০৫:১০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি যুবক নিহত

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ১০:৫৮:৪৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ মে ২০২৩
  • / ৫৮ বার পড়া হয়েছে

ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলা সীমান্তে মো. মন্জুরুল ইসলাম (২২) নামে এক বাংলাদেশি যুবক নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৬ মে) দিবাগত রাত আনুমানিক ১২টার দিকে উপজেলার শাহাপুর কামারপাড়া সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মন্জুরুল উপজেলার পূনট্রি ইউনিয়ের কামারপাড়া গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চিরিরবন্দর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বজলুর রশিদ। তিনি বলেন, নিহতের বিষয় এখনো কিছু জানা যায়নি, আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। পরে বিস্তারিত জানানো হবে। এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মাজেদুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে কামারপাড়া শাহপুর সীমান্তের আনুমানিক ৫০ মিটার দূরে বিএসএফের গুলিতে নিহত মন্জুরুলের মরদেহ পড়ে ছিল।

পরে পরিবারের লোকজন মরদেহটি বাসায় নিয়ে আসে। তিনি আরও বলেন, নিহত মন্জুরুল পেশায় একজন কৃষক ছিলেন। কিন্তু তিনি কী কারণে রাতে সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়ার কাছে গিয়েছিলেন এ বিষয়ে পরিবারসহ স্থানীয়রা কিছু বলতে পারছেন না।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি যুবক নিহত

আপডেট সময় ১০:৫৮:৪৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ মে ২০২৩

ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলা সীমান্তে মো. মন্জুরুল ইসলাম (২২) নামে এক বাংলাদেশি যুবক নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৬ মে) দিবাগত রাত আনুমানিক ১২টার দিকে উপজেলার শাহাপুর কামারপাড়া সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মন্জুরুল উপজেলার পূনট্রি ইউনিয়ের কামারপাড়া গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চিরিরবন্দর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বজলুর রশিদ। তিনি বলেন, নিহতের বিষয় এখনো কিছু জানা যায়নি, আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। পরে বিস্তারিত জানানো হবে। এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মাজেদুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে কামারপাড়া শাহপুর সীমান্তের আনুমানিক ৫০ মিটার দূরে বিএসএফের গুলিতে নিহত মন্জুরুলের মরদেহ পড়ে ছিল।

পরে পরিবারের লোকজন মরদেহটি বাসায় নিয়ে আসে। তিনি আরও বলেন, নিহত মন্জুরুল পেশায় একজন কৃষক ছিলেন। কিন্তু তিনি কী কারণে রাতে সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়ার কাছে গিয়েছিলেন এ বিষয়ে পরিবারসহ স্থানীয়রা কিছু বলতে পারছেন না।