০২:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

হিন্দু নারীদের অধিকার নিয়ে হাইকোর্টের রুল

নিজস্ব সংবাদ দাতা
  • আপডেট সময় ০৭:২৭:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ মে ২০২৩
  • / ৫৩ বার পড়া হয়েছে

হিন্দু নারীদের অধিকারসহ চারটি বিষয় নিয়ে হাইকোর্ট রুল জারি করেছেন। হাইকোর্ট জানতে চায় হিন্দু নারীদের (ওইমেন্স রাইট বাস্তবায়নে) বিবাহবিচ্ছেদের অধিকার, বিয়ে নিবন্ধন, ব্যবস্থাপনা, অভিভাবকত্ব, সম্পত্তিতে উত্তরাধিকার প্রদানে কর্তৃপক্ষের নিস্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না।

আইন মন্ত্রণালয় সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। রোববার (১৪ মে) নয়টি সংগঠনের করা রিটের শুনানি করতে গিয়ে এই আদেশ দেন হাইকোর্ট। বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি মোহাম্মদ মাহাবুব উল ইসলাম সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ ওইমেন্স রাইট বাস্তবায়নে এ শুনানি গ্রহণ করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী জেড আই খান পান্না, সৈয়দা নাসরিন, এস এম রেজাউল করিম, মো. শাহিনুজ্জামান ও তামান্না। মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্র, ব্লাস্টসহ ৯টি সংগঠন হিন্দু নারীদের আইনগত অধিকার নিশ্চিতের প্রশ্নে হাইকোর্টে রিটটি করেন। রিটে হিন্দু বিবাহ আইনের অসঙ্গতি দূরীকরণে একটি নীতিমালা প্রণয়নেরও নির্দেশনা দাবি করা হয়।

ট্যাগস

নিউজটি শেয়ার করুন

হিন্দু নারীদের অধিকার নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আপডেট সময় ০৭:২৭:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ মে ২০২৩

হিন্দু নারীদের অধিকারসহ চারটি বিষয় নিয়ে হাইকোর্ট রুল জারি করেছেন। হাইকোর্ট জানতে চায় হিন্দু নারীদের (ওইমেন্স রাইট বাস্তবায়নে) বিবাহবিচ্ছেদের অধিকার, বিয়ে নিবন্ধন, ব্যবস্থাপনা, অভিভাবকত্ব, সম্পত্তিতে উত্তরাধিকার প্রদানে কর্তৃপক্ষের নিস্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না।

আইন মন্ত্রণালয় সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। রোববার (১৪ মে) নয়টি সংগঠনের করা রিটের শুনানি করতে গিয়ে এই আদেশ দেন হাইকোর্ট। বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি মোহাম্মদ মাহাবুব উল ইসলাম সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ ওইমেন্স রাইট বাস্তবায়নে এ শুনানি গ্রহণ করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী জেড আই খান পান্না, সৈয়দা নাসরিন, এস এম রেজাউল করিম, মো. শাহিনুজ্জামান ও তামান্না। মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্র, ব্লাস্টসহ ৯টি সংগঠন হিন্দু নারীদের আইনগত অধিকার নিশ্চিতের প্রশ্নে হাইকোর্টে রিটটি করেন। রিটে হিন্দু বিবাহ আইনের অসঙ্গতি দূরীকরণে একটি নীতিমালা প্রণয়নেরও নির্দেশনা দাবি করা হয়।