০৫:১০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

‘শেখ হাসিনা জনপ্রিয়তার কাছে বিএনপির পরাজয় অবশ্যম্ভাবী’

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৬:৫৪:৪৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মার্চ ২০২৩
  • / ৭৫ বার পড়া হয়েছে

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সময় গড়িয়ে যায়। আমাদের শত্রুরা কিন্তু বসে নেই। তারা জেনে গেছে, ইলেকশন হলে শেখ হাসিনা জনপ্রিয়তার কাছে তাদের (বিএনপি) পরাজয় অবশ্যম্ভাবী।

মঙ্গলবার (৭ মার্চ) বিকেলে রাজধানীর কৃষিবিদ ইন্সটিটিউটে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। ওবায়দুল কাদের, আমাদের নিজেদের আত্মসংযমী হতে হবে, আমাদের আজ আত্ম-সমালোচনার করতে হবে, যে ঘাটতি আমরা লক্ষ্য করছি, সে ঘাটতিগুলো পূরণ করার জন্য আমাদের সামনে দুই মাসের থেকে বেশি সময় নেই।

আমাদের উপ-কমিটি করার জন্য, আমাদের নগর কমিটি, বিভিন্ন ওয়ার্ড কমিটি করার জন্য, আমাদের সদস্য সংগ্রহ অভিযানের জন্য, আমাদের গণসংযোগ করার জন্য আমাদের হাতে দুই থেকে আড়াই মাসের বেশি সময় আছে বলে আমার মনে হয় না।আ.লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশ স্থির অবস্থায় আছে। আজকের এই স্থির অবস্থান কোনো কারণে পাল্টে গেলে, বাংলাদেশ আবার উল্টোপথে যাত্রা করবে।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু যা বলেছেন মন থেকে বলেছেন, চেতনা থেকে বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর কোনো বক্তব্যই লিখিত ছিল না। স্বাধীনতার ঘোষণা দিতে হবে আজই, আমাদের তরুণ তুর্কিরা অনেকটা বেপরোয়া, আমাদের তরুণরা অসম্ভব বেপরোয়া স্বাধীনতা ঘোষণা ছাড়া অন্য কিছু শুনতে চাই না।

কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধু যা ভেবেছিলেন, যা চিন্তা করেছিলেন আপন মনে, আপন চেতনায়। তিনি দূরদর্শী এক রাষ্ট্রনায়ক, একজন দার্শনিক, একজন চিন্তানায়ক, রাষ্ট্রনায়কের পরিচয় দিয়েছিলেন। জনতাকে উস্কে দেওয়ার মতো কোনো কথা ভুলেও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুখ থেকে কখনও উচ্চারিত হয়নি।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

‘শেখ হাসিনা জনপ্রিয়তার কাছে বিএনপির পরাজয় অবশ্যম্ভাবী’

আপডেট সময় ০৬:৫৪:৪৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মার্চ ২০২৩

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সময় গড়িয়ে যায়। আমাদের শত্রুরা কিন্তু বসে নেই। তারা জেনে গেছে, ইলেকশন হলে শেখ হাসিনা জনপ্রিয়তার কাছে তাদের (বিএনপি) পরাজয় অবশ্যম্ভাবী।

মঙ্গলবার (৭ মার্চ) বিকেলে রাজধানীর কৃষিবিদ ইন্সটিটিউটে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। ওবায়দুল কাদের, আমাদের নিজেদের আত্মসংযমী হতে হবে, আমাদের আজ আত্ম-সমালোচনার করতে হবে, যে ঘাটতি আমরা লক্ষ্য করছি, সে ঘাটতিগুলো পূরণ করার জন্য আমাদের সামনে দুই মাসের থেকে বেশি সময় নেই।

আমাদের উপ-কমিটি করার জন্য, আমাদের নগর কমিটি, বিভিন্ন ওয়ার্ড কমিটি করার জন্য, আমাদের সদস্য সংগ্রহ অভিযানের জন্য, আমাদের গণসংযোগ করার জন্য আমাদের হাতে দুই থেকে আড়াই মাসের বেশি সময় আছে বলে আমার মনে হয় না।আ.লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশ স্থির অবস্থায় আছে। আজকের এই স্থির অবস্থান কোনো কারণে পাল্টে গেলে, বাংলাদেশ আবার উল্টোপথে যাত্রা করবে।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু যা বলেছেন মন থেকে বলেছেন, চেতনা থেকে বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর কোনো বক্তব্যই লিখিত ছিল না। স্বাধীনতার ঘোষণা দিতে হবে আজই, আমাদের তরুণ তুর্কিরা অনেকটা বেপরোয়া, আমাদের তরুণরা অসম্ভব বেপরোয়া স্বাধীনতা ঘোষণা ছাড়া অন্য কিছু শুনতে চাই না।

কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধু যা ভেবেছিলেন, যা চিন্তা করেছিলেন আপন মনে, আপন চেতনায়। তিনি দূরদর্শী এক রাষ্ট্রনায়ক, একজন দার্শনিক, একজন চিন্তানায়ক, রাষ্ট্রনায়কের পরিচয় দিয়েছিলেন। জনতাকে উস্কে দেওয়ার মতো কোনো কথা ভুলেও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুখ থেকে কখনও উচ্চারিত হয়নি।