০৬:১৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে খালেদা জিয়া

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৭:৩৪:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৬৩ বার পড়া হয়েছে

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে। শনিবার (২৯ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টার দিকে তাকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়।

এর আগে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিএনপি প্রধান তার গুলশানের বাসা থেকে হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। তার গাড়ির সঙ্গে দলটির অনেক নেতাকর্মী ছিল। বিকেল ৩টার দিকে বাসা থেকে খালেদা জিয়ার বের হওয়ার কথা থাকলেও দুই ঘণ্টা পর বের হন তিনি। বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার অংশ হিসেবে খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার আগে খালেদা জিয়ার বাসভবনে যান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, বিএনপি নেতা ডা. রফিকুল ইসলাম, ইশরাক হোসেন প্রমুখ।

এর আগে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য এভারকেয়ার হাসপাতালে যান খালেদা জিয়া। বেগম জিয়া দীর্ঘদিন ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, লিভার, ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন। অসুস্থতা বাড়লে মাঝেমধ্যে তাকে হাসপাতালে নিতে হয়। বর্তমানে গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা চলছে। দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত হয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যান বিএনপি চেয়ারপারসন।

করোনা মহামারি শুরুর পর ২০২০ সালের ২৫ মার্চ শর্তসাপেক্ষে বিএনপি প্রধানকে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার। এ পর্যন্ত ছয় দফায় খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। ৭৭ বছর বয়সী বিএনপি চেয়ারপারসন শর্তসাপেক্ষ কারাগার থেকে ছাড়া পাওয়ার পর বেসরকারি এই হাসপাতালেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক সাহাবুদ্দিন তালুকাদারের নেতৃত্বে একটি মেডিকেল বোর্ড তার চিকিৎসা তদারক করছে।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে খালেদা জিয়া

আপডেট সময় ০৭:৩৪:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৩

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে। শনিবার (২৯ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টার দিকে তাকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়।

এর আগে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিএনপি প্রধান তার গুলশানের বাসা থেকে হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। তার গাড়ির সঙ্গে দলটির অনেক নেতাকর্মী ছিল। বিকেল ৩টার দিকে বাসা থেকে খালেদা জিয়ার বের হওয়ার কথা থাকলেও দুই ঘণ্টা পর বের হন তিনি। বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার অংশ হিসেবে খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার আগে খালেদা জিয়ার বাসভবনে যান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, বিএনপি নেতা ডা. রফিকুল ইসলাম, ইশরাক হোসেন প্রমুখ।

এর আগে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য এভারকেয়ার হাসপাতালে যান খালেদা জিয়া। বেগম জিয়া দীর্ঘদিন ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, লিভার, ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন। অসুস্থতা বাড়লে মাঝেমধ্যে তাকে হাসপাতালে নিতে হয়। বর্তমানে গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা চলছে। দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত হয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যান বিএনপি চেয়ারপারসন।

করোনা মহামারি শুরুর পর ২০২০ সালের ২৫ মার্চ শর্তসাপেক্ষে বিএনপি প্রধানকে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার। এ পর্যন্ত ছয় দফায় খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। ৭৭ বছর বয়সী বিএনপি চেয়ারপারসন শর্তসাপেক্ষ কারাগার থেকে ছাড়া পাওয়ার পর বেসরকারি এই হাসপাতালেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক সাহাবুদ্দিন তালুকাদারের নেতৃত্বে একটি মেডিকেল বোর্ড তার চিকিৎসা তদারক করছে।