০৭:০৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪

সরকার সুপরিকল্পিতভাবে রাষ্ট্রের মূল স্তম্ভগুলো ধ্বংস করছে : ফখরুল

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৫:৫৯:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ ২০২৩
  • / ৫৮ বার পড়া হয়েছে

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বর্তমান সরকার অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে রাষ্ট্রের মূল স্তম্ভগুলো ধ্বংস করছে। রাষ্ট্রের সঙ্গে জনগণের যে চুক্তি সেটা ভেঙে ফেলেছে। তারা নিজেদের ইচ্ছেমতো সংবিধানের বিধিবিধান তৈরি করছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) ১২ দলীয় জোট আয়োজিত ‘আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মাণে ২৭ দফা রূপরেখার গুরুত্ব ও অপরিহার্য’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশের মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার আন্দোলন ইতিহাস ছিল গণতন্ত্রের ইতিহাস। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে ভিন্নমত হলেও কথা বলার স্বাধীনতা থাকবে। আজ স্বাধীনতার এত বছর পরেও বলতে হয়, দেশে কথা বলার স্বাধীনতা নেই, আমরা স্বাধীনতা চাই। আমরা চেয়েছি গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ, যেখানে জনগণের ভোটাধিকার থাকবে, আইনের শাসন, মানবাধিকার ও ন্যায়-সাম্য থাকবে।

দেশের বুদ্ধিজীবীদের সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে আমার খুব কষ্ট হয় যখন দেখি দেশে কিছু বুদ্ধিজীবী আছেন। যারা দেশের এই অনিয়ম ও দুর্নীতির ব্যবস্থাকে সমর্থন করেন। এমনভাবে তারা চাটুকারিতা করে চরম শীর্ষে চলে যান।বিএনপির চলমান যুগপৎ আন্দোলন প্রসঙ্গে বিএনপির এই নেতা বলেন, এই আন্দোলন বিএনপি কিংবা কোনো দল বা ব্যক্তির লড়াই-সংগ্রাম নয়। এটা দেশের ১৮ কোটি মানুষের বেঁচে থাকার সংগ্রাম।

আসুন আমরা সবাই নেমে পড়ি। তাদেরকে সরিয়ে তত্ত্বাবধায়ক অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করি। ১২ দলীয় জোটের সমন্বয়ক মোস্তফা জামাল হায়দারের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন- কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহিম ও বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসানুল হুদা প্রমুখ।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

সরকার সুপরিকল্পিতভাবে রাষ্ট্রের মূল স্তম্ভগুলো ধ্বংস করছে : ফখরুল

আপডেট সময় ০৫:৫৯:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ ২০২৩

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বর্তমান সরকার অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে রাষ্ট্রের মূল স্তম্ভগুলো ধ্বংস করছে। রাষ্ট্রের সঙ্গে জনগণের যে চুক্তি সেটা ভেঙে ফেলেছে। তারা নিজেদের ইচ্ছেমতো সংবিধানের বিধিবিধান তৈরি করছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) ১২ দলীয় জোট আয়োজিত ‘আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মাণে ২৭ দফা রূপরেখার গুরুত্ব ও অপরিহার্য’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশের মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার আন্দোলন ইতিহাস ছিল গণতন্ত্রের ইতিহাস। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে ভিন্নমত হলেও কথা বলার স্বাধীনতা থাকবে। আজ স্বাধীনতার এত বছর পরেও বলতে হয়, দেশে কথা বলার স্বাধীনতা নেই, আমরা স্বাধীনতা চাই। আমরা চেয়েছি গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ, যেখানে জনগণের ভোটাধিকার থাকবে, আইনের শাসন, মানবাধিকার ও ন্যায়-সাম্য থাকবে।

দেশের বুদ্ধিজীবীদের সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে আমার খুব কষ্ট হয় যখন দেখি দেশে কিছু বুদ্ধিজীবী আছেন। যারা দেশের এই অনিয়ম ও দুর্নীতির ব্যবস্থাকে সমর্থন করেন। এমনভাবে তারা চাটুকারিতা করে চরম শীর্ষে চলে যান।বিএনপির চলমান যুগপৎ আন্দোলন প্রসঙ্গে বিএনপির এই নেতা বলেন, এই আন্দোলন বিএনপি কিংবা কোনো দল বা ব্যক্তির লড়াই-সংগ্রাম নয়। এটা দেশের ১৮ কোটি মানুষের বেঁচে থাকার সংগ্রাম।

আসুন আমরা সবাই নেমে পড়ি। তাদেরকে সরিয়ে তত্ত্বাবধায়ক অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করি। ১২ দলীয় জোটের সমন্বয়ক মোস্তফা জামাল হায়দারের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন- কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহিম ও বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসানুল হুদা প্রমুখ।