০৯:০৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

রোজার প্রথম সপ্তাহে কমবে চিনির দাম : বাণিজ্যমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৩:৩৯:১০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মার্চ ২০২৩
  • / ৬৯ বার পড়া হয়েছে

রোজার প্রথম সপ্তাহে চিনির দাম কমবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।রোববার (১৯ মার্চ) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে দ্রব্যমূল্য ও বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত টাস্কফোর্সের সভা শেষে তিনি এ কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, শুল্ক ছাড় দেওয়ার কারণে চিনিতে সাড়ে চার টাকার মতো কমানো যাবে। আমরা ব্যবসায়ীদের পাঁচ টাকা কমানোর অনুরোধ জানালে তারা রাজি হয়। আশা করছি রোজার প্রথম সপ্তাহেই চিনির দাম কেজিতে পাঁচ টাকা কমবে। রমজানকে সামনে রেখে বাজার মনিটরিং প্রসঙ্গে টিপু মুনশি বলেন, আমরা সোমবার (২০ মার্চ) থেকে বাজার মনিটরিং করব। শুল্ক কমানোর পর বাজারে কী প্রভাব পড়ছে, তা পর্যবেক্ষণ করব।

দেশে প্রচুর তেল ও চিনির মজুত রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ভয়ের কোনো কারণ নেই। বাজারে কোনোভাবেই সংকট তৈরি হবে না। জিনিসপত্রের দাম সহনীয় রাখতে সরকার নানাভাবে চেষ্টা করছে। সরকারের কাছে যে মজুত আছে, তাতে কোনোভাবেই দাম বাড়বে না। কেউ বাড়ানোর চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, রমজানে যা প্রয়োজন, তার মজুত এখন দেড়গুণ আছে। তাই দাম বাড়ার কোনো কারণ নেই।

যদি কেউ সুযোগ নেয় দাম বাড়ানোর, তাহলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মন্ত্রী বলেন, রমজানে দুইবার কম দামে এক কোটি দরিদ্র পরিবারকে টিসিবির পণ্য দেওয়া হবে। বর্তমানে এ পণ্য মাসে একবার করে দেওয়া হচ্ছে। এর প্রভাব বাজারে পড়বে বলে মনে করেন তিনি।
ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

রোজার প্রথম সপ্তাহে কমবে চিনির দাম : বাণিজ্যমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৩:৩৯:১০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মার্চ ২০২৩

রোজার প্রথম সপ্তাহে চিনির দাম কমবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।রোববার (১৯ মার্চ) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে দ্রব্যমূল্য ও বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত টাস্কফোর্সের সভা শেষে তিনি এ কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, শুল্ক ছাড় দেওয়ার কারণে চিনিতে সাড়ে চার টাকার মতো কমানো যাবে। আমরা ব্যবসায়ীদের পাঁচ টাকা কমানোর অনুরোধ জানালে তারা রাজি হয়। আশা করছি রোজার প্রথম সপ্তাহেই চিনির দাম কেজিতে পাঁচ টাকা কমবে। রমজানকে সামনে রেখে বাজার মনিটরিং প্রসঙ্গে টিপু মুনশি বলেন, আমরা সোমবার (২০ মার্চ) থেকে বাজার মনিটরিং করব। শুল্ক কমানোর পর বাজারে কী প্রভাব পড়ছে, তা পর্যবেক্ষণ করব।

দেশে প্রচুর তেল ও চিনির মজুত রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ভয়ের কোনো কারণ নেই। বাজারে কোনোভাবেই সংকট তৈরি হবে না। জিনিসপত্রের দাম সহনীয় রাখতে সরকার নানাভাবে চেষ্টা করছে। সরকারের কাছে যে মজুত আছে, তাতে কোনোভাবেই দাম বাড়বে না। কেউ বাড়ানোর চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, রমজানে যা প্রয়োজন, তার মজুত এখন দেড়গুণ আছে। তাই দাম বাড়ার কোনো কারণ নেই।

যদি কেউ সুযোগ নেয় দাম বাড়ানোর, তাহলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মন্ত্রী বলেন, রমজানে দুইবার কম দামে এক কোটি দরিদ্র পরিবারকে টিসিবির পণ্য দেওয়া হবে। বর্তমানে এ পণ্য মাসে একবার করে দেওয়া হচ্ছে। এর প্রভাব বাজারে পড়বে বলে মনে করেন তিনি।