০১:৩৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

যে সমীকরণে প্লে-অফে উঠতে পারে কেকেআর

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৭:৩০:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ মে ২০২৩
  • / ৭০ বার পড়া হয়েছে

চলতি আইপিএলে খুব একটা ভাল ফর্মে নেই কলকাতা নাইট রাইডার্স। তবে নিজেদের সবশেষ ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে হারিয়ে প্লে-অফের আশা বাঁচিয়ে রেখেছে কেকেআর ফ্রাঞ্চাইজি। কলকাতা এখন পর্যন্ত ১০ ম্যাচের মধ্যে চার জয়ের বিপরীতে ছয়টি ম্যাচে হেরে পয়েন্ট তালিকার আট নম্বরে আছে।

এই মুহূর্তে কলকাতার থেকে জয়ের সংখ্যার বিচারে উপরের দিকে রয়েছে সাতটি দল। তাই সমর্থকদের মনে প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে, প্লে-অফে ওঠার জন্য কী সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে আছে কেকেআর? প্লে-অফে জায়গা করে নিতে হলে সবার আগে বাকি চারটি ম্যাচেই জিততে হবে কলকাতার। সে ক্ষেত্রে তাদের পয়েন্ট দাঁড়াবে ১৬। এদিকে গুজরাট টাইটান্স সাত ম্যাচ জিতে প্লে-অফ মোটামুটি নিশ্চিত করে ফেলেছে। যদি বাকি দলগুলি সাতটি বা তার কম ম্যাচ জেতে, তা হলে সহজেই পরের পর্বে যাবে কলকাতা।

গেল আসরেও দশ দলের আইপিএল হয়েছিল। সেবার চতুর্থ দল হিসাবে প্লে-অফে উঠেছিল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। তাদের পয়েন্ট ছিল ১৬। তবে মাত্র দুই পয়েন্ট কম থাকায় অল্পের জন্য দিল্লি এবং রাজস্থান প্লে-অফে উঠতে পারেনি। এই মুহূর্তে চতুর্থ স্থানে থাকা রাজস্থানের সঙ্গে কেকেআরের পয়েন্টের পার্থক্য মাত্র দুই। কেকেআরের রান রেট যদি আর একটু ভালো হয়, তা হলে আর একটি ম্যাচ জিতলেই তারা চতুর্থ স্থানে উঠে পড়তে পারে।

এই মুহূর্তে আইপিএলে প্রথম চারটি দল যারা, তাদের কারওরই রান রেটে মাইনাসে নেই। ফলে কলকাতাকে শুধু বাকি চারটি ম্যাচে জিতলেই হবে না, রান রেটও অনেকটা বাড়াতে হবে। রাজস্থানের রান রেট যেখানে ০.৪৪৮, সেখানে কলকাতা -০.১০৩।অর্থাৎ আগামী দু’তিনটি ম্যাচে বড় ব্যবধানে জিততে হবে কলকাতাকে। একইসঙ্গে আশা করতে হবে যেন উপরের দিকে থাকা চারটি দলও রান রেট বাড়াতে না পারে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

যে সমীকরণে প্লে-অফে উঠতে পারে কেকেআর

আপডেট সময় ০৭:৩০:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ মে ২০২৩

চলতি আইপিএলে খুব একটা ভাল ফর্মে নেই কলকাতা নাইট রাইডার্স। তবে নিজেদের সবশেষ ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে হারিয়ে প্লে-অফের আশা বাঁচিয়ে রেখেছে কেকেআর ফ্রাঞ্চাইজি। কলকাতা এখন পর্যন্ত ১০ ম্যাচের মধ্যে চার জয়ের বিপরীতে ছয়টি ম্যাচে হেরে পয়েন্ট তালিকার আট নম্বরে আছে।

এই মুহূর্তে কলকাতার থেকে জয়ের সংখ্যার বিচারে উপরের দিকে রয়েছে সাতটি দল। তাই সমর্থকদের মনে প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে, প্লে-অফে ওঠার জন্য কী সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে আছে কেকেআর? প্লে-অফে জায়গা করে নিতে হলে সবার আগে বাকি চারটি ম্যাচেই জিততে হবে কলকাতার। সে ক্ষেত্রে তাদের পয়েন্ট দাঁড়াবে ১৬। এদিকে গুজরাট টাইটান্স সাত ম্যাচ জিতে প্লে-অফ মোটামুটি নিশ্চিত করে ফেলেছে। যদি বাকি দলগুলি সাতটি বা তার কম ম্যাচ জেতে, তা হলে সহজেই পরের পর্বে যাবে কলকাতা।

গেল আসরেও দশ দলের আইপিএল হয়েছিল। সেবার চতুর্থ দল হিসাবে প্লে-অফে উঠেছিল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। তাদের পয়েন্ট ছিল ১৬। তবে মাত্র দুই পয়েন্ট কম থাকায় অল্পের জন্য দিল্লি এবং রাজস্থান প্লে-অফে উঠতে পারেনি। এই মুহূর্তে চতুর্থ স্থানে থাকা রাজস্থানের সঙ্গে কেকেআরের পয়েন্টের পার্থক্য মাত্র দুই। কেকেআরের রান রেট যদি আর একটু ভালো হয়, তা হলে আর একটি ম্যাচ জিতলেই তারা চতুর্থ স্থানে উঠে পড়তে পারে।

এই মুহূর্তে আইপিএলে প্রথম চারটি দল যারা, তাদের কারওরই রান রেটে মাইনাসে নেই। ফলে কলকাতাকে শুধু বাকি চারটি ম্যাচে জিতলেই হবে না, রান রেটও অনেকটা বাড়াতে হবে। রাজস্থানের রান রেট যেখানে ০.৪৪৮, সেখানে কলকাতা -০.১০৩।অর্থাৎ আগামী দু’তিনটি ম্যাচে বড় ব্যবধানে জিততে হবে কলকাতাকে। একইসঙ্গে আশা করতে হবে যেন উপরের দিকে থাকা চারটি দলও রান রেট বাড়াতে না পারে।