমি দখল এবং ইসরাইলের যুদ্ধাপরাধের পক্ষে সাফাই গাওয়া। খবরে বলা হয়েছে, ৯ হাজার ৫৫৪ বর্গ মিটারের দ্বীপটি বিনিয়োগ প্রকল্পের জন্য ব্যবহার করা হবে। পাশাপাশি কোনো কারণে যুদ্ধ শুরু হয়ে গেলে ইসরাইলিদের সেখানে সরিয়ে নেওয়া হবে।

কোম্পানির পরিচালনা পরিষদে থাকা অ্যাভেরি শ্নেয়ার বলেছেন, দ্বীপটির সার্বভৌমত্ব ইসরাইলের কাছে হস্তান্তরের জন্য বন্ধু দেশ বাহরাইন সরকারের সঙ্গে আলোচনা করা হবে। এ খবর সামনে আসার পর বাহরাইন সরকারের বিরুদ্ধে নানা সমালোচনা চলছে। মানবাধিকারকর্মী মরিয়ম আল খাজা দ্বীপ কেনার ঘটনাকে ঔপনিবেশিক শাসনের সম্প্রসারণ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

এ বিষয়ে টুইটারে দেওয়া পোস্টে দেশটির সরকারের কড়া সমালোচনা করেছেন তিনি। বাহরাইনের সাবেক আইনপ্রণেতা এবং সালম ফর ডেমোক্রেসি অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের প্রধান জাওয়াদ ফাইরুজ দ্বীপ বিক্রির ঘটনাকে খুবই বিপজ্জনক এবং উদ্বেগজনক সংকেত হিসেবে উল্লেখ করেছেন।