০৫:১৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

সম্পর্ক আরও গভীর করার প্রতিশ্রুতি মোদি-বাইডেনের

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় ১০:৪০:১২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ২৯৯ বার পড়া হয়েছে

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে বৈঠক করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ওই বৈঠকে উভয় দেশের সম্পর্ক আরও গভীর করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন উভয়ে।

শুক্রবার জি-২০ সম্মেলনের আগে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে উভয় নেতা এই প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। খবর এনডিটির।

বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ আন্তর্জাতিক গোষ্ঠী গ্রুপ অব টোয়েন্টি বা জি-২০ শীর্ষ সম্মেলন আজ শুরু হচ্ছে ভারতে। দেশটিতে ৪০ বছর পর একটি বৃহৎ আন্তর্জাতিক সম্মেলন হতে চলেছে। সম্মেলনে অংশ নিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন থেকে শুরু করে সদস্য, পর্যবেক্ষক ও আমন্ত্রিত দেশের শীর্ষনেতারা ইতোমধ্যে ভারতে এসে পৌঁছেছেন।

আরও পড়ুন: কোয়াডে গুরুত্ব দুই নেতার

সম্মেলনের একদিন আগে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাদের দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও গভীর করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এ ছাড়া বৈঠকে এ দুই রাষ্ট্রপ্রধানের মধ্যে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়। মহাকাশ গবেষণায় একসঙ্গে কাজ করা থেকে শুরু করে, গণতন্ত্র, মানবাধিকারসহ বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন মোদি-বাইডেন।

এদিকে বৈঠকের পর ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক অটুট রাখার বার্তা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। আগে টুইটার নামে পরিচিত সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এক্সে তিনি লিখেছেন— প্রধানমন্ত্রী আপনার সঙ্গে সাক্ষাৎ হয়ে ভালো লাগল। যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের সম্পর্ক যাতে অটুট থাকে, দুই দেশ যেন আরও বেশি কাছাকাছি আসতে পারে, বন্ধন আরও দৃঢ় হয়, সেটিই নিশ্চিত করা হবে।

এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় দিল্লি পৌঁছান জো বাইডেন। এর কিছুক্ষণ পরই মোদির সঙ্গে আলোচনায় বসেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে নৈশভোজের আয়োজন করা হয়েছিল বাইডেনের জন্য। আলোচনার পর যৌথ বিবৃতিও প্রকাশ করা হয়েছে।

সেই বিবৃতিতেও দুই রাষ্ট্রনেতা একসঙ্গে কাজ করার কথা বলেছেন। ৫জি ও ৬জি থেকে শুরু করে আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স (কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা), সব বিষয়েই সহযোগিতার বার্তা দিয়েছে দুই দেশ।

চলতি বছরের জুনে প্রধানমন্ত্রী মোদির ওয়াশিংটন সফরের কথাও উঠে আসে আলোচনায়। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বহুমাত্রিক এজেন্ডায় ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ স্ট্র্যাটেজিক পার্টনারশিপের ওপরেও জোর দেন দুই রাষ্ট্রনেতা। কথা হয়েছে কোয়াড সম্মেলন নিয়েও। কোয়াডভুক্ত দেশগুলো আগামী বছর ভারতে বৈঠকে বসছে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

সম্পর্ক আরও গভীর করার প্রতিশ্রুতি মোদি-বাইডেনের

আপডেট সময় ১০:৪০:১২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে বৈঠক করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ওই বৈঠকে উভয় দেশের সম্পর্ক আরও গভীর করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন উভয়ে।

শুক্রবার জি-২০ সম্মেলনের আগে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে উভয় নেতা এই প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। খবর এনডিটির।

বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ আন্তর্জাতিক গোষ্ঠী গ্রুপ অব টোয়েন্টি বা জি-২০ শীর্ষ সম্মেলন আজ শুরু হচ্ছে ভারতে। দেশটিতে ৪০ বছর পর একটি বৃহৎ আন্তর্জাতিক সম্মেলন হতে চলেছে। সম্মেলনে অংশ নিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন থেকে শুরু করে সদস্য, পর্যবেক্ষক ও আমন্ত্রিত দেশের শীর্ষনেতারা ইতোমধ্যে ভারতে এসে পৌঁছেছেন।

আরও পড়ুন: কোয়াডে গুরুত্ব দুই নেতার

সম্মেলনের একদিন আগে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাদের দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও গভীর করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এ ছাড়া বৈঠকে এ দুই রাষ্ট্রপ্রধানের মধ্যে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়। মহাকাশ গবেষণায় একসঙ্গে কাজ করা থেকে শুরু করে, গণতন্ত্র, মানবাধিকারসহ বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন মোদি-বাইডেন।

এদিকে বৈঠকের পর ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক অটুট রাখার বার্তা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। আগে টুইটার নামে পরিচিত সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এক্সে তিনি লিখেছেন— প্রধানমন্ত্রী আপনার সঙ্গে সাক্ষাৎ হয়ে ভালো লাগল। যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের সম্পর্ক যাতে অটুট থাকে, দুই দেশ যেন আরও বেশি কাছাকাছি আসতে পারে, বন্ধন আরও দৃঢ় হয়, সেটিই নিশ্চিত করা হবে।

এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় দিল্লি পৌঁছান জো বাইডেন। এর কিছুক্ষণ পরই মোদির সঙ্গে আলোচনায় বসেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে নৈশভোজের আয়োজন করা হয়েছিল বাইডেনের জন্য। আলোচনার পর যৌথ বিবৃতিও প্রকাশ করা হয়েছে।

সেই বিবৃতিতেও দুই রাষ্ট্রনেতা একসঙ্গে কাজ করার কথা বলেছেন। ৫জি ও ৬জি থেকে শুরু করে আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স (কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা), সব বিষয়েই সহযোগিতার বার্তা দিয়েছে দুই দেশ।

চলতি বছরের জুনে প্রধানমন্ত্রী মোদির ওয়াশিংটন সফরের কথাও উঠে আসে আলোচনায়। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বহুমাত্রিক এজেন্ডায় ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ স্ট্র্যাটেজিক পার্টনারশিপের ওপরেও জোর দেন দুই রাষ্ট্রনেতা। কথা হয়েছে কোয়াড সম্মেলন নিয়েও। কোয়াডভুক্ত দেশগুলো আগামী বছর ভারতে বৈঠকে বসছে।