০৮:৪১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

সমরেশ মজুমদার আর নেই

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৯:৪৮:৫৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ মে ২০২৩
  • / ৫৮ বার পড়া হয়েছে

কালপুরুষসহ একাধিক কালজয়ী উপন্যাসের লেখক প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক সমরেশ মজুমদার মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১। সোমবার (৮ মে) স্থানীয় সময় বিকেল ৫টা ৪৫ মিনিটে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় একটি হাসপাতালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি রোগে ভুগছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সমরেশ মজুমদারের বড় মেয়ে দোয়েল মজুমদার বলেন, বাবা আর নেই। তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। গত দু’তিন দিন তার অবস্থার অনেকটা উন্নতি ঘটে। আমরাও খুব আশাবাদী ছিলাম।

কিন্তু সোমবার তার একটি মেজর কার্ডিয়াক অ্যাটাক হয়। সেখান থেকে আর প্রত্যাবর্তন হয়নি তার। তিনি আরও বলেন, বাবার মরদেহ কাল সকালে শ্যামপুকুরের বাড়িতে কিছুক্ষণ রাখা হবে। এরপর সেখান থেকে শেষকৃত্যের জন্য বালিঘাটে নেওয়া হবে। ১৯৪২ সালের ১০ মার্চ উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ির গয়েরকাটায় সমরেশ মজুমদারের জন্ম।

‘সাতকাহন’ থেকে ‘গর্ভধারিণী’, ‘উত্তরাধিকার’, ‘কালবেলা’, ‘কালপুরুষ’, অর্জুন, মেজরের অ্যাডভেঞ্চারসহ বাংলা সাহিত্যের একের পর এক ক্লাসিক সৃষ্টির রূপকার তিনি। ১৯৮৪ সালে সাহিত্যে আকাদেমি পুরস্কার লাভ করেন তিনি।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

সমরেশ মজুমদার আর নেই

আপডেট সময় ০৯:৪৮:৫৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ মে ২০২৩

কালপুরুষসহ একাধিক কালজয়ী উপন্যাসের লেখক প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক সমরেশ মজুমদার মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১। সোমবার (৮ মে) স্থানীয় সময় বিকেল ৫টা ৪৫ মিনিটে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় একটি হাসপাতালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি রোগে ভুগছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সমরেশ মজুমদারের বড় মেয়ে দোয়েল মজুমদার বলেন, বাবা আর নেই। তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। গত দু’তিন দিন তার অবস্থার অনেকটা উন্নতি ঘটে। আমরাও খুব আশাবাদী ছিলাম।

কিন্তু সোমবার তার একটি মেজর কার্ডিয়াক অ্যাটাক হয়। সেখান থেকে আর প্রত্যাবর্তন হয়নি তার। তিনি আরও বলেন, বাবার মরদেহ কাল সকালে শ্যামপুকুরের বাড়িতে কিছুক্ষণ রাখা হবে। এরপর সেখান থেকে শেষকৃত্যের জন্য বালিঘাটে নেওয়া হবে। ১৯৪২ সালের ১০ মার্চ উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ির গয়েরকাটায় সমরেশ মজুমদারের জন্ম।

‘সাতকাহন’ থেকে ‘গর্ভধারিণী’, ‘উত্তরাধিকার’, ‘কালবেলা’, ‘কালপুরুষ’, অর্জুন, মেজরের অ্যাডভেঞ্চারসহ বাংলা সাহিত্যের একের পর এক ক্লাসিক সৃষ্টির রূপকার তিনি। ১৯৮৪ সালে সাহিত্যে আকাদেমি পুরস্কার লাভ করেন তিনি।