০৩:৪৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

সিটি নির্বাচনের প্রার্থীরা ইভিএম আতঙ্কে : জি এম কাদের

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৯:৫৫:১২ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ মে ২০২৩
  • / ৩৮ বার পড়া হয়েছে

সিটি নির্বাচনের প্রার্থীদের মধ্যে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) আতঙ্ক শুরু হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের। সোমবার (৮ মে) বিকেলে বনানীতে নিজ কার্যালয়ে বিকল্পধারার শতাধিক নেতাকর্মীর জাতীয় পার্টিতে যোগদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, আমরা সব নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। প্রার্থীরা বলছেন, নির্বাচন কমিশন সিটি নির্বাচনে ইভিএম চাপিয়ে দিচ্ছে। প্রার্থীদের মধ্যে ইভিএম আতঙ্ক শুরু হয়েছে। অন্যদিকে সরকার ও নির্বাচন কমিশন বলেই যাচ্ছে ইভিএমকে ভয় পাবেন না।তিনি বলেন, দেশের মানুষ কিন্তু বোকা না। তারা মনে করেন, ইভিএম দিয়ে সরকার যাকে খুশি বিজয়ী ঘোষণা করতে পারে।

তারা ভোট দিলেও সরকারি দল, না দিলেও সরকারি দলই পাস করছে। সরকার, প্রশাসন ও নির্বাচন ব্যবস্থার সঙ্গে জড়িত সবাই ইভিএম ব্যবহার করে সরকারের ইচ্ছামত ফলাফল ঘোষণা করার ব্যবস্থা করছে। সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জন করতে চাইলে ইভিএম বাদ দিয়ে নির্বাচন দিতে হবে। কোনো সিটি নির্বাচনেই ইভিএম দেওয়া ঠিক হবে না।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ। একটি দল খারাপ কিছু করলে পরবর্তীতে অন্য দল ক্ষমতায় এসে তা আরও বাড়িয়ে দেয়। দোষ-ত্রুটির দিক থেকে কেউ কারও চেয়ে কম না। মানুষের ভোটাধিকার যত দিন না থাকবে তত দিন রাজনীতিবিদদের কাছে মানুষের প্রয়োজন নেই। তাই বিকল্প একটি শক্তি প্রয়োজন। জাতীয় পার্টি সেই বিকল্প শক্তি হতে চেষ্টা করছে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

সিটি নির্বাচনের প্রার্থীরা ইভিএম আতঙ্কে : জি এম কাদের

আপডেট সময় ০৯:৫৫:১২ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ মে ২০২৩

সিটি নির্বাচনের প্রার্থীদের মধ্যে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) আতঙ্ক শুরু হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের। সোমবার (৮ মে) বিকেলে বনানীতে নিজ কার্যালয়ে বিকল্পধারার শতাধিক নেতাকর্মীর জাতীয় পার্টিতে যোগদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, আমরা সব নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। প্রার্থীরা বলছেন, নির্বাচন কমিশন সিটি নির্বাচনে ইভিএম চাপিয়ে দিচ্ছে। প্রার্থীদের মধ্যে ইভিএম আতঙ্ক শুরু হয়েছে। অন্যদিকে সরকার ও নির্বাচন কমিশন বলেই যাচ্ছে ইভিএমকে ভয় পাবেন না।তিনি বলেন, দেশের মানুষ কিন্তু বোকা না। তারা মনে করেন, ইভিএম দিয়ে সরকার যাকে খুশি বিজয়ী ঘোষণা করতে পারে।

তারা ভোট দিলেও সরকারি দল, না দিলেও সরকারি দলই পাস করছে। সরকার, প্রশাসন ও নির্বাচন ব্যবস্থার সঙ্গে জড়িত সবাই ইভিএম ব্যবহার করে সরকারের ইচ্ছামত ফলাফল ঘোষণা করার ব্যবস্থা করছে। সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জন করতে চাইলে ইভিএম বাদ দিয়ে নির্বাচন দিতে হবে। কোনো সিটি নির্বাচনেই ইভিএম দেওয়া ঠিক হবে না।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ। একটি দল খারাপ কিছু করলে পরবর্তীতে অন্য দল ক্ষমতায় এসে তা আরও বাড়িয়ে দেয়। দোষ-ত্রুটির দিক থেকে কেউ কারও চেয়ে কম না। মানুষের ভোটাধিকার যত দিন না থাকবে তত দিন রাজনীতিবিদদের কাছে মানুষের প্রয়োজন নেই। তাই বিকল্প একটি শক্তি প্রয়োজন। জাতীয় পার্টি সেই বিকল্প শক্তি হতে চেষ্টা করছে।