০৬:০৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

সুদানে সেনা-মিলিশিয়ার সংঘাতে নিহত বেড়ে ২০০

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৯:২৫:০৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৪২ বার পড়া হয়েছে

সুদানে ক্ষমতা দখলের লড়াইয়ে সেনাবাহিনী এবং আধা-সামরিক বাহিনীর মধ্যে সংঘাতে এখন পর্যন্ত প্রায় ২০০ মানুষ নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া আহত হয়েছেন আরও ১ হাজার ৮০০ জন।

গত শনিবার (১৫ এপ্রিল) দেশটির রাজধানী খার্তুমে প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ, রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন ও সেনা সদর দপ্তরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে লড়াই শুরু হয়। ২০২১ সালের অক্টোবরে এক সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে সুদানের ক্ষমতা মূলত সামরিক জেনারেলদের হাতে। এর নেতৃত্বে রয়েছেন জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান।

তার প্রতি অনুগত সামরিক ইউনিটগুলোর সঙ্গে লড়াই চলছে আরএসএফের, যার নেতৃত্বে রয়েছেন সুদানের উপ-নেতা মোহাম্মদ হামদান দাগালো। দুই পক্ষের মধ্যে নতুন করে শুরু হওয়া এই সংঘর্ষের কারণে দেশটির জনগণের মধ্যে আবারও বড় ধরনের অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। দাগালো বলেছেন, তার সৈন্যরা সব সেনা ঘাঁটি দখল না করা পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবে।

অন্যদিকে সুদানের সশস্ত্র বাহিনীগুলোও আধা-সামরিক বাহিনী আরএসএফ-কে ধ্বংস না করা পর্যন্ত কোনো ধরনের আপোস করবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। গত শনিবার থেকে চলা এই সংঘাতের হাসপাতালগুলোতে রোগীদের ব্যাপক চাপ তৈরি হয়েছে। এর ফলে চিকিৎসার প্রয়োজনীয় মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট ও খাদ্যসংকট দেখা দিয়েছে। সূত্র : এএফপি

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

সুদানে সেনা-মিলিশিয়ার সংঘাতে নিহত বেড়ে ২০০

আপডেট সময় ০৯:২৫:০৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৩

সুদানে ক্ষমতা দখলের লড়াইয়ে সেনাবাহিনী এবং আধা-সামরিক বাহিনীর মধ্যে সংঘাতে এখন পর্যন্ত প্রায় ২০০ মানুষ নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া আহত হয়েছেন আরও ১ হাজার ৮০০ জন।

গত শনিবার (১৫ এপ্রিল) দেশটির রাজধানী খার্তুমে প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ, রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন ও সেনা সদর দপ্তরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে লড়াই শুরু হয়। ২০২১ সালের অক্টোবরে এক সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে সুদানের ক্ষমতা মূলত সামরিক জেনারেলদের হাতে। এর নেতৃত্বে রয়েছেন জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান।

তার প্রতি অনুগত সামরিক ইউনিটগুলোর সঙ্গে লড়াই চলছে আরএসএফের, যার নেতৃত্বে রয়েছেন সুদানের উপ-নেতা মোহাম্মদ হামদান দাগালো। দুই পক্ষের মধ্যে নতুন করে শুরু হওয়া এই সংঘর্ষের কারণে দেশটির জনগণের মধ্যে আবারও বড় ধরনের অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। দাগালো বলেছেন, তার সৈন্যরা সব সেনা ঘাঁটি দখল না করা পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবে।

অন্যদিকে সুদানের সশস্ত্র বাহিনীগুলোও আধা-সামরিক বাহিনী আরএসএফ-কে ধ্বংস না করা পর্যন্ত কোনো ধরনের আপোস করবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। গত শনিবার থেকে চলা এই সংঘাতের হাসপাতালগুলোতে রোগীদের ব্যাপক চাপ তৈরি হয়েছে। এর ফলে চিকিৎসার প্রয়োজনীয় মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট ও খাদ্যসংকট দেখা দিয়েছে। সূত্র : এএফপি